channel 24

সর্বশেষ

  • অনাগ্রহ থাকলেও এবার আগাম ভোট দিচ্ছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভুত আমেরিকান নাগরিকরা

  • দেশে করোনায় আরও ১৮ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৩২০

  • চলতি বছর রেমিট্যান্স প্রবাহে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান অষ্টম

  • ৩৩ বছরেও চালু হয়নি বগুড়া বেতার কেন্দ্র

  • ৬শ’র বেশি ধর্ষণ মামলায় জট, বিপাকে ভুক্তভোগিরা

  • চট্টগ্রামে রহস্যজটে মাদ্রাসা শিক্ষকের মৃত্যু

  • মানবদেহে সীসা দূষণের প্রধান উৎস সীসাযুক্ত পেইন্ট

  • সম্মিলিত চেষ্টায় দারিদ্র্য জয় সম্ভব: প্রধানমন্ত্রী

  • বেশি দামে আলু বিক্রির অভিযোগে রাজধানীতে র‍্যাবের অভিযান

  • আগামীকাল থেকে সুন্দরবনে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হচ্ছে

  • বাগান থেকে কাঁথায় মোড়ানো নবজাতক উদ্ধার

  • গ্রাম্য সালিশে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা

  • তুরস্ক ও গ্রিসে শক্তিশালী ভূমিকম্পে প্রাণহানি বেড়ে ২৬

  • ফ্রান্সে মহানবীকে অবমাননা: ইতালিতে বাংলাদেশিদের বিক্ষোভ

  • পরের ৩ ম্যাচে নেইমারকে পাবে না পিএসজি

নাটোর ও নেত্রকোণায় নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপ

নাটোর ও নেত্রকোণায় নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপ

বিভিন্ন জায়গায় নদী উদ্ধারে অভিযান চললেও তেমন তৎপরতা নেই। স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রভাবশালী দখলদারদের না করে পুনর্বাসন ছাড়াই উচ্ছেদ করা হচ্ছে ছিন্নমূল মানুষদের। আর নেত্রকোণায় অদৃশ্য ইশারায় বন্ধ মগড়া নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান।

বিভিন্ন জায়গায় নদী উদ্ধারে অভিযান চললেও নাটোরে তেমন তৎপরতা নেই। স্থানীয়দের অভিযোগ, প্রভাবশালী দখলদারদের না করে পুনর্বাসন ছাড়াই উচ্ছেদ করা হচ্ছে ছিন্নমূল মানুষদের। আর নেত্রকোণায় অদৃশ্য ইশারায় বন্ধ মগড়া নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান।

নাটোরের আত্রাই, বড়াল, নন্দকুজার মতো নদীর তীর দখল করে চলছে 'স' মিল ব্যবসা। বসানো হয়েছে মোবাইল ফোনের টাওয়ারও।

প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযানের আওতায় আসেনি এসব প্রভাবশালীরা। অথচ উচ্ছেদ করা হয়েছে নাটোর শহরের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া নারদ নদী দখল করে বসবাসকারী ছিন্নমূল মানুষদের। শেষ আশ্রয়স্থল হারিয়ে এখন দিশেহারা তারা।

প্রভাবশালীদের উচ্ছেদে অভিযান না চালানোয় শঙ্কা প্রকাশ করেছেন সুশীল সমাজ।

নদী রক্ষা কমিটির সভাপতি রেজাউল করিম রেজা বলেন, যেসব নদী অবৈধভাবে দখল করে রাখা হয়েছে সেগুলোতে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনার মাধ্যমে নদীর স্বাভাবিক গতি প্রবাহ ঠিক রাখা জরুরী।

যদিও স্থানীয় প্রশাসন বলছে, প্রাথমিকভাবে ১৫শ দখলদারের তালিকা তৈরি করে শুরু হয়েছে উচ্ছেদ অভিযান যা চলবে নদী তীর দখলমুক্ত না হওয়া পর্যন্ত।

পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী হাসান বলেন, নদী নালা উদ্ধারে সর্বচ্চো প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহরিয়াজ বলেন, যেসব খাল বিল নদী নালা অবৈধভাবে দখল করা হয়েছে সেসব উদ্ধার করা হবে।

এদিকে, হঠাৎ-ই বন্ধ হয়ে গেছে নেত্রকোণার মগড়া নদীর উচ্ছেদ অভিযান। যদিও এজন্য প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপকে দায়ী করছেন স্থানীয়রা।

আর প্রশাসনের দাবি, উচ্চ আদালতের নির্দেশেই বন্ধ রয়েছে উচ্ছেদ অভিযান। মামলা নিষ্পত্তি হলেই শেষ করা হবে উচ্ছেদ কাজ।

নেত্রকোণা সদরে সহকারী কমিশনার বুলবুল আহমেদ বলেন, আদালতের স্থগিতাদেশ থাকায় কিছু স্থাপনায় অভিযান চালানো যায়নি। তবে আইনানুগভাবে বিষয়টি মোকাবেলা সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

নেত্রকোণা শহরের মগড়া নদীর দুপাড়ে ৩১৬টি অবৈধ স্থাপনা চিহ্নিত করে উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু করেছিলো স্থানীয় প্রশাসন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর