channel 24

সর্বশেষ

  • ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে করোনার হানা, কলম্বিয়ায় ৪১ ফুটবলার আক্রান্ত

  • দুই আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা জয়ী

  • এখনো জাতীয় দলে ফেরার স্বপ্ন আশরাফুলের

  • ৩ সপ্তাহ পর করোনা মুক্ত হলেন মাশরাফী

  • রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজ গ্রেপ্তার

  • স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করলেন মশিউর রহমান রাঙা

  • সাতক্ষীরায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিদের মানববন্ধন

  • বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হবে, ছড়াবে ২৩ জেলায়

  • বেরিয়ে আসছে সাবরিনার অপকর্মের নানা নজির

  • এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

  • ভুয়া চিকিৎসক দম্পতির নৃশংসতা

  • বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ শেষ, চলছে গণনা

  • অধিদপ্তরের ডিজির অনুরোধেই রিজেন্টের সাথে চুক্তি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • বিদ্যুৎ উৎপাদনে চীনা প্রতিষ্ঠানের সাথে যৌথ কোম্পানি গঠনে চুক্তি

  • জামরুলের পুষ্টিগুণ

জনগণকে সুসংগঠিত করতেই নোয়াখালীতে এসেছিলেন বঙ্গবন্ধু

জনগণকে সুসংগঠিত করতেই নোয়াখালীতে এসেছিলেন বঙ্গবন্ধু

সাংগঠনিক ও রাষ্ট্রীয় সফরে ১৩ বার নোয়াখালী গেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলো পরিবর্তন হলেও, কালের সাক্ষী হয়ে আছে নোয়াখালী প্রেসক্লাব। বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্য পেয়েছেন এমন মুক্তিযোদ্ধা ও রাজনৈতিক নেতারা এখনো বেঁচে আছেন। বয়সের ভারে নুয়ে পড়লেও অমলিন বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি।

চৌমুহনী এস এ কলেজের সাবেক ভিপি মোহাম্মদ উল্যাহ বলেন, বঙ্গব্ন্ধু নোয়াখালীতে এসে আমার স্লোগান শুনে আমাকে ডাক দিয়েছিলেন, পরবর্তীতে এসেও তিনি আমাকে চিনতে পেরেছিলেন।

৫২'র ভাষা আন্দোলনের পরই দেশ যখন উত্তাল, তখন দেশব্যাপী আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করতে নোয়াখালীতে পা রেখেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর

রহমান। সেদিন কেরানি ব্যারাট মাঠে আওয়ামী লীগের জনসভায় ভাষণ দেন তিনি।

ভিপি মোহাম্মদ উল্লা বলেন, ১৯৬২ সালে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী এবং মাওলানা ভাষানীর সাথে বঙ্গবন্ধু নোয়াখালী এসেছিলেন জনসভা করার  জন্য, চৌমুহনী স্টেশনে আমি নেতাদেরকে দেখতে গেলাম এবং বঙ্গবন্ধুর জন্যই বেশি শ্লোগান দিলাম, উনি এটা দেখলেন। আমি দক্ষিণ দিক থেকে স্টেশন যখন আসি তখন উনি আমাকে ডেকে ওনার বগিতে ওঠাইলেন এবং আমাকে সোনাপুর নিয়ে গেলেন এবং জনসভায় ওনার পাশে বসাইলেন। সেই জনসভা দেখার সুযোগ হয়েছে আমার। এরপর ১৯৬৪ সালে বঙ্গবন্ধু যখন জনসভা করতে আসলেন আমি মনে করেছিলাম তিনি আমাকে চিনবেন না, কিন্তু উনি শ্লোগানের এক ফাঁকে আমাকে নাম ধরে ডাকেন, তখন আমি নিজেও অবাক হলাম এবং পুরো জনসভা অবাক হলো।

নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ সাবেক সভাপতি মোহাম্মদ হানিফ বলেন, কেরানি ব্যারাট মাঠের দক্ষিণ পাশ একটা বট গাছ ছিল এই বটগাছকে কেন্দ্র করেই মিটিং মঞ্চ হতো। বঙ্গবন্ধু এখানে আসবে আমরা শুনছি, শেখ মুজিব আসতেছে শুনেই আসরা মানুষজন ডাকতে শুরু করেছি। লম্বা মানুষ বক্তব্য করতেছে, কন্ঠ ঠিক আছে, আওয়াজ ঠিক আছে, তেজোদীপ্তনা আছে।

সাংগঠনিক ও রাষ্ট্রী সফরে ১৩ বার নোয়াখালীতে গিয়েছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর সান্নিধ্য পেয়েছিলেন যারা, তাদের অনেকে এখন বেঁচে আছেন। বয়সের ভারে নুয়ে পড়লেও, স্মৃতির ক্যানভাসে রয়ে গেছে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর