channel 24

সর্বশেষ

  • বরিশালে কুয়েত প্রবাসীর বাড়ি থেকে ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার

  • বাড়ছে সিরামিক শিল্পের রপ্তানি আয়

  • চাহিদা বাড়ছে শীতের পোশাকের

  • বোমাসদৃশ্য বস্তুটি বোমা নয়, বালুভর্তি পাইপ

  • কারওয়ান বাজারে পেট্রোবাংলা ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে

  • রাতে বোর্নমাউথের আতিথ্য নেবে লিভারপুল, মায়োর্কার বার্সেলোনা

  • ময়মনসিংহে হাতে লেখা বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল ও স্মৃতিস্তম্ভ

  • ক্ষতিকর রাসায়নিক ছাড়াই বিভিন্ন জেলায় নিরাপদ সবজি উৎপাদন

  • মৌসুমের প্রথম ম্যানচেস্টার ডার্বি

  • মেঘনা নদীতে দুটি লঞ্চের সংঘর্ষে নিহত ১

  • দিল্লি হাসপাতালে গায়ে আগুন লাগা গণধর্ষণের শিকার তরুণীর মৃত্যু

  • সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি

  • জোরপূর্বক রাস্তার খননের অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে

  • কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘিরে বেপরোয়া সন্ত্রাসী গোষ্ঠী

  • মিথিলাকে বিয়ে করলেন সৃজিত

রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা

রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে) মামলা করেছে গাম্বিয়া। জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালতে দায়ের করা মামলায় অবিলম্বে রোহিঙ্গা নিপীড়ন বন্ধে আন্তর্জাতিক আদালতকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়।

২০১৭ সালে রাখাইনে রোহিঙ্গাগোষ্ঠীকে নির্মূলে এমন ভয়াবহ অভিযানে নামে দেশটির সামরিক বাহিনী। জ্বালিয়ে দেয়া হয় বসতবাড়ি, চলে গণহত্যা ও ধর্ষণ। নিপীড়নের মুখে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় ৭ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।

চুক্তির পর দফায় দফায় দিনক্ষণ চূড়ান্ত হলেও এখনও শুরু হয়নি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন। 

এ অবস্থায় রোহিঙ্গাদের ওপর চলা গণহত্যার দায়ে ইসলামি দেশগুলোর জোট-ওআইসির পক্ষে সোমবার মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালতে মামলা করে গাম্বিয়া। যাতে অবিলম্বে রোহিঙ্গা নিপীড়ন বন্ধে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসকে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানানো হয়। 

গাম্বিয়া আইনমন্ত্রী আবুবাকার মারি তামবাদউ বলেন, 'নিজ দেশের নাগরিকদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পরিকল্পিত গণহত্যা ও নির্মমতার ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনতেই আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে এ মামলা। মূলত ওআইসির পক্ষ থেকে গাম্বিয়া মামলাটি করেছে। এর মাধ্যমে মিয়ানমার ও বিশ্ববাসীকে স্পষ্ট বার্তা দিতে চাই, চোখের সামনে গণহত্যা হলেও, বিশ্ব সম্প্রদায় কিছুই করেনি। এটা এ প্রজন্মের জন্য লজ্জা।'

এর আগে গাম্বিয়ার আইনমন্ত্রী আবুবাকার মারি তামবাদউ গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারকে আইনের আওতায় আনতে শিগগিরই নেদারল্যান্ডসে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে মামলা করার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

ইরাসমাস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সেমিনারে তামবাদউ জানান, আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতে এই মামলা করার জন্য ৪ অক্টোবর আমি আইনজীবীদের নির্দেশনা দিয়েছি।

তিনি বক্তৃতায় বলেছেন, আমরা মামলার নির্দেশ দিয়েছি। মামলা সবরকম প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। আমি জানি, মিয়ানমারের নাগরিকরা কতটা অসহায় হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। কক্সবাজার পরিদর্শনকালে তাদের করুণ দশা শুনেছি।

তামবাদু বলেন, 'আমি যখন কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শনে যাই, তখন দূর থেকেই গণহত্যার দুর্গন্ধ পেয়েছি আমি। রুয়ান্ডায় চালানো গণধর্ষণ, হত্যা এবং গণহত্যার এক দশক পর রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো গণহত্যার এই দুর্গন্ধ আমার কাছে পরিচিতই মনে হয়েছে।'

তার মতে, রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত অপরাধের জন্য মিয়ানমারকে আন্তর্জাতিক মহলের জবাবদিহি করতেই হবে।

রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে গেলো সেপ্টেম্বরে, মিয়ানমারে জড়িত কর্মকর্তাকে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের সুপারিশ করে জাতিসংঘের ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং মিশন। আর গেলো মাসে সংস্থাটি জানায়, রাখাইনে থাকা বাকি ৬ লাখ রোহিঙ্গাও রয়েছে গণহত্যার ঝুঁকিতে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর