channel 24

সর্বশেষ

  • ভিয়েনায় এশিয়া-প্যাসিফিক গ্রুপের সভাপতির দায়িত্ব নিলেন মোহাম্মদ মুহিত

  • মহাখালীতে কৃষিবিদ ফাউন্ডেশন ফর হিউম্যানিটির উদ্যোগে সপ্তাহব্যপী খাবার বিতরণ

  • খ্যাতির মোহেই আলোচনায় থাকতেন হেলেনা: র‌্যাব

  • ব্যান্ডেজ খুলতে গিয়ে নবজাতকের আঙ্গুল কেটে ফেলল নার্স

  • এবার ১০ মিনিটে দু’বার টিকা নিয়ে ভাইরাল বাশারুজ্জামান

  • বেড না পেয়ে হাসপাতালের সামনে মৃত্যু

  • পলাশবাড়ীতে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় ৪ সিএনজি যাত্রী নিহত

  • হেলেনা জাহাঙ্গীরের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

  • করোনায় বাড়ছে মৃত্যু, রাজধানীতে নেই সচেতনতা

  • মোবাইল চুরির অপবাদে হাত-পা বেঁধে শিশু নির্যাতন

  • একদিনে আরও ১৭০ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

  • উদ্দেশ্যহীন হেঁটেছিলেন বিদ্যা বালান!

  • গোবিন্দগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত ২

  • ১ আগস্ট থেকে খুলছে রপ্তানিমুখী শিল্প-কারখানা

  • অনুমোদনহীন আইপি টিভির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: তথ্যমন্ত্রী

পাওয়া গেল আওয়ামী লীগ- বিএনপি উভয়ের কাছে সর্বোচ্চ গ্রহণযোগ্য!

পাওয়া গেল আওয়ামী লীগ- বিএনপি উভয়ের কাছে সর্বোচ্চ গ্রহণযোগ্য!

দীর্ঘদিন ধরেই দেশের রাজনৈতিক অবস্থা বৈকট্য। কেউ কাউকেই মানেন না। বিশেষ করে আওয়ামী লীগ-বিএনপি। কোন ভালো বা সৎ লোককে কেউ মানলে, মানে না অন্য দল। ফলে, ভালো বা সৎ লোকের এখন রাজনীতিতে আসা এক প্রকার বন্ধ। তারা এড়িয়েই চলেন রাজনীতি থেকে। তবে, ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় পাওয়া গেল একজন সর্বোচ্চ গ্রহণযোগ্য ব্যক্তি।

নাম মো. রায়হান রনি, বয়স তার ২৩। যাকে এতকাল মেনে এসেছে বিএনপির ছাত্র সংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। তিনি আছেন, আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহবায়ক। এবার আওয়ামী লীগের সহযোগী ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগও তাকে পৌর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক পদ দিয়ে সম্মনীত করলো। তবে, স্থানীয় আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতা-কর্মিরা বলছেন, টাকায় বিক্রি হয়েছে কমিটি।

রায়হান রনি ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা পৌরসভার আলফাডাঙ্গার বাসিন্দা। লেখাপড়া করেন যশোর পলিটেকনিকে। তিনি আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক পদে থাকা অবস্থাতেই পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ পেলেন।
প্রায় ছয় মাস আগে গত ২৩ জানুয়ারি জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সৈয়দ আদনান হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হাসান ২১ সদস্যবিশিষ্ট আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রদলের একটি আহবায়ক কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়। ওই কমিটির ১ নম্বর যুগ্ম আহবায়ক রায়হান রনি।

অপর দিকে ১২ জুন আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি করা হয়। ঘোষিত পৌর ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক—এই তিন সদস্যবিশিষ্ট। দলীয় প্যাডে স্বাক্ষর দিয়ে এ কমিটি অনুমোদন দেয় জেলা ছাত্রলীগ। ঘোষিত ওই পৌর কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে আছেন মোহাম্মদ রায়হান রনি।

এ নিয়ে রায়হান রনি বলছেন, তিনি এখন ছাত্রলীগ করেন। তিনি আরো বলছেন, ছাত্রদলের রায়হান রনি আর তিনি এক ব্যক্তি নন। 
রায়হান রনির ছাত্রলীগের কমিটিতে থাকার অভিযোগ তদন্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছেন, জেলা ছাত্রদল সভাপতি সৈয়দ আদনান হোসেন অনু। ঘটনা সত্যি হলে রায়হান রনিকে বহিষ্কার করা হবে।

সদ্যঘোষিত আলফাডাঙ্গা পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি আজিজ খান বলেন, জেলা ছাত্রলীগ কমিটি দিয়েছে, তারাই রায়হান রনির বিষয়টি ভালো বলতে পারবে

আলফাডাঙ্গা উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল্লা আল মিলন জানান, ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের রায়হান রনি একই ব্যক্তি। রায়হান পৌর ছাত্রদলের কমিটির ১ নম্বর যুগ্ম আহবায়ক। তিনি বলেন, রায়হানের চাচা যুবলীগ করেন। তিনিই তাঁর ভাতিজাকে ছাত্রলীগে নাম ঢুকিয়েছেন। 

ছাত্রদলের কমিটির রায়হান রনী ও ছাত্রলীগের কমিটির মোহাম্মদ রায়হান রনী একই ব্যক্তি। এমনটিও জানিয়েছেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এনায়েত হোসেন। তিনি আরো বলেন, কৌশলগত কারণে নাম ছোট কিংবা বড় করে লেখানো হয়েছে।  বিষয়টি আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। অন্য দলের লোক এনে কমিটিতে নাম ঢুকানোর বিষয়টি আওয়ামী পরিবারের কেউ সুনজরে দেখছেন না বলেও জানান তৃণমূল নেতারা কর্মিরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর