channel 24

সর্বশেষ

  • মহেশ বাবুর অস্ত্রোপচার

  • করোনা নিয়ে মিথ্যাচার করায় ‘চীনা নেটওয়ার্ক’ মুছে দিলো ফেইসবুক, ইনস্টাগ্রাম

  • দুর্গাপুরে চিনামাটির পাহাড়ে নেই টুরিজম ফ্যাসিলিটি

  • ঠেলা দিয়ে বিমান সরাচ্ছে যাত্রীরা, ভিডিও ভাইরাল

  • শ্রেণিকক্ষে ঢুকে পড়ল বাঘ, শিক্ষার্থীকে আক্রমণ (ভিডিও)

  • বিশ্বে আবারও বাড়লো করোনায় আক্রান্ত ও মৃ ত্যুর সংখ্যা

  • টিকা নেয়ার পরও আক্রান্ত, ২৭ দেশে ওমিক্রন শনাক্ত

  • গ্যাস সিলিন্ডারে দগ্ধ ভাই-বোন মারা গেছেন

  • অভিমানে চেয়ারম্যানের দেয়া উপহার আগুনে পোড়ালেন সমর্থক

  • বিজয় দিবসে দেশব্যাপী শপথ বাক্য পাঠ করাবেন প্রধানমন্ত্রী

  • করোনার টিকা নিতে হবে টানা কয়েক বছর: ফাইজার প্রধান

  • চার বছর পর হিলি দিয়ে কয়লা আমদানি শুরু

  • নারী কেলেঙ্কারি: নাচোলের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার

  • টাঙ্গাইলে দক্ষিণ আফ্রিকাফেরত ৬ প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টিনে

  • নির্ধারিত সময়ে ২৭ শতাংশ আয়কর রিটার্ন জমা

নীরব ঘাতক কিডনি রোগ: প্রতিকার ও করণীয় (ভিডিও)

নীরব ঘাতক কিডনি রোগ: প্রতিকার ও করণীয় (ভিডিও)

মানব দেহের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ কিডনি। শুধু বাংলাদেশ নয়, বিশ্বজুড়ে কিডনি রোগীদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে আশঙ্কাজনকভাবে। কিডনি সংক্রান্ত বিভিন্ন রোগের প্রাথমিক লক্ষণগুলো খুব প্রকট না হওয়ায় শরীরের ক্ষতি হতে থাকে নিজের অজান্তেই। লক্ষণগুলো যখন প্রকাশ পায় ততদিনে রোগ বেশ জটিল আকার ধারণ করে। তাই কিডনির বিভিন্ন রোগের প্রতিকার ও করণীয় সম্পর্কে ধারণা থাকা খুব জরুরি।

চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের স্বাস্থ্যবিষয়ক নিয়মিত আয়োজন ‘সুস্থ থাকুন প্রতিদিন’ অনুষ্ঠানে ‘কিডনি বিভিন্ন রোগ এর প্রতিকার ও করণীয়’ বিষয়ে বিশেষ আলোচনা করেছেন আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কিডনি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. নাজনীন মাহমুদ।

আরও পড়ুন: বুকে ব্যথা হৃদরোগের লক্ষণ নয় তো? করণীয় কী?

প্রথমেই তিনি আলোচনা করেছেন একজন সাধারণ মানুষ কীভাবে বুজতে পারবেন তার কিডনি সুস্থ আছে কিনা। তিনি বলেন, কিডনি সুস্থ আছে কিনা তা বোঝার জন্য প্রথমেই তাকে কিডনি রোগের লক্ষণগুলো সম্পর্কে অবগত হতে হবে।

ক্রনিক কিডনি ডিজিস বা দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ নিয়ে সবার উদ্বেগ থাকে বেশি। এর প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে শরীর দুর্বল লাগার কথা উল্লেখ করেন তিনি। পাশাপাশি রক্তশূন্যতা বা এনিমিয়া দেখা দিতে পারে, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে, রক্তে চিনির পরিমাণ কমে যেতে পারে।

তিনি বলেন, কিডনি পুরোপুরি খারাপ হতে সাধারণত তিন মাসের বেশি সময় লাগে, এই সময়ের মধ্যে দুটো কিডনিই পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিডনির কার্যক্ষমতা মাপার একক বা EGFR (Estimated Glomerular Filtration Rate) এর স্বাভাবিক লেভেল ১২৫। এই লেভেল ৩০-এর নিচে না নামলে কিডনি রোগের কোন লক্ষণ দেখা যায় না। তবে যাদের রক্তচাপ বা ডায়াবেটিসের সমস্যা আছে তাদের যদি প্রস্রাব যদি ফেনা ফেনা ধরনের হয় তখন ধারণা করা হয় কিডনি দিয়ে প্রোটিন যাচ্ছে অর্থাৎ কিডনিতে কোন সমস্যা হয়েছে। পাশাপাশি রাতে বারবার প্রস্রাবের বেগ আসবে।

কিডনি রোগের আরেকটি লক্ষণ হিসেবে হাতে পায়ে পানি আসতে পারে বলে জানান এ চিকিৎসক।

আরও পড়ুন: জয়েন্টের ব্যথার কারণ ও প্রতিকার (ভিডিও)

কিডনির বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে পানি পান করার উপর গুরুত্বারোপ করেন ডা. নাজনীন। পাশাপাশি বয়স ভেদে কী পরিমাণ পানি পান করা উচিৎ সে বিষয়ে দিক নির্দেশন দেন। একজন পূর্ণবয়স্ক স্বাভাবিক মানুষের ক্ষেত্রে দিনে ১০ থেকে ১২ গ্লাস বা তিন থেকে সাড়ে তিন লিটার এবং বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ছয় থেকে আট গ্লাস পানি পান করতে হবে। একদম কম বয়সী বাচ্চাদের ক্ষেত্রে ৪ গ্লাস পানি যথেষ্ট বলে জানান তিনি। তবে অতিরিক্ত পানি পান শরীরের ক্ষতি করতে পারে বলে সতর্ক করেন এ কিডনি বিশেষজ্ঞ।

ডা. নাজনীন বলেন, কিডনি রোগ যেকোনো বয়সে হতে পারে। তবে যাদের পরিবারে কিডনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার ইতিহাস আছে তাদের এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বেশি। যাদের পরিবারে কিডনি রোগী আছে বা ছিল তাদের বছরে অন্তত দুবার কিডনি পরীক্ষা করানো উচিৎ। কিডনি দিয়ে প্রোটিন যাচ্ছে কিনা এটা পরীক্ষা করেই কিডনি রোগ শনাক্ত করা সম্ভব বলে জানান ডা. নাজনীন মাহমুদ।

বিস্তারিত ভিডিওতে...

এসিএন/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর