channel 24

সর্বশেষ

  • নোয়াবের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় এ কে আজাদকে ফুলেল শুভেচ্ছা

  • চট্টগ্রামে রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার জন্য বাস চালক দায়ী: তদন্ত কমিটি

  • বিয়ের আগে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন

  • চাকরি দিচ্ছে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজ

  • অ স্ত্র প্রতিযোগিতা নয়, শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়তে সম্পদ ব্যবহার করুন: প্রধানমন্ত্রী

  • নির্বাচন নিয়ে সহিংসতা দিনের পর দিন চলতে পারে না: নির্বাচন কমিশনার

  • পেগাসাস স্পাইওয়্যারের কার্যক্রম বন্ধে হাইকোর্টের রুল

  • ভাইকে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেল যুবক

  • স্বাস্থ্য সচিব-ডিজির বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

  • নৌকার মনোনয়ন পাওয়ায় চেয়ারম্যানের ছেলের হাতবোমা বিস্ফোরণ করে উল্লাস

  • অর্থপাচারকারীদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৈরিতে আইনের সংশোধন চায় দুদক

  • ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’: সমুদ্রবন্দরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  • পুলিশ হেফাজত থেকে পালাল রোহিঙ্গা কালাম

  • বিমানবন্দরে আটকে দেয়া হলো জ্যাকুলিনকে

  • দেশের অর্থনৈতিক চাকা সচল রাখতে অবদান রাখছে নাভানা গ্রুপ

বয়োসন্ধিকালে অনিয়মিত মাসিক ও করণীয় (ভিডিও)

বয়োসন্ধিকালে অনিয়মিত মাসিক ও করণীয় (ভিডিও)

ঋতুস্রাব বা মাসিক প্রত্যেকটি মেয়ের একটি অবশ্যম্ভাবী বিষয়, প্রত্যেকটি মেয়েই তার জীবনে এই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যায়। সেই মাসিক যদি কখনো নিয়মের জায়গায় অনিয়মের মধ্যে পড়ে যায় তাকেই বলা হয় অনিয়মিত মাসিক। বয়োসন্ধিকালে মাসিকের সাথে যখন কিশোর পরিচয় ঘটে তখনই যদি মাসিক অনিয়মিত হয় তখন তা নিজেও পরিবারের সবার দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বিষয়ক আয়োজন ‘হেল্থ গাইড’- অনুষ্ঠানে বয়োসন্ধিকালে অনিয়মিত মাসিক নিয়ে আলোচনা করেছেন জেড এইচ শিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. শেখ জিন্নাত আরা নাসরিন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন ডা. আঞ্জুমান আরা তামান্না।

নিয়মিত মাসিকের কিছু সাধারণ বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলোচনা করেছন ডা. নাসরিন। তিনি জানান, প্রত্যেকটি মেয়েরই প্রাকৃতিকভাবে আটাশ বা ত্রিশ দিন পরপর মাসিকটি হবে, এটা নিয়মিত মাসিকের প্রধান শর্ত। তবে মাসিকটি ঘড়ির কাঁটার মতো ত্রিশ দিনেই হতে হবে, এমন কথা নেই। কারো ২১ দিন আগে হলে সেটি অনিমিয়মিত নয়। ছোট মাসিকের দৈর্ঘ্য ২১ দিন ধরা যায়। অন্যদিকে মাসিকটি ৩৫ থেকে ৪০ দিনের মধ্যেও হতে পারে, সেটিকেও স্বাভাবিক বলেই ধরা হয়।

মাসিকের স্থায়ীত্ব সাধারণ ৫ থেকে ৭ দিন হয়ে থাকে বলে জানান ডা. নাসরিন। তবে এটি ৩ দিনেও বন্ধ হতে পারে।

তিনি জানান, পিরিয়ডের সময় ৮০ মি.লি.’র মতো রক্তক্ষরণ স্বভাবিক, এর চেয়ে অধিক রক্তক্ষরণ হলে সেটিকে অনিয়মিত মাসিক বা অ্যাবনরমাল পিরিয়ড বলা হয়।

আরও পড়ুন: শিশু মৃত্যুর ঝুঁকি কমায় তেল মালিশ

বয়োসন্ধিকালে কিশোরীদের অনিয়মিত মাসিকের বিষয়ে আলোকপাত করেছেন ডা. শেখ জিন্নাত আরা নাসরিন। তিনি বলেন, ‘একজন কিশোরি মেয়ের জন্য মাসিক নতুন একটি অভিজ্ঞতা, তার উপর সেটি যদি অনিয়মিত হয়ে তাহলে সেটি তার এবং পরিবারের জন্য আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এবং তারা ছুটোছুটি করে ডাক্তারদের কাছে আসেন। আসলে যদি একজন ইয়ং মেয়ে যার মাসিক শুরু হয়েছে তার দু’তিন বছর কিন্তু একটু অনিয়মিত হতে পারে। ২৫ দিনের জায়গায় ৪৫ দিন পরেও হতে পারে। এটি নিয়ে দুশ্চিন্তার কোন কারণ নাই।

তবে যদি কিশোরী মেয়ের ভীষণ আকারে মাসিক হয়, রক্ত চাকা চাকা যায়, সেক্ষেত্রে অবশ্যই ডাক্তারের শরণাপন্ন হতে হবে বলে জানান তিনি।

বয়োসন্ধিকালে কিশোরীদের অনিয়মিত মাসিক হওয়ার কারণগুলো ব্যাখ্যা করেছেন ডা. নাসরিন। কিশোরীদের অনিয়মিত মাসিক হওয়ার ক্ষেত্রে রক্তের কোনা দোষ বা কোয়াগুলেশন ডিজঅর্ডার রয়েছে কিনা তা পরীক্ষা করার উপর বিশেষ গুরুত্ব দেন এই স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ। তিনি বলেন, ‘আমরা যদি এখনই এটিকে অ্যাড্রেস না করি পরবর্তীতে সেটি বড় আকার ধারণ করতে পারে।’

পলিসিসটিক ওভারি ডিজিসকে অনিয়মিত মাসিকের অপর একটি কারণ বলে উল্লেখ করেছেন ডা. নাসরিন। এর ফলে এলামোলো মাসিক হতে পারে বলে জানান তিনি। অল্প বয়সে গর্ভধারণের ফলে অস্বাভাবিক মাসিক হতে পারে। তাছাড়া কোনো কারণ ছাড়াও বয়োসন্ধিকালে অনিয়মিত মাসিক ঘটতে পারে।

পলিসিসটিক ওভারি সিনড্রোম বা পিসিওএস রোগী সংখ্যা কেন বাড়ছে জানতে চাইলে এ বিষয়ে বিষদ আলোচনা করেন স্ত্রীরোগ ও প্রসূতি বিভাগের অধ্যাপক ডা. নাসরিন। তিনি বলেন, ‘পলিসিসটিক ওভারি ডিজিস এমন এক ধরনের অসুস্থতা যেখানে একটি মেয়ের মাসিকটি তিনমাস ছয় মাস এমনকি বছরের পরেও হতে চায় না।’

আরও পড়ুন: ডায়াবেটিস রোগীদের যেসব সবজি খাওয়া উচিৎ

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা যদি একটু আল্ট্রাাসোনাগ্রাম করে দেখে নিতে চাই, দেখা যাবে যে দুটো ওভারি রয়েছে সেখানে মুক্তোর মালার মতো ফলিকলগুলো সাজানো রয়েছে, তাকে আমরা বলি পলিসিসটিক ওভারিজ। তবে আল্ট্রসনোগ্রাম রোগ নির্ণয়ের যথাযথ ক্ষেত্র নয়।’

‘আমরা মেয়েটির কাছে শুনে নেই তার মাসিকটি কেমন হচ্ছে। সাধারণ তারা বলে থাকে, অসম্ভব মুটিয়ে যাচ্ছে, তাদের অবাঞ্ছিত লোম হচ্ছে, কালো হয়ে যাচ্ছে, তাদের ব্রণ অনেক বেশি হচ্ছে, চুল পড়ে যাচ্ছে, পেটে মেদ জমে যাচ্ছে। এগুলো নিয়েই পিসিওএস মেয়ে আমাদের কাছে আসে।’

বিস্তারিত ভিডিওতে...

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর