channel 24

সর্বশেষ

  • গৃহহীনদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা করেছে বিশ্বের কয়েকটি সংস্থা ও হোটেল

  • ১১ এপ্রিল পর্যন্ত পোশাক কারখানা বন্ধ রাখার অনুরোধ রুবানা হকের

  • বিএনপির ঐক্যের ডাক জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর পাঁয়তারা: কাদের

  • করোনা: বিশ্বজুড়ে প্রাণহানি ছাড়ালো ৬০ হাজার; আক্রান্ত ১১ লাখের বেশি

  • চাকরি বাঁচাতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ঢাকামুখী হাজার হাজার পোশাক শ্রমিক

  • ময়মনসিংহ ও ঝালকাঠিতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩

  • রাজশাহী চিড়িয়াখানায় চারটি হরিণ খেয়ে ফেলেছে ৫ কুকুর

  • তিনি ঢাকঢোল পিটিয়ে সহায়তা করেননা

  • কক্সবাজারে ভেসে ওঠা সেই ডলফিন মরছে জেলেদের হাতে!

  • করোনায় কে কোথায়?

  • করোনা প্রতিরোধে ৫ লাখ পাউন্ড দান করবে ইসিবির চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটাররা

  • বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবকলীগের দু'পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১

  • করোনার উপসর্গ নিয়ে লহ্মীপুরে দুই শিশুর মৃত্যু, ৯টি বাড়ি লকডাউন

  • করোনা: ৮৭ হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ প্রণোদনার প্রস্তাব বিএনপির

  • জামিন নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ ২ সপ্তাহ বাড়ালেন সুপ্রিম কোর্ট

টাঙ্গাইলে দশ বছরেও শেষ হয়নি বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার প্রকল্প

টাঙ্গাইলে দশ বছরেও শেষ হয়নি বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার প্রকল্প

দীর্ঘ দশ বছরেও শেষ হয়নি টাঙ্গাইলের বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার প্রকল্পের কাজ। তিন দফা প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হলেও বাস্তবায়ন হয়েছে মাত্র ৩০ ভাগ। অভিযোগ উঠেছে সাব ঠিকাদারের মাধ্যমে, অবাধে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করার। যদিও পানি উন্নয়ন বোর্ডের যুক্তি, বালু উত্তোলন ঠেকাতে নিয়মিত অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। আর সাব ঠিকাদারের বিষয়ে মূল ঠিকাদারকে চিঠি দেয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার প্রকল্প। নদীর পানির প্রবাহ বজায় রাখা, দূষণমুক্ত করা এবং সারা বছর নৌ চলাচল অব্যাহত রাখতে ২০১০ সালে হাতে নেয়া হয় প্রকল্পটি।

সাড়ে ১৪ কিলোমিটার নদী খননের কাজ পায় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এশিয়ান ড্রেজিং লিমিটেড। তিন দফায় মেয়াদ বাড়লেও দীর্ঘ দশ বছরে শেষ হয়নি প্রকল্পের কাজ। দফায় দফায় বেড়েছে ব্যয়। যদিও এখন পর্যন্ত শেষ হয়েছে মাত্র ৩০ শতাংশ কাজ।

অভিযোগ রয়েছে, স্থানীয় প্রভাবশালী সাব ঠিকাদারের মাধ্যমে অবাধে বালু উত্তোলন করে বিক্রি করার। যাতে ব্যবহার করা হচ্ছে শতাধিক নিষিদ্ধ বাংলা ড্রেজার। এতে করে হুমকির মুখে পড়েছেন নদীর পাড়ের মানুষেরা।

টাঙ্গাইলের পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম বলেন, বালু উত্তোলন ঠেকাতে নিয়মিত অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। সাব ঠিকাদার বিষয়ে মূল ঠিকাদারকেও চিঠি দেয়া হয়েছে বলে জানান পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী।

তবে এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কারো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ বছরের জুনে প্রকল্পটি শেষ হবার কথা রয়েছে। আর তিন দফায় প্রকল্পের খরচ দাড়িয়েছে ১ হাজার ১২৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর