channel 24

সর্বশেষ

  • টিকা নেয়ার পরও আক্রান্ত, ২৭ দেশে ওমিক্রন শনাক্ত

  • গ্যাস সিলিন্ডারে দগ্ধ ভাই-বোন মারা গেছেন

  • অভিমানে চেয়ারম্যানের দেয়া উপহার আগুনে পোড়ালেন সমর্থক

  • বিজয় দিবসে দেশব্যাপী শপথ বাক্য পাঠ করাবেন প্রধানমন্ত্রী

  • করোনার টিকা নিতে হবে টানা কয়েক বছর: ফাইজার প্রধান

  • চার বছর পর হিলি দিয়ে কয়লা আমদানি শুরু

  • নারী কেলেঙ্কারি: নাচোলের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে থানায় এজাহার

  • টাঙ্গাইলে দক্ষিণ আফ্রিকাফেরত ৬ প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টিনে

  • নির্ধারিত সময়ে ২৭ শতাংশ আয়কর রিটার্ন জমা

  • এবার মার্কিন পুলিশের গু লিতে প্রাণ হারালেন হুইলচেয়ারে বসা বৃদ্ধ

  • বাবরের একাদশে পাকিস্তানের চেয়ে ভারতের ক্রিকেটার বেশি

  • চাকরি দিচ্ছে বিকেএসপি

  • দাউদাউ করে জ্বলছে বিয়েবাড়ি, খেয়েই চলেছেন নিমন্ত্রিতরা (ভিডিও)

  • ঢাকার সঙ্গে উত্তরবঙ্গের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

  • অভিবাসী প্রেরণে বিশ্বে ষষ্ঠ, রেমিটেন্স গ্রহণে অষ্টম বাংলাদেশ

একই লক্ষণ কোভিড এবং ফ্লু-এর, কী করবেন?

একই লক্ষণ কোভিড এবং ফ্লু-এর, কী করবেন?

বৈশ্বিক মহামারি কোভিড এখনও আতঙ্ক ছড়াচ্ছে সারা বিশ্বজুড়ে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ অনেকটা কমে এলেও আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারেই কমে যায়নি। এমন অবস্থায় সামান্য মাথাব্যথা হলেই যেখানে মন ঘাবড়ে যায়, সেখানে জ্বর, দুর্বলতা, গায়ে ব্যথার মতো লক্ষণগুলোতে মানুষের আতঙ্কিত হওয়া স্বাভাবিক।

এ লক্ষণগুলো কোভিডের সাধারণ লক্ষণ হলেও, এগুলো হওয়া মানেই কোভিডে আক্রান্ত হওয়া নয়। ডেঙ্গু বা ইনফ্লুয়েঞ্জার মতো ভাইরাল ফ্লু-এর ক্ষেত্রেও প্রাথমিকভাবে এই লক্ষণগুলোই দেখা দেয়। 

তাছাড়া টিকা নেয়া ব্যক্তিদের বেলায় কোভিডের লক্ষণ শুধুমাত্র সর্দি ও হাঁচি-কাশির মধ্যে  সীমিত থাকতে পারে। এক্ষেত্রে কোভিডকে ফ্লু থেকে আলাদা করাটা আরও জটিল হয়ে যায়।

বিশ্বজুড়ে ডাক্তারদের মতে এবারের ফ্লু মৌসুমটা বেশ জটিল হবে। তাই সবাইকে সতর্ক থাকার দিয়েছেন ডাক্তাররা। ফ্লু এবং কোভিড-১৯-এর লক্ষণগুলো কাছাকাছি হওয়ায় রোগটি নির্ণয় করতেই অনেকটা বেগ পেতে হতে পারে।

আরও পড়ুন: ত্বকের যত্নে পান পাতা

বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের পরামর্শের আলোকে ফ্লু ও করোনা সংক্রান্ত জটিলতা নিয়ে মানুষের জিজ্ঞেস করা গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্নের উত্তর নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল।

প্রতিবেদন অনুসারে, লক্ষণ দেখা দিলে উভয় রোগের জন্যই পরীক্ষা করানোর উপদেশ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা। করোনা শনাক্তকরণে সবচেয়ে সংবেদনশীল এবং নির্ভুল পদ্ধতি এখন পিসিআর টেস্ট। তবে, লক্ষণ দেখা যাচ্ছে এমন ব্যক্তিদের বেলায় অ্যান্টিজেন টেস্টও বেশ বিশ্বাসযোগ্য। র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে ১৫ মিনিটের মধ্যেই ফলাফল জানা সম্ভব। কোভিড টেস্টে নেগেটিভ এলে ফ্লু সহ অন্যান্য অসুস্থতার জন্যও পরীক্ষা করানো উচিৎ।

করোনার লক্ষণ স্থান ও ধরন ভেদে ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে। স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ সাধারণত চিকিৎসা প্রদানকারীদের সাহায্য করার জন্য বিভিন্ন অসুস্থতার তথ্য জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়।

আরও পড়ুন: ঘৃতকুমারীর গল্প শুনুন

স্থানীয় পরিসংখ্যানের মাধ্যমে কখন আপনার এলাকায় করোনা বা ফ্লুতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে, আরএসভির মতো অন্যান্য ভাইরাস এ বছর স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে আগে আবির্ভূত হয়েছে কি না, এসব তথ্য সম্বন্ধে অবগত হতে পারেন আপনি। ডাক্তাররা বলছেন, আপনার অঞ্চলে কোনো নির্দিষ্ট অসুস্থতা বড় আকারে ছড়িয়ে পড়লে আপনার তার সংস্পর্শে আসার সম্ভাবনা বেশি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, একসঙ্গে একই লক্ষণযুক্ত একাধিক ভাইরাসে সংক্রমিত হতে পারেন আপনি, যদিও একসঙ্গে একাধিক সংক্রমণের দৃষ্টান্ত বিরল। তবে বাচ্চাদের একাধিক ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা সাধারণত বেশি থাকে। আরএসভি এবং অ্যাডেনোভাইরাস প্রাপ্তবয়স্কদের তুলনায় শিশুদের দেহে আরও গুরুতর রোগ সৃষ্টি করতে পারে।

কোভিড এবং ফ্লু, উভয়ের জন্যই টিকা নেয়া উচিত বলে জানা যায় ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের প্রতিবেদনে। বিশ্বের অনেক দেশে একই সঙ্গে ফ্লু ও কোভিডের টিকা নেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। একসঙ্গে টিকা গ্রহণের ব্যবস্থা না থাকলেও, বিশ্বের প্রায় সব রাষ্ট্রেই এখন ফ্লুয়ের মতো কোভিডের টিকাও জনসাধারণের নাগালের মধ্যে এসে পড়েছে।

এসিএন/এম 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর