channel 24

সর্বশেষ

  • সৌদি প্রবেশে বাংলাদেশের ১৩৭ পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দাবি

  • আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে মাঠে ফিরলেন তামিম

  • চকলেট ভেবে ইঁদুর মারার ওষুধ খেলো দুই বোন, একজনের মৃ’ত্যু

  • চাঁদা আদায়ের অভিযোগে সুনামগঞ্জে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট

  • করোনাকালে কুড়িগ্রামে বাল্যবিয়ের হিড়িক

  • ৬০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি দিচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স

  • জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান হলেন শাফিন আহমেদ

  • খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ল আরও ছয় মাস

  • চাকরি দিচ্ছে সিটি ব্যাংক

  • ইভ্যালির গ্রেপ্তার কর্ণধারের বিরুদ্ধে আরেক মামলা

  • নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস খাদে, আহত ৩০

  • যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ক্ষতিপূরণ চায় কাবুল হা ম লায় নি হ তদের পরিবার

  • আফগানিস্তানের মেয়েরা প্রাথমিকের অনুমতি পেলেও পায়নি মাধ্যমিকের

  • প্রথমবার মহাকাশ ঘুরে এলেন চার সাধারণ নভোচারী

  • স্বামীর চাপাতির কোপে গুরুতর আহত স্ত্রী

৭১এ বিদায় নিলেন ’৭১এর কণ্ঠযোদ্ধা

৭১এ বিদায় নিলেন ’৭১এর কণ্ঠযোদ্ধা

চোখের জল আর ফুলেল শ্রদ্ধায় চিরবিদায় নিলেন, একাত্তরের শব্দ সৈনিক গণসঙ্গীতের পুরোধা ফকির আলমগীর। গার্ড অব অর্নার ও দুই দফা জানাজা শেষে তার দাফন সম্পন্ন হয়েছে রাজধানীর খিলগাঁও কবরস্থানে। এর আগে, সর্বস্তরের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য শিল্পীর মরদেহ রাখা হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। শেষ যাত্রায় দেখতে আসা বন্ধু-সহকর্মী আর অগ্রজ-অনুজরা বললেন, ফকির আলমগীরের প্রস্থানের শুণ্যতা কখনোই পূরণ হবার নয়।

বাংলাদেশের সাথে জড়িয়ে আছে ২১ আর ’৭১। যে দুই সংখ্যা মিশে আছে ফকির আলমগীরের জীবনেও। জন্মেছেন ২১ ফেব্রুয়ারি আর জীবনের যবনিকা টানলেন ৭১ বছর বয়সে।

করোনায় শুক্রবার রাত ১০টা ৫৬ মিনিটে নশ্বর পৃথিবী ছেড়ে যাওয়া এই কিংবদন্তির মরদেহ, শনিবার সকাল ১১টার কিছু আগে আনা হয়, রাজধানীর খিলগাঁওয়ের পল্লীমা সংসদ প্রাঙ্গণে। সেখানে লাল-সবুজ পতাকা জয়ের এই সাক্ষীকে দেয়া হয় গার্ড অব অর্নার। এরপর হয় তার প্রথম জানাজা।

একুশে পদক-সহ অসংখ্য পুরস্কার হাতে উঠলেও ফকির আলমগীরের ইচ্ছে ছিলো পাবেন স্বাধীনতা পদক। কিন্তু সে স্বপ্ন পূরণের আগেই পৃথিবী ছেড়েছেন তিনি। আর তাই মরণোত্তর হলেও বাবার শেষ স্বপ্ন পূরণের আবদার ছেলের।

দুপুর ১২টার কিছু পর সর্বস্তরের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য এই মুক্তিযোদ্ধাকে নেয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে। যেখানে বন্ধু সহকর্মী-অগ্রজ-অনুজদের ফুলে ফুলে ভরে ওঠে কিংবদন্তির নিথর দেহ।

’৬৯এর গণ অভ্যুত্থান, ’৭১এর মুক্তিযুদ্ধ কিংবা ’৯০এর স্বৈরাচার আন্দোলন, যেকোন সংকটে কথার পিঠে কথা জুড়ে, সুরে সুরে প্রতিবাদ করেছেন ফকির আলমগীর। আর তাই এই শিল্পীর মৃত্যুতে যে ক্ষতি হলো. তা কখনোই পূরণ হবার নয়, বললেন সহকর্মীরা।

মৃত্যু নামের সত্যে হয়তো পৃথিবী থেকে দেহের প্রস্থান ঘটেছে কিন্তু কর্ম আর সৃষ্টিতে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের হৃদয়ে ঠিকই বেঁচে থাকবেন ফকির আলমগীর।

এসিএন/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর