channel 24

সর্বশেষ

  • 'সাহারা খাতুন ছিলেন রাজপথে আন্দোলনের বলিষ্ঠ কণ্ঠ'

  • মিরপুরে সেপটিক ট্যাংক থেকে শিশুর মরদেহ উদ্ধার

  • প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোর ৮ বার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার

  • রাজস্ব আদায়ে অশনিসংকেত; সামষ্টিক অর্থনীতিতে বড় ধরণের প্রভাব পড়ার আশঙ্কা

  • রাস্তায় নারীর মরদেহ; সিসি ক্যামেরার ফুটেজে মিললো খুনির হদিস

  • মৌলভীবাজারে চুরির অপবাদে দুই শিশুকে নির্যাতন

  • হাটহাজারীতে করোনা আক্রান্তদের পাশে তরুণরা

  • সুনামগঞ্জে নদীর পানি বাড়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি

  • সাহেদের প্রধান সহযোগী তারেক শিবলী ৫ দিনের রিমান্ডে

  • ঝিনাইদহে ঐতিহ্যবাহী তেঁতুল গাছ রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন

  • 'সাহেদের অপকর্ম সম্পর্কে জানতে সময় লাগলেও ছাড় নয়'

  • কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ইএক্সপি যাচ্ছে অনলাইনে; চট্টগ্রাম কাস্টমসে শুল্কায়ন শুরু

  • ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ছুটছে ম্যান ইউ'র জয়রথ

  • করোনার ভুয়া সনদকাণ্ডে ইতালিতে বিপাকে বাংলাদেশিরা

  • দেশে করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৯৪৯

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘিরে নানা অসংগতি

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘিরে নানা অসংগতি

ঘোষণা করা হয়েছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১৭-১৮'র বিজয়ীদের নাম। তবে সেরার এই তকমা বগলদাবা করতে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছেন অভিনেতা মোশাররফ করিম। কারন হিসেবে জানা যায়, কমলা রকেট ছবিতে তার চরিত্রটি হাস্যরসের না হলেও তিনি পেয়েছেন সেরা কৌতুক অভিনেতার স্বীকৃতি। আর সেখানেই যতো আপত্তি এই অভিনেতার। অন্যদিকে চরিত্র নিয়ে একই অভিযোগ আছে গহীণ বালুচরের ফজলুর রহমান বাবুরও।

প্রতিবছরের মতো এবারও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ঘিরে তৈরী হয়েছে নানা অসংগতির চিত্রনাট্য। যে দৃশ্যপটে রয়েছেন মোশাররফ করিম এবং ফজলুর রহমান বাবু। এদের প্রথমজন ২০১৮ সালে কমলা রকেট ছবির জন্য এবং দ্বিতীয়জন ২০১৭ সালে গহীণ বালুচর ছবির জন্য পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা কৌতুক অভিনেতার স্বীকৃতি। আর সেখানেই যতো গণ্ডগোল আর বিতর্কের তর্ক।

সম্প্রতি অভিনেতা মোশাররফ করিম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট দিয়ে জুড়ি বোর্ডকে অনুরোধ করেছেন পুরস্কারটি প্রত্যাহারের। অন্যথায় রাষ্ট্রীয় এই সম্মাননা গ্রহণ করবেন না তিনি। কারণ ছবিতে তার অভিনীত চরিত্রটি হাস্য রসের নয়।

এদিকে যদিও একইমত ফজলুল রহমান বাবুর। তবে নিজের চরিত্রটি কমেডি না হলেও পুরস্কার গ্রহণে আপত্তি নেই এই অভিনেতার। এমন নানা তর্ক-বিতর্কের মাঝেই নির্মাতা বদরুল আনাম সৌদ জানিয়েছেন, জুড়ি বোর্ড নয় বরং ভুলটা বর্তায় তার কাঁধেই। বিভাগ ভিত্তিক মনোনয়ন ও চিত্রের কথা মাথায় রেখেই তিনি প্রস্তাব করেছিলেন নাম।

পুরোনো কাঠমোতে বিভাগ ভিত্তিক পুরস্কার প্রদানের কারণেই এমন বিতর্কের সৃষ্টি হচ্ছে বলে মনে করেন সিনেমা সংশ্লিষ্টরা। আর তাই সিনেমার সার্টিফিকেশনের পাশাপাশি পুরস্কার প্রদানের এই পদ্ধতিতেও পরিবর্তন আনা প্রয়োজন বলে মনে করেন তারা।  

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

বিনোদন খবর