channel 24

সর্বশেষ

  • স্বতন্ত্র প্রার্থীর অফিসে তালা, প্রচার সরঞ্জাম খুলে নেয়ার অভিযোগ

  • আল্লাহর ওয়াস্তে আমাকে মাফ করে দেবেন: ডা. মুরাদ

  • আজ বরিশাল মুক্ত দিবস

  • মামুনুল হকের সহযোগী এহসানুল হকের জামিন চেম্বারে স্থগিত

  • ধ র্ষি ত মেয়ের নির্মম পরিণতির গল্প নিয়ে সিনেমা

  • ফোর্বসের প্রভাবশালী নারীর তালিকায় ৪৩তম শেখ হাসিনা

  • টেস্টে দ্রুততম ৪০০০ রান ও ২০০ উইকেট সাকিবের

  • শুক্রবারের সাপ্তাহিক ছুটি বদলে ফেলল আমিরাত

  • কোটালীপাড়ায় আরও ৪ আ. লীগ নেতা বহিষ্কার

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ রেলপথ নির্মাণ কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে

  • পরকীয়া সন্দেহে সামাদকে পিটিয়ে খু ন করল বাবা-ছেলে

  • এসএসসি পাসে লাখ টাকা বেতনে চাকরি দিচ্ছে ইউএসএআইডি

  • ২০০ কোটির প্রতারণার মামলায় ইডির অফিসে জ্যাকুলিন

  • ভেঙে পড়ল ভারতের সামরিক কপ্টার, প্রাণে বাঁচলেন বিপিন রাওয়াত

  • বাকিদেরও ফাঁসি চাই: আবরারের মা

চাল উৎপাদন বাড়লেও কমছে কৃষকের লাভের ভাগ

চাল উৎপাদন বাড়লেও কমছে কৃষকের লাভের ভাগ

যাদের শ্রম-ঘামে দানাদার খাদ্যে এই নীরব বিপ্লব সেই কৃষক প্রতিনিয়ত বঞ্চনার শিকার। বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিটিউটের এক গবেষণা বলছে, গত দুই দশকে ধান চাষীদের মুনাফা কমেছে ২৪ শতাংশ।

চাষীদের সর্বনাশের বিপরীতে পৌষের খোঁজ পেয়েছেন মিলার-পাইকাররা। তাদের মুনাফা বেড়েছে ১৬ শতাংশ পর্যন্ত।

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) ড.মো.শাহজাহান কবির বলেন, কৃষকের উৎপাদন কমে আসছে কারণ তারা ধান উৎপাদন করছে বা কৃষিপণ্য উৎপাদন করছে। কৃষক কিন্তু তার ন্যায্য মূ্ল্য পাচ্ছেন না। ২০০০ সাল থেকেই আমরা এ অ্যানালাইসিসটা করছি। আমরা প্রতিনিয়ত দেখছি কৃষকের যে শেয়ার সেটা কমে যাচ্ছে। তবে অন্য যারা আছেন যেমন মিলার, পাইকার তাদের শেয়ার কিন্তু বাড়ছে। এ জন্য বাজারটা আনস্টেবল।

ধানসহ কৃষিপণ্যের এমন বাজার ব্যবস্থাপনায় হতাশ খোদ কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, এটি একটি বিরাট দুর্বলতা। ঈশ্বরদীতে যে ফুলকপি বা টমেটো বা ১ কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১০ অথবা ১৫ টাকায়, ঢাকায় আসতে আসতে সেই ফুলকপির দাম হয়ে যাচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। এ যে রাস্তায় খরচ, আড়তদার সব মিলিয়ে একটি অস্বাভাবিক ব্যাপার। এটি আমাদের অবশ্যই দুর্বল দিক।

আরও পড়ুন: ময়মনসিংহে ডিআইজি পরিচয়ে প্রতারণা, আটক এক

কৃষি ও কৃষককে বাঁচাতে বাজার নজরদারির পাশাপাশি সরবরাহ চেইনে পরিবর্তন আনার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। সাবেক কৃষি সচিব আনোয়ার ফারুক বলেন, কৃষককে লাভবান করতে হলে হারবেস্টকালীন সময়ে ধানের দাম বেশি থাকতে হবে। অন্য সময় কম থাকলেও হারবেস্টের সময়ে বোরো সিজনটাই চিন্তা করি এ সময়ে সরকার  যদি একটা সাবস্টেনশিয়াল প্রোফিট দিয়ে রাখেন তাহলে কিন্তু বাজার ভালো হবে।

গত অর্থবছরে দেশের ইতিহাসে চালের উৎপাদন ছিল সর্বোচ্চ ৩ কোটি ৮৬ লাখ টন।

এমএম/এইউ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর