channel 24

সর্বশেষ

  • জাতীয় বীমা দিবস উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী: শেখ কবির

  • মুজিব বর্ষে বাংলাদেশ গেমসের মশাল প্রজ্জ্বলন গোপালগঞ্জে

  • প্রথমবার ওয়ানডে দলে জায়গা পেয়ে রোমাঞ্চিত আফিফ-নাঈম

  • সহিংসতা কমলেও দিল্লিতে আতঙ্কে ঘরবাড়ি ছাড়ছেন মুসলমানরা

  • শনিবার দেশব্যাপী জেলা ও মহানগরে বিএনপির বিক্ষোভ

  • ফতুল্লায় আটটি অবৈধ ভবন ভেঙে দিল ভ্রাম্যমাণ আদালত

  • রাবিতে বিভাগের নাম ফলিত পরিসংখ্যান করার দাবিতে শিক্ষার্থীদের অনশন

  • দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান চলমান আছে: আইজিপি

  • গাজীপুরে আনসার-ভিডিপি একাডেমিতে মৌলিক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

  • যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসন উপনির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা

  • করোনা আতঙ্কে ওমরাহ পালনে সৌদির নিষেধাজ্ঞা, টিকিট করে বিপাকে অনেকে

  • ৭ মার্চ আর্মি স্টেডিয়ামে জয় বাংলা কনসার্ট

  • উৎসবমুখর পরিবেশে চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে মনোনয়ন জমা

  • চলচ্চিত্রের প্রেমে পড়েছেন শার্লিন জামান

  • লিঁওর মাঠে অঘটনের শিকার জুভেন্টাস

ভারতের কাছে 'লিখিত' আশ্বাস চায় বাংলাদেশ: দ্য প্রিন্ট

ভারতের কাছে 'লিখিত' আশ্বাস চায় বাংলাদেশ: দ্য প্রিন্ট

সিএএ (নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন) কার্যকর করা হলে অভিবাসীদের সীমান্তের এপারে পাঠানো হবে না, এ বিষয়ে মোদি সরকারের কাছ থেকে লিখিত আশ্বাস চেয়েছে বাংলাদেশ। বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতের ইংরেজি গণমাধ্যম দ্য প্রিন্ট এ তথ্য জানায়।

সংবাদ মাধ্যমটি তাদের প্রতিবেদনে বলে, ভারতের জাতীয় নাগরিক পঞ্জিকা (এনআরসি) ইস্যুতে নয়াদিল্লির প্রতি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধারাবাহিক 'নমনীয়' অবস্থান ঘিরে সমালোচনার জন্য এমন পদেক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে দ্য প্রিন্টকে জানায়, আসামে এনআরসি বাস্তবায়নের পর গত অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরেও বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে একই ধরনের একটি দাবি জানানো হয়েছিল। এ সময় ভারত বাংলাদেশকে মৌখিকভাবে আশ্বাস দিয়েছিল যে আসামে এনআরসি'র অধীনে 'বিদেশি' শনাক্তকারীদের বাংলাদেশে পাঠানো হবে না। সে সময় লিখিত আশ্বাস দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে নয়াদিল্লি বলে, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী আসামে এনআরসি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।

দ্য প্রিন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, চলতি মাসে ভারতীয় পার্লামেন্টে 'সিএএ' পাস হওয়ার পরে বাংলাদেশের রাজনৈতিক নেতৃত্বের মধ্যে নতুন উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে যে, ভারত এখন এই আইনের অধীনে অবৈধ বলে বিবেচিত মুসলিম অভিবাসীদের সীমান্ত দিয়ে পুশইন করতে পারে। এখন সুপ্রিম কোর্টের বাধ্যবাধকতা না থাকায় লিখিত দেয়া সহজ হবে বলে বাংলাদেশ সরকার মনে করছে; এমনটাই জানিয়েছে বিভিন্ন সূত্র। তবে ভারত এখনও এমন কোনো আশ্বাস বাংলাদেশকে দিয়েছে কিংবা দিতে সম্মত হয়েছে, এমন কোনো ঘটনাও ঘটেনি।

এনআরসি নিয়ে ভারতজুড়ে ব্যাপক আন্দোলন চললেও দেশটির সরকার জানিয়ে দিয়েছে, এ বিষয়ে কোনো আলোচনা হবে না।

গণমাধ্যমটির প্রতিবেদনটিতে বিজিবি প্রধান শাফিনুল ইসলামের সঙ্গে রোববার দেশটির উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের একটি বৈঠকের কথা উল্লেখ করে জানানো হয়, ওই বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়। বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে বিজিবি প্রধান এনআরসি সরকারের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে মন্তব্য করেন বলেও উল্লেখ করে গণমাধ্যমটি। তবে সিএএ নিয়ে বিজিবি প্রধান কোনো মন্তব্য করেননি বলে জানায় তারা।

দ্য প্রিন্ট উল্লেখ করে, নরেন্দ্র মোদি সরকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকার পরও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন ভারত থেকে কোনো নিশ্চয়তা আনতে পারছেন না, সেটি নিয়ে বিরোধীদের কাছে সমালোচিত হচ্ছেন তিনি। তবে গেল নভেম্বরে বেঙ্গালুরু থেকে ৬০ অবৈধ বাংলাদেশিকে আটক করে তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কলকাতা নিয়ে আসার পর থেকে এই অবস্থা আরো বেশি খারাপ হয়েছে বলে মনে করছে ভারতীয় ওই গণমাধ্যমটি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর