channel 24

সর্বশেষ

  • অবসর নয়, টেস্ট দলে ফেরার চেষ্টা অব্যাহত থাকবে: মাহমুদুল্লাহ

  • ভারতের পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলের ৫ রাজ্যে পঙ্গপালের হানা

  • মাধবপুরে জমি দখল নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ১০

  • যমুনা নদীতে নৌকাডুবিতে দুজনের মরদেহ উদ্ধার

  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুশফিকের ১৫ বছর

  • করোনায় মানবতার সেবায় দৃষ্টান্ত চাঁদপুরের চিকিৎসক দম্পতি

  • করোনায় ডেপুটি স্পিকারের স্ত্রী আনোয়ারা রাব্বীর মৃত্যু

  • করোনা আতঙ্কে ঘর থেকেই বের হননি রাজধানীর বেশিরভাগ মানুষ

  • লাদাখে মুখোমুখি ভারত ও চীনের সেনাবাহিনী

  • দুর্যোগে জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করছে বিএনপি: কাদের

  • করোনায় দেশে আরও ২১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১১৬৬

  • নিজের কিট দিয়ে করোনা পজিটিভ ডা. জাফরউল্লাহ

  • মানসিক অবস্থা ভালো হলেও শারীরিকভাবে সুস্থ নন খালেদা জিয়া

  • ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত খুলনার কয়রাসহ ৫ উপজেলার মাছ চাষী

  • দেশে রেকর্ড চাল উৎপাদনের আশা, উঠে আসবে বিশ্বের তিন নম্বরে

বিসিজি টিকা দেয়া দেশে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কম

বিসিজি টিকা দেয়া দেশে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কম

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ার সাথে সাথে এর প্রতিষেধকের খোঁজে বিভিন্ন রকম গবেষণা চলছে পৃথিবীজুড়ে। কখনো ভ্যাকসিন আবার কখনোবা বিভিন্ন ওষুধ ব্যবহার করে করোনা মোকাবিলার পথ খুঁজছে বিশ্ব। তবে সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় এমন এক তথ্য উঠে এসেছে যা সত্য হলে দেখা যাবে করোনাকে পরাজিত করার অস্ত্র এরই মধ্যে আছে মানবজাতির হাতে। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে বিশ্বব্যাপী বহুল ব্যবহৃত যক্ষার টিকাই নাকি মানুষকে করোনা মুক্ত রাখতে পারে।

ব্যাসিলাস কালম্যাট গ্যারেন বা বিসিজি জন্মের পর শিশুদের দেয়া হয় এই টিকা। যক্ষা প্রতিরোধে যা ব্যবহার করা হয় বিশ্বের অনেক দেশে। এর ফলে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

তবে যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, ফ্রান্সের মতো অনেক উন্নত দেশে যক্ষার ঝুঁকি কম থাকায়, এই টিকা শিশুদের দেয়া হয় না।

সম্প্রতি এক গবেষণা বলছে, যেসব দেশে বিসিজি টিকা দেয়া হয়েছে, সেসব দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুহার কম।

করোনা ভাইরাসে ইতালিতে মৃত্যু হার অনেক। এই দেশে কখনও বিসিজি টিকা দেয়া হয়নি। অন্যদিকে জাপানে বিসিজি টিকা দেয়া হয় ১৯৪৭ সাল থেকে। যেখানে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কম।

ইরানে বিসিজি টিকা দেয়া শুরু হয়, ১৯৮৪ সাল থেকে। তবুও এই দেশে মৃত্যু হার বেশি। গবেষণা বলছে, ইরানে যাদের বয়স ত্রিশ বছরের বেশি, তারাই করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এবং মৃত্যু ঝুঁকিতে আছেন।

চীনে ১৯৫০ সাল থেকে এই টিকা দেয়া শুরু হয়। তবে কেন সেখানে এত মানুষ মারা গেছেন? গবেষণা বলছে, ১৯৬৬ থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত দেশটিতে কালচারাল রেভুলেশনের সময় বিসিজি টিকা কর্মসূচি দুর্বল হয়ে পড়ে। ফলে এটি চীনের উপর প্রভাব ফেলেছে।

তবে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিসিজি টিকা কত দ্রুত রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারে, তা জানতে আরও গবেষণা দরকার।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর