channel 24

সর্বশেষ

  • পাবনায় বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

  • একই দিনে পালিত হল তিন ধর্মের ধর্মীয় উৎসব

  • সহিংসতার আশঙ্কায় ভারতে স্থগিত ‘বাংলাদেশ ফিল্ম ফেস্টিভেল’

  • বাংলাদেশের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করলেন সাংবাদিকরা

  • বাড়িতে মাদকের আসর, স্ত্রীর অভিযোগে স্বামীসহ আটক ২

  • আসামিকে ফেসবুক লাইভে জিজ্ঞাসাবাদ, ওসি প্রত্যাহার

  • মালদ্বীপ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

  • ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১২ জন হাসপাতালে

  • সরকার অরাজকতা সৃষ্টি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিচ্ছে: ফখরুল

  • তিস্তা ব্যারেজে রেকর্ড পরিমাণ পানি ছাড়লো ভারত

  • কেরানীগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার ম র দে হ উদ্ধার

  • কুমিল্লা ঘটনার মূল অভিযুক্ত সীমান্তে ঘোরাঘুরি করছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • বাংলাদেশকে হারাতে পাপুয়া নিউগিনির অনুপ্রেরণা স্কটল্যান্ড

  • ট্রাকের সঙ্গে ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নি হ ত ২

  • থানায় ছাত্রলীগ নেতার আ ত্ম হ ত্যা র চেষ্টা!

অক্সিজেনবহনকারী ছেলেকে আটকে রাখলো পুলিশ, মারা গেলেন বাবা

অক্সিজেনবহনকারী ছেলেকে আটকে রাখলো পুলিশ, মারা গেলেন বাবা

সাতক্ষীরায় অসুস্থ বৃদ্ধ পিতার জন্য অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে যাওয়ার পথে শহরের ইটাগাছা হাটের মোড়ে পুলিশ ছেলেকে দুই ঘণ্টা আটকে রাখায় অক্সিজেনের অভাবে ওই বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এঘটনা প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে অভিযুক্ত পুলিশকে ক্লোজ করে ঘটনার বিভাগীয় তদন্ত করছে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ।

করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত ওই বৃদ্ধের নাম রজব আলী মোড়ল (৬৫)। তিনি সদর উপজেলার বৈচনা গ্রামের বাসিন্দা।

বৃদ্ধের ছেলে ওলিউল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে অসুস্থ বৃদ্ধ পিতার জন্য জরুরি অক্সিজেনের প্রয়োজন হওয়ায় তিনি সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার ব্যবসায়ী ও জেলা পরিষদ সদস্য আল ফেরদৌস আলফা’র কাছ থেকে একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার নিতে তার বাড়িতে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে ইটাগাছা হাটের মোড়ে পৌঁছালে তাকে আটক করেন ইটাগাছা ফাঁড়ির এএসআই সুভাষচন্দ্র। লকডাউনে বাইরে বেরিয়েছে বলে তিনি তার কাছে এক হাজার টাকা দাবি করেন। দাবিকৃত টাকা দিতে না পারায় তাকে দুই ঘণ্টা সেখানে আটকে রাখা হয়। পরে ইটাগাছা এলাকার জনৈক জিয়াউল ইসলামের মধ্যস্থতায় ২০০ টাকা নিয়ে এএসআই সুভাষচন্দ্র তাকে ছেড়ে দেন। কিন্তু ততক্ষণে অনেক দেরি হয়ে গেছে। বাড়িতে যেয়ে দেখেন অক্সিজেনের অভাবে তার পিতা মারা গেছেন। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি আরো বলেন, যদি সময় মতো অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে বাড়িতে যেতে পারতাম তাহলে হয়তো বাবা’কে বাঁচানো যেত। তিনি এই অমানবিক ঘটনার বিচার দাবি করেন।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ইটাগাছা পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই সুভাষচন্দ্র বলেন, বেপরোয়া গতিতে আসছিল মোটরসাইকেলটি। কাগজপত্রও ছিল না। পরে ঘটনা শুনে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। মাত্র ২/৩ মিনিট মোটরসাইকেলটি থামিয়ে রাখা হয়েছিল।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি দেলোয়ার হুসেন জানান, বিষয়টি শুনেছি। এ ঘটনা সম্পর্কে তদন্ত চলছে। এএসআই সুভাষকে ক্লোজ করাও হয়েছে। তাকে ক্লোজ করে পুলিশ লাইনে নিয়ে আসা হয়েছে।

আরকে

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর