channel 24

সর্বশেষ

  • রিজার্ভ থেকে ঋণ নিয়ে উন্নয়ন কাজে লাগানো যায় কিনা, তা ভেবে দেখার পরামর্শ

  • আর্থিক সংকটে পাইওনিয়ার লিগ খেলা ফুটবলাররা

  • খুলনার সেই সালামকে মুক্তির নির্দেশ আদালতের

  • উপনির্বাচন ইসির এখতিয়ার, এতে সরকারের হাত নেই: কাদের

  • সাঈদ হোসেন চৌধুরীকে ওয়ান ব্যাংকের চেয়ারম্যান পদ থেকে অপসারণ

  • মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার গুঞ্জন উড়িয়ে দিলেন ক্লাব সভাপতি

  • দিনাজপুরে বিআরটিসির বাসচাপায় নিহত ৫

  • লাপাত্তা হওয়া ক্রেস্ট সিকিউরিটিজর মালিক স্ত্রীসহ আটক

  • চট্টগ্রামে অস্থায়ী ক্যাম্পের মাধ্যমে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন একদল যুবক

  • মাদক নিয়ন্ত্রণে কাওরান বাজারে রেল লাইনের পাশের বস্তিতে উচ্ছেদ অভিযান

  • র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমতি দিলো স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • মানবপাচারের সাথে এমপি পাপুলের সম্পৃক্ততা খতিয়ে দেখছে সিআইডি

  • করোনায় দেশে আরও ৪৪ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২০১

  • করোনা চিকিৎসা নিশ্চিতে হাইকোর্টের ৫ নির্দেশনা

  • হাসপাতালে সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা না দেয়ার অভিযোগ তদন্তের নির্দেশ

যুক্তরাজ্যে মানব শরীরে পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিন প্রয়োগ

যুক্তরাজ্যে মানব শরীরে পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিন প্রয়োগ

করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি কবে মিলবে কবে নাগাদ তৈরি হবে কার্যকরী প্রতিষেধক- এ মুহূর্তে এসবের কোন উত্তর নেই, কারও কাছে। তবে এরমধ্যেও কিছুটা আশার আলো দেখাচ্ছেন যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক। বৃহস্পতিবার পরীক্ষামূলকভাবে মানব শরীরে প্রয়োগ করেছেন ভ্যাকসিন। গবেষকদের আশা, সাফল্যের সম্ভাবনা রয়েছে ৮০ শতাংশ।

করোনার ছোবলে টালমাটাল গোটা বিশ্ব। প্রতিষেধকের জন্য যখন হাহাকার তখন আশার আলো দেখাচ্ছে যুক্তরাজ্যের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়।

অক্সফোর্ডের একদল বিজ্ঞানীর তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বৃহস্পতিবার পরীক্ষামূলকভাবে দুজনের মানুষের শরীরে প্রয়োগ করা হয়েছে। প্রথম ভ্যাকসিন নেন একজন বিজ্ঞানী, যার নাম এলিসা গ্রানাতো। তিনি বলেন, বৈজ্ঞানিক কর্মকাণ্ডকে সাহায্য করতেই ভ্যাকসিনটি নিতে রাজি হয়েছেন তিনি।

একজন বিজ্ঞানী বলেন, আমি নিজে একজন বিজ্ঞানী। তাই বৈজ্ঞানিক এই কর্মকাণ্ডকে সাহায্য করতেই ভ্যাকসিনটি নিতে রাজি হয়েছি। যেকারণে আমি এখানে এবং খুবই আশাবাদী।

বিজ্ঞানীদের আশা, চূড়ান্ত পরীক্ষা সফল হলে সেপ্টেম্বরের মধ্যে মিলবে প্রতিষেধক। আগামী মে মাস নাগাদ আরও ৫ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর শরীরেও প্রয়োগ করা হবে এই ভ্যাকসিন। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির ভ্যাকসিনোলজির অধ্যাপক সারাহ গিলবার্ট এই পরীক্ষা পর্বের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এই প্রতিষেধকের কার্যকারিতা নিয়ে আমি অনেক আত্মবিশ্বাসী। কেননা, এর আগেও এমন পরীক্ষা প্রযুক্তি আমি ব্যবহার করেছি। আমাদের প্রচুর ডেটা সংগ্রহ করতে হবে, যদিও বিভিন্ন ভ্যাকসিন তৈরিতে এমন প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে।

জানুয়ারি থেকে গবেষণা শুরু করেছিল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়, তাদের তৈরি ভ্যাকসিনটির নাম -চ্যাডক্স ১। ভ্যাকসিনটি পরীক্ষার জন্য ৮০০ স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়।

এই মুহুর্তে আমাদের পরিকল্পনা মানুষকে ডোজ দেয়া এবং প্রতিক্রিয়ার জন্য পর্যবেক্ষণ করা। সুরক্ষা সরবরাহের জন্যও যথেষ্ট কি না তা দেখা। ৭০ বছর বয়সীদের জন্য এটা প্রতিরোধ ক্ষমতা যেহেতু কম সেহেতু ডোজ বেশি প্রয়োজন কিনা সেটিও পর্যবেক্ষণ করা হবে।

বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা একের পর এক করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কারে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত মেলেনি কোনো সুসংবাদ। গত বছরের ডিসেম্বর থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়া করোনায় এখন পর্যন্ত বিশ্বে প্রাণহানি ঘটেছে ১ লাখ ৯০ হাজারের বেশি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর