channel 24

সর্বশেষ

  • কুড়িগ্রামে বাসের ধাক্কায় এক পথচারি নিহত

  • মানবপাচারকারী চক্রের অন্যতম হোতা হাজী কামাল কারাগারে

  • ভাড়া বেশি নেয়ায় শ্যামলী পরিবহনকে ১০ হাজার টাকার অর্থদণ্ড

  • ওয়াদা পূরণের লক্ষ্যে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ করছি: তাপস

  • ইতালিয়ান লিগের সূচি চূড়ান্ত

  • করোনা আক্রান্ত হয়েছিলো বার্সেলোনার ৫ ফুটবলার

  • অলরেডরা চ্যাম্পিয়ন হলে বিজয় প্যারেড হবে: ইয়ুর্গেন ক্লপ

  • আরো এক বছর বার্সেলোনায় থাকছেন মেসি

  • পরিবহন সিন্ডিকেটের কাছে আত্মসমর্পণ করেছে সরকার: রিজভী

  • ভার্চুয়াল কোর্ট নিয়ে আইনজীবীদের সতর্ক করলেন হাইকোর্ট

  • যাত্রী বাড়লেও, অর্ধেক আসন খালি রেখেই বাস চলবে: সেতুমন্ত্রীর প্রত্যাশা

  • করোনায় মারা গেছেন ইউরোলজিস্ট ডা. মনজুর রশীদ চৌধুরী

  • দেশে একদিনে শনাক্তের রেকর্ড ২৯১১ জন, মৃত্যু ৩৭

  • কুমিল্লায় পল্লী বিদ্যুতের ঠিকাদারের ক্রেন চাপায় একজন নিহত

  • আগুনে ৫ জনের মৃত্যু: ইউনাইটেড হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের ব্যাখ্যা চেয়েছেন হাইকোর্ট

করোনার থাবায় হুমকির মুখে কাঁকড়া রপ্তানি

করোনার থাবায় হুমকির মুখে কাঁকড়া রপ্তানি

দেশের রপ্তানি পণ্যে চিংড়ির পরেই কাঁকড়ার অবস্থান। করোনার থাবায় হুমকির মুখে পড়েছে এই খাতও। রপ্তানি বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন কাঁকড়া উৎপাদনে শীর্ষ জেলা সাতক্ষীরার কয়েক হাজার মানুষ।

বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলের লোনা এলাকা হিসাবে পরিচিত সাতক্ষীরা। এ এলাকার বেশির ভাগ মানুষের জীবিকার প্রধান উৎস মৎস্যঘের হওয়ায় কাকড়া চাষে সৃষ্টি হয়েছে অপার সম্ভাবনা। গড়ে উঠেছে দেশের বৃহৎ কাঁকড়ার বাজার। কিন্তু আজকে সে বাজার রীতিমতো হুমকির মুখে।

এ জেলা থেকে চীনে রপ্তানির জন্য সাতক্ষীরা থেকে দু-তিন দিন পরপর টন কি টন কাকড়া ঢাকায় পাঠানো হতো। তবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে গত ২০ জানুয়ারি থেকে রপ্তানি বন্ধ থাকায় প্রতিদিন সংগ্রহকৃত বিপুল পরিমাণ কাকড়া মরে যাচ্ছে। ফলে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্যবসায়ীরা। রাজস্ব হারাচ্ছে দেশ। ফলে একদিকে ব্যবসা বন্ধ অপরদিকে ঋণ স্থানীয় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের পাওনা টাকা দিতে না পেরে বিপাকে পড়েছেন আড়তদাররাও।

এদিকে কাঁকড়া রপ্তানি বন্ধ থাকায় এলাকার খেটে খাওয়া মানুষের সংসার পড়েছে সংকটে।

এ অবস্থায় অন্য দেশের বাজার খুঁজে বের করার জন্য অনুরোধ ব্যবসায়ীদের সংগঠন সাতক্ষীরা চেম্বার অফ কমার্সের সভাপতি নাসিম ফারুক খান মিঠু।

সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য কর্মকতা মো: মশিউর রহমান বলেন, এ জেলায় কাকড়ার বার্ষিক উৎপাদন ১১৫০ মেট্রিকটন, যার মধ্যে রপ্তানি হয় ৮৫০ মেট্রিক টন। এই কাকড়ার বাজার মূল্য সাধারণত ১২শ'-১৩শ' টাকা। জেলার সাধারণ রপ্তানিকারকদের চীনা ক্রেতাদের কাছে পাওনা ১২০ থেকে ১৩০ কোটি টাকা।

অবিলম্বে কাঁকড়া রপ্তানি করা না গেলে এ পেশার সঙ্গে জড়িত সাতক্ষীরার কয়েক হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পথে বসতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন সবাই। তাই সরকারের দৃশ্যমান পদক্ষেপ দেখতে চায় কাকড়া চাষে সম্পৃক্ত মৎস্যজীবীসহ সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর