channel 24

সর্বশেষ

  • স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা সরঞ্জাম দিলো স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস

  • আকিজ গ্রুপের হাসপাতাল তৈরিতে জনতার ক্ষোভ

  • জনগণকে সচেতন হবার আহ্বান জানিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ

  • শৈশব থেকেই বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অধিকারী ছিলেন বঙ্গবন্ধু

  • স্পেনে আরও ৮৩২ জনের প্রাণহানি

  • কাল থেকে সংসদ টেলিভিশনে শ্রেণী ভিত্তিক পাঠদান চলবে

  • ৭ দিন নিষেধাজ্ঞা বাড়লো বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলের

  • রাঙ্গামাটিতে জীবাণুনাশক ছিটিয়েছে সেনাবাহিনী

  • ফাঁকা ঢাকা; মানুষের সচেতনতায় কাজ করছে সেনা সদস্যরা

  • শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে স্বাবলম্বী লালমনিরহাটের হাফিজুর

  • 'অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্যাকেজ' বিলে সই করেছেন ট্রাম্প

  • মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নাগরিকের সঙ্গে সম্মানজনক আচরণ করার নির্দেশ

  • বন্ধ হচ্ছে কারখানা; চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে ২০ লাখ শ্রমিক

  • চট্টগ্রামে করোনা প্রতিরোধে সেনাবাহিনী ও জেলা প্রশাসনের অভিযান

  • টেকনাফে 'বন্দুকযুদ্ধে' নিহত ৪

গ্রামীণ জনপদে স্বাস্থ্য সেবায় আস্থার প্রতীক কমিউনিটি ক্লিনিক

গ্রামীণ জনপদে স্বাস্থ্য সেবায় আস্থার প্রতীক কমিউনিটি ক্লিনিক

নেই ওষুধের পর্যাপ্ত সরবরাহ। ভবনগুলোও পুরনো। তবুও গ্রামীণ জনপদে স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছে কমিউনিটি ক্লিনিক। যেখান থেকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরামর্শ ও ২৭ রকম ওষুধ পান তৃণমূলের মানুষ।

দীর্ঘ আট বছর বন্ধ থাকার পর ২০০৯ সালে পুনরায় চালু হওয়া কমিউনিটি ক্লিনিকে আরও ভালো সেবা পাবার প্রত্যাশা সাধারণ মানুষের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সময় এসেছে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো আরো বৃহৎ পরিসরে কাজ করার।

তবুও এ সব ক্লিনিকেই আস্থা রাখছেন তৃণমূলের সাধারণ মানুষ। এই যেমন, গাজীপুরের আটাবহ ইউনিয়নের চান মিয়া। পরিবার নিয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে এসেছেন বাড়ির পাশের বড়ইছুটি কমিউনিটি ক্লিনিকে।

এ সব ক্লিনিক তৈরিতে জমি দিয়েছেন স্থানীয় মানুষজনই। তাদেরই একজন গাজীপুরের কান্দাপাড়ার ছামান উদ্দিন। ৭০ ছুঁইছুঁই এই প্রবীণ প্রাথমিক চিকিৎসা নেন নিজের দান করা জমিতে গড়ে ওঠা কমিউনিটি ক্লিনিকে। জানালেন নিজের ভালোলাগার কথা।

এসব ক্লিনিকে স্বাস্থ্যসেবা পরিচালনা করছেন, বিশেষভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সিএইচসিপিরা। দাবি জানালেন, প্রকল্পের বদলে তাদের চাকরি স্থায়ীভাবে রাজস্বখাতে নেয়ার।

আইসিডিডিআরবির গবেষক ইকবাল আনোয়ার জানান, দেশজুড়ে আরও বড় পরিসরে এর কার্যক্রম ছড়িয়ে দেয়ার পরামর্শ তার।

গ্রামীণ জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে ১৯৯৮ সালে দেশব্যাপী প্রতিষ্ঠা করা হয় কমিউনিটি ক্লিনিক। সে-সময় এর সংখ্যা ছিল ১০ হাজার ৬০০টি।

তবে ২০০১ সালে তা বন্ধ করে দেয় বিএনপি-জামাত জোট সরকার। ৮ বছর পর ২০০৯ সালে আবারও চালু করে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্বাস্থ্য খবর