channel 24

সর্বশেষ

  • আল্লামা শফী মারা গেছেন

  • মানিকগঞ্জে শ্রমিক জুলহাসকে পায়ুপথে বাতাস দিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা

  • বাশের চেয়ে কঞ্চি বড়!

  • নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ১

  • মাগুরায় দুই বাস-মাইক্রোবাসের ত্রিমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৪

  • রংপুরে একই বাড়ি থেকে দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

  • বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সফর: বিসিবির চিঠির উত্তর দেয়নি এসএলসি

  • ক্রিকেটারদের দ্বিতীয় ধাপের করোনা পরীক্ষা শুরু

  • পচাত্তরের কুশীলবরা এখনো আশপাশে ওৎ পেতে আছে: শ ম রেজাউল

  • দেশে করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, শনাক্ত ১৫৪১

  • ইসরায়েলের সাথে আরব রাষ্ট্রের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগের প্রতিবাদ

  • পেঁয়াজের দামে লাগাম টানার চেষ্টা, বিভিন্ন বাজারে অভিযান

  • পা হারালেও মনোবল হারাননি ইউনুছ, অটোরিকশা চালিয়ে হাল ধরেছেন সংসারের

  • ঢাকা শহরে কোনো অবৈধ বিলবোর্ড থাকবে না: মেয়র আতিক

  • দুর্গা পূজায় সরকারি ছুটি ৩ দিন করার দাবি হিন্দু মহাজোটের

আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু আজ

আন্তর্জাতিক আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলার শুনানি শুরু আজ

নেদারল্যান্ডসের আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে রোহিঙ্গা গণহত্যা বিষয়ে মামলার শুনানি শুরু হচ্ছে আজ। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জেনোসাইড কনভেনশন ভঙ্গের অভিযোগে মামলাটি করেছিল গাম্বিয়া। চ্যানেল টোয়েন্টিফোরকে আন্তজার্তিক আইন বিষেশজ্ঞ ড. মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, রোহিঙ্গাদের উপরে মিয়ানমার গণহত্যা চালিয়েছে কি না, সেটি জানতে সময় লাগবে। কেননা শুনানিতে দীর্ঘ সময় সময় প্রয়োজন হয়।

ক্লিয়ারেন্স অপারেশনের নামে পরিকল্পিতভাবে হত্যা, ধর্ষণ, অগ্নিসংযোগ করে রোহিঙ্গা জাতি গোষ্ঠীকে ধ্বংস করার জন্য মিয়ানমারে সেনাবাহিনীসহ অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনী জেনোসাইড মতো অপরাধ করেছে। জেনোসাইড সংঘটনে ষড়যন্ত্র ও নির্দেশ দিয়েছে। এটি রোধ ও দোষীদের শাস্তির জন্য প্রয়োজনীয় আইন করতে ব্যর্থ হয়েছে। এর ফলে জেনোসাইড কনভেনশন ভঙ্গ করেছে মিয়ানমার। এমন অভিযোগ এনে দেশটির বিরুদ্ধে আই সি জে তে ওআইসির পক্ষে মামলা করে আফ্রিকান দেশ গাম্বিয়া।

নেদারল্যান্ডেসের স্থানীয় সময় আজ মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) সকাল ১০ টা থেকে শুরু হবে আলোচিত এই মামলার শুনানি। যা চলবে তিন দিন। দুই দেশই এই মামলায় শুনানি করতে প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালত আইনের অনুচ্ছেদ ৪১ অনুযায়ি মিয়ানমারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি জন্য জাতিসংঘের আদালতের প্রতি আবেদন করেছে গামিম্বা। একই সাথে আবেদন করা হয়েছে, মিয়ানমার যেন রোহিঙ্গা নির্যাতনের কোন প্রমাণ ধ্বংস না করে। মামলার শুনানির প্রক্রিয়া নিয়ে চ্যানেল টোয়েন্টিফোর কথা বলেন আন্তর্জাতিক আইন বিশেষজ্ঞ ড. মিজানুর রহমানের সাথে।

তিনি বলেন, যদি আদালত সন্তুষ্ট হয় যে হ্যাঁ এখানে এমন কিছু অপরাধের কথা বলা হচ্ছে যেগুলো একটি জনগোষ্ঠির জন্যে, মানুষের জন্যে, জাতির জন্যে সাংঘাতিক ভাবে দূর্যোগ বয়ে নিয়ে আসতে পারে সেক্ষেত্রে কিন্তু প্রাথমিক পর্যায়ে আদালত কিছু পর্যবেক্ষন দিতে পারে এবং কিছু নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে পারে। মিয়ানমারের কি কি করণীয় এবং কি কি করতে পারবে না, এরকম নিষেধাজ্ঞা যদি আরোপ করেন তাহলে কিন্তু আমরা ধরে নিব আদালতের কাছে মনে হয়েছে যে অভিযোগের সত্যতা রয়েছে।

তবে মামলাটি একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে আছে, তিন দিনের শুনানি শেষে জানা যাবে আদালত কোন নিষেধাজ্ঞা দেয় কিনা? তবে দ্রুত নির্ধারিত হবে না, মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে কোন জেনোসাইড সংঘটিত করেছে কি-না?

ড. মিজানুর রহমান বলেন, যদি প্রাথমিক কোন পর্যবেক্ষন দেন বা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন, সগুলো কিন্তু তাৎক্ষনিক ভাবে আদালত নিরাপত্তা পরিষদকে অবহিত করবেন। এবং নিরাপত্তা পরিষদই হচ্ছে জাতিসংঘের নির্বাহী বিভাগ যারা দেখবেন যে আন্তর্জাতিক আদালতের সিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়িত হচ্ছে কিনা। আন্তর্জাতিক আদালতের সিদ্ধান্ত গ্রহন এবং বাস্তবায়ন একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়া। এখানে কোন সর্টকাট নেই।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর