channel 24

সর্বশেষ

  • মধ্যরাত থেকে যেসব এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ

  • যশোরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় নৌকার ২০ কর্মী আহত

  • পান্থপথে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু : ডিএনসিসির সেই চালক গ্রেপ্তার

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ক্রমবর্ধমান সহিংসতা সীমান্তের বাইরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে: প্রধানমন্ত্রী

  • আমতলীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান রাফেজা বেগম

  • ২২ কোটি টাকা লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে আখ মাড়াই শুরু

  • শেরপুরে আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কারের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

  • করোনার নতুন ধরন ‘ভয়ংকর’, দেশে দেশে সতর্কতা

  • আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দিচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

  • নতুন সময়ে মাঠে গড়াবে দ্বিতীয় দিনের খেলা

  • সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই: ভারতের হাইকমিশনার

  • চরের অবশিষ্ট মানুষকে দ্রুত বিদ্যুৎ দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • যাদের কারণে হুমকির মুখে শোয়েবের ১৮ বছরের রাজত্ব

  • পাকিস্তান ম্যাচ শুরুর আগে ভয়ে কাঁপছিলেন কোহলিরা: ইনজামাম

  • মারা গেলেন পৃথিবীর প্রবীণতম নারী

বেতন না পাওয়ায় খুলনা মেডিকেলে মল ছিটালো হরিজনরা

বেতন না পাওয়ায় খুলনা মেডিকেলে মল ছিটালো হরিজনরা

বেতন না পাওয়ায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটসোর্সিং কর্মচারী হরিজনরা হাসপাতালের প্রায় সব ইউনিট ও পরিচালকের কার্যালয়ের সামনে মানুষের মল ছিটিয়ে ধর্মঘট করেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে তারা অনির্দিষ্টকালের জন্য এই ধর্মঘট শুরু করেন।

এ সময় তারা মানুষের মল বালতি ভরে হাসপাতালে ছিটানো শুরু করে। প্রায় সব গুরুত্বপূর্ণ কক্ষের সামনে, প্রধান ফটকের সামনে, রোগী ভর্তি করার অফিসের সামনে, রোগীদের থাকার ওয়ার্ড ও পরিচালকের কক্ষের সামনে মল ছিটায়। সেই মল ঝাড়ু দিয়ে ছড়িয়ে দেয়। পরে বিকাল ৫টার দিকে তারা হাসপাতাল ত্যাগ করে।

হরিজনরা জানান, গত ৫ মাস ধরে হাসপাতাল থেকে কোনো প্রকার বেতন-ভাতা না দেওয়ার কারণে তারা এ ধর্মঘট শুরু করেছেন।

আরও পড়ুন: অধস্তন প্রকৌশলীর সঙ্গে বনিবনা হতো না নির্বাহী প্রকৌশলীর

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত ১১ মাস ধরে ৪৫ জন হরিজন আউটসোর্সিং কর্মচারী হিসেবে কাজ করছেন। প্রথম ৬ মাস বেতন পেলেও গত ৫ মাস তারা কোনো বেতন পাননি। করোনাকালে সরকারের সিদ্ধান্তে তাদের নিয়োগ করেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সেই সময় সরকারের পক্ষ থেকে ৬ মাসের বেতন দেওয়া হয়েছিল। তবে হাসপাতালে তাদের প্রয়োজন থাকায় কর্তৃপক্ষ তাদের রেখে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

ধর্মঘটকারীরা জানান, হাসপাতালে বর্তমানে হরিজন সম্প্রদায়ের বাইরেও তিন শতাধিক আউটসোর্সিং কর্মচারী আছে। তাদের বেতনের একটি অংশ কেটে রেখে হরিজনদের বেতন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

আন্দোলনকারী বিধান হরিজন বলেন, 'গত ৫ মাস ধরে আমরা শুধু কাজই করে যাচ্ছি। আমাদের কোনো বেতন-ভাতা দেওয়া হচ্ছে না। কর্তৃপক্ষ শুধু আশ্বাস দিয়েই আমাদের কাজ করাচ্ছেন। অবশেষে আমরা ধর্মঘট করতে বাধ্য হয়েছি।'

তবে হাসপাতালের পরিচালক ডা. রবিউল ইসলাম জানান, হরিজনদের বেতন বাকি থাকায় তারা মল ফেলে চলে যায়। পরে হাসপাতালের স্থায়ী ক্লিনারদের দিয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়েছে। শিগগিরই তাদের পাওনা পরিশোধের চেষ্টা করা হচ্ছে।

আরকে

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর