channel 24

সর্বশেষ

  • ব্যক্তিগত-প্রাতিষ্ঠানিক ত্রাণের তালিকায় নেই শিশু খাদ্য

  • নারায়ণগঞ্জে ডিসি, সিভিল সার্জনসহ কয়েকজন শীর্ষ কর্মকর্তা হোম কোয়ারেন্টিনে

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ৫ টাকায় সবজি বাজার

  • নাটোরের সিংড়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে গৃহবধূর মৃত্যু, পুরো গ্রাম লকডাউন

  • চট্টগ্রামে আরো তিনজন করোনারোগী সনাক্ত

  • বগুড়ায় গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী পলাতক

  • চাঁদপুর অনির্দিষ্টকালের জন্য লকডাউন

  • ঠাকুরগাঁওয়ে ওএমএস’র ৬৩০ বস্তা চাল জব্দ, আটক ১

  • নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঠাকুরগাঁওয়ে আসায় ৯০ জন আটক

  • করোনা উপসর্গ নিয়ে আরও ৯ জনের মৃত্যু

  • ২৪ ঘন্টা সেবা দিতে প্রস্তুত ৬৪টি বেসরকারি হাসপাতাল

  • করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি ৮৮ হাজার ৫৬৭; আক্রান্ত প্রায় ১৫ লাখ

  • দেশে করোনায় ২৪ ঘন্টায় প্রাণহানি ১, নতুন করে শনাক্ত ১১২: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • কুমিল্লার বুড়িচংয়ে ২ শিশু করোনায় আক্রান্ত: সিভিল সার্জন

  • খুনি মাজেদকে জিজ্ঞাসাবাদের দাবি মোহাম্মদ নাসিমের

ওই রাতের নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন সাংবাদিক আরিফ

ওই রাতের নির্যাতনের বর্ণনা দিলেন সাংবাদিক আরিফ

বাংলা ট্রিবিউনের কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম রিগ্যানের ঘরের দরজা ভেঙে তুলে নিয়ে ১৩ মার্চ মধ্যরাতে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এক বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। সোমবার (১৫ মার্চ) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তুলে নেওয়া ও ভয়াবহ নিগ্রহের বর্ণনা দেন সাংবাদিক আরিফ।

আরিফ বলেন, 'দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকেই আরডিসি নাজিম উদ্দিন আমার মাথায় কিল-ঘুষি মারতে শুরু করেন। বাড়ি থেকেই শুয়োরের বাচ্চা বলে গালিগালাজ শুরু করেন তিনি। এরপর আমাকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে যান।

আমি বারবার বলেছি, 'আমার কী দোষ। আমি তো কোনও অন্যায় করিনি।' তিনি বলেন, 'বড় সাংবাদিক হয়ে গেছিস। তোর সাংবাদিকতা ছোটাবো। ডিসির বিরুদ্ধে লিখিস। এসব বলে আমাকে গাড়িতে ওঠায়। তারপর বলেন, 'এর চোখ বাঁধো। এর দিন শেষ। একে আজই এনকাউন্টারে দেবো।' এই কথা শোনার পর আমি পুরো আপসেট হয়ে ভাবি, সত্যিই তারা আমাকে মেরে ফেলার জন্য নিয়ে যাচ্ছে। এর পর আমি কান্নাকাটি শুরু করি। ক্ষমা চেয়ে বলি, 'বলেন, আমার কী অপরাধ? অপরাধ হয়ে থাকলে ক্ষমা করেন।'

তারপরও যখন শুনছিল না তখন বলেছি, 'আমার দুটি ছেলে সন্তান আছে। একটার বয়স দেড় বছর, একটার বয়স সাত বছর। আমার বাবা-মা বেঁচে নেই। আমি মারা গেলে ওদের কে দেখবে!' তার পরেও তার মনে একটুও দয়া হয়নি। তারপর চোখ বেঁধে আমাকে গাড়িতে করে নিয়ে যায়। চোখের বাঁধন একটু আলগা হলে আমি দেখি আমাকে ধল্লা ব্রিজ পার করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ওখানে বলা হলো, “নে কালেমা পড়ে নে। সময় শেষ।” এ কথা শোনার পর আমি আল্লাহকে ডাকা শুরু করি।. . .’

সেই পৈশাচিক নির্যাতনের বিস্তারিত বর্ণনা ভিডিওতে-

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর