channel 24

সর্বশেষ

  • বাংলাদেশে আসছে না শ্রীলঙ্কার সিনিয়র ক্রিকেটাররা

  • ছন্দে ফিরতে চান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন

  • ঈদ কেনাকাটায় মানুষের ঢল

  • চট্টগ্রামে ইবাদত বন্দেগির মাধ্যমে পালিত হচ্ছে জুমাতুল বিদা

  • সরকার আন্তরিক হলেও খালেদা জিয়াকে বিদেশ নেয়া সময় সাপেক্ষ

  • কুড়িগ্রামের শপিংমলে ক্রেতা সমাগম; মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

  • সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ

  • দেশে করোনায় ৫ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু

  • চট্টগ্রামে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ঈদ উপহার

  • বন্দরনগরীর মার্কেটগুলোতে প্রচুর ক্রেতা সমাগম

  • সফল মেকআপ আর্টিস্ট প্রতিবন্ধী হান্না ওলেটেজুর

  • ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ চিংড়ি হ্যাচারিতে; ক্ষতির মুখে মালিকরা

  • হালিশহরে অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ উদ্ধার

  • কুষ্টিয়ায় ট্যাংকের বিষক্রিয়ায় ২ শ্রমিকের মৃত্যু

  • ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রীকে জবাই: চাচাতো ভাই আটক

কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে এখনও ভরসা ঘোড়ার গাড়ি

কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে এখনও ভরসা ঘোড়ার গাড়ি

সময়ের সাথে যান্ত্রিক পরিবহন বাড়লেও কুড়িগ্রামের চরাঞ্চলে এখনও ভরসা ঘোড়ার গাড়ি। বিশেষ করে নদী তীরবর্তী জনপদে গতি এসেছে। যাত্রী কিংবা মালামাল- সবকিছুই এতে বহন করা হয়। অনেকের সংসারও চলে এই গাড়ি চালিয়ে।

চরাঞ্চলে সড়কগুলোর স্থায়িত্ব ঠিক থাকে না। আজ এদিক তো কাল সেদিক। নেই সংস্কারের চিন্তা। বালুর এ পথে চলে না মোটরচালিত যানবাহন।

প্রত্যন্ত চরবাসীদের তাই নিত্যসঙ্গী এই ঘোড়ার গাড়ি। মালামাল, লোকজন- এমনকি রোগী বহনেও ভরসা এই যান।

মাইক্রোবাসের পুরনো চাকা, বাঁশ-কাঠ দিয়ে একটি গাড়ি তৈরিতে লাগে ১০-১২ হাজার টাকা। আর একটি ঘোড়ার দাম পড়ে ৩০-৪০ হাজার। সারা দিনে একটি গাড়িতে রোজগার হয় ৬শ' থেকে ১২শ টাকা।

দুর্গম অঞ্চলে মানুষের জীবনযাত্রা সহজ করেছে ঘোড়ার গাড়ি। প্রতিদিন নদীর ঘাট থেকে মালামাল আনা-নেয়ায় এসেছে গতি। কুড়িগ্রাম জেলায় চর রয়েছে অন্তত পাঁচশো। যেখানে ঘোড়ার গাড়ি চলে দুই হাজারের বেশি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর