channel 24

সর্বশেষ

  • রিজেন্ট চেয়ারম্যান সাহেদের বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে মামলা

  • মালদ্বীপে বকেয়া বেতনের দাবিতে পুলিশের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষ, ৩৯ বাংলাদেশি আটক

  • পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

  • থমকে যাওয়া সেই নৌপথে আবারও দুরন্ত গতিতে ছুটবে জলযান

  • সাহেদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

  • দু'বছর ধরে লাইসেন্স ছাড়াই লাজ ফার্মার ব্যবসা

  • জাভি হার্নান্দেজই হচ্ছেন বার্সেলোনার কোচ: ক্লাব প্রেসিডেন্ট

  • আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলতে বাধা নেই ম্যান ইউ'র

  • টাকা চাইলেই পাওনাদারদের ওপর নামতো জেকেজির নির্যাতনের খড়গ

  • বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, ১০টি নদ-নদীর পানি বিপৎসীমার উপরে

  • হজ্জ্ব ক্যাম্পে কোয়ারেন্টিন শেষে বাড়ি ফিরলো ৯৬ কুয়েত প্রবাসী

  • সর্দিজ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ৬ জনের মৃত্যু

  • ৭ মার্চকে 'জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস' ঘোষণার প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় সম্মতি

  • লাজ ফার্মায় র‌্যাবের অভিযান

  • সাবরিনার কাছে রিমান্ডে মিলতে পারে ভুয়া করোনা সনদ বাণিজ্যের তথ্য

রংপুরে ফুল চাষে স্বাবলম্বী অনেকে, তবে বাড়ছে না চাষীর সংখ্যা

রংপুরে ফুল চাষে স্বাবলম্বী অনেকে, তবে বাড়ছে না চাষীর সংখ্যা

রংপুরে অনেকে ফুল চাষে স্বাবলম্বী হলেও চাহিদার তুলনায় বাড়ছেনা ফুল চাষীর সংখ্যা। ফলে ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে বাইরের জেলা থেকে ফুল কিনতে হয় বলে জানান বিক্রেতারা। ফুল বিজ্ঞানিরা বলছেন, উর্বর ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা প্রবণ হওয়ায় রংপুরের মাটি ফুল চাষের জন্য উপযোগী। তবে পুজির অভাবে ফুল চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন বলে জানান ফুল চাষীরা। কৃষি মন্ত্রণালয় বলছে, রংপুরে ফুল চাষে কৃষকদের উৎসাহী করতে নানা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন তারা।

চোখ জুড়ানো গ্লাডিওলাসের বাগান কৃষক আব্দুর রশীদের। ফুলগুলো শুধু সৌন্দর্য্য বর্ধন করছেনা প্রতি মাসে এই কৃষকের হাতে এনে দিচ্ছে মোটা অংকের টাকাও।

এরকম গাদা, রজনীগন্ধা, জিপশি, কাগজী ফুল চাষ করেও স্বাবলম্বী এই কৃষক।

ফুল বিক্রি করে বেশি মুনাফা পেলেও পুঁজির অভাবে চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন অনেকে। তারা বলছেন, ফুল চাষে লাভ পেতে অপেক্ষা করতে হয় এক থেকে দেড় বছর। আর ফুলের চাষ কম হওয়ায় রংপুরে চাহিদার সত্তর ভাগ ফুল বাইরের জেলা থেকে আনতে হয় বলে জানান বিক্রেতারা।

বিক্রেতারা বলেন, ফুল লাগালে এক বছর জমিটা পড়ে থাকে। আমরা কোন লাভ পাইনা। শীতকালে ফুল ফোটে কম, তাই আয়ও কম। গ্রীষ্মকালে অনেক ফুল ফোটে।

মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. কবিতা আনজু-মান-আরা বলেন, 'আমরা চাষীদের অনেক প্রশিক্ষণ দিয়ে যাচ্ছি। প্রশিক্ষণের ফলে ইতিমধ্যে দশজন কৃষক ফুল চাষ করে লাভবান হয়েছেন। ভবিষ্যতে আমরা আরও প্রশিক্ষণ দিব।'

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর