channel 24

সর্বশেষ

  • বিদেশ যেতে হলে করোনার সার্টিফিকেট নিতে হবে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • ভুয়া ডাক্তার, নিষিদ্ধ ওষুধ ও লাইসেন্স না থাকায় এসএইচএস হাসপাতাল সিলগালা

  • রিজেন্ট-জেকেজির জালিয়াতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিবৃতি দায়সারা

  • টক-মিষ্টি স্বাদের লটকন

  • এখনো পাওনা এক টাকাও পায়নি ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্রিকেটাররা

  • কক্সবাজার সৈকতে ভাসছে বর্জ্য, মারা গেছে ২০টি কচ্ছপ

  • পাঁচ প্রতিষ্ঠানের করোনা নমুনা পরীক্ষা স্থগিত

  • ৩ বছর বন্ধের পর কক্সবাজারে পুনরায় শুরু হচ্ছে জন্মনিবন্ধন প্রক্রিয়া

  • সাবরিনা-আরিফ দম্পতির রূপকথার জীবনের নানা গল্প

  • খাগড়াছড়িতে সাবেক ছাত্রদল নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

  • চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ছাত্রলীগের দু'গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৭

  • স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি আবুল কালাম আজাদকে শোকজ

  • এরশাদের মৃত্যুবার্ষিকীর দিন উপনির্বাচন পেছাতে ইসিতে জাপা

  • ডা. সাবরিনা জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট থেকে বরখাস্ত

  • জ্বর-সর্দি ও শ্বাসকষ্টে দেশের বিভিন্ন স্থানে ১০ জনের মৃত্যু

ঠিকাদার শাহীনের পরিবর্তে কারাগারে শিক্ষার্থী শাহীন!

ঠিকাদার শাহীনের পরিবর্তে কারাগারে শিক্ষার্থী শাহীন!

আসামির নাম শাহীন আহম্মেদ। কিন্তু মামলার অভিযোগে দেয়া হয়েছে শুধু শাহীন। মিল নেই বাবার নামেও। এতে ঠিকাদার শাহীনের পরিবর্তে রাজশাহীতে কারাভোগ করছেন শিক্ষার্থী শাহীন। তবুও, অভিযোগপত্র থেকে তার নাম বাদ দেয়নি পুলিশ। তারা বলছে, মামলাটির তদন্ত চলছে।

নামের মিল, তাই এক শাহীনের পরিবর্তে কারাভোগ করছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সান্ধ্যকালীন এমবিএ কোর্সের শিক্ষার্থী শাহিনুর রহমান।

গত বছরের (২০১৯ সালের) ১৩ নভেম্বর রাজশাহী রেল ভবনে টেন্ডার নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হন মহানগর যুবলীগের সদস্য সানোয়ার হোসেন রাসেল। ওই ঘটনায় মামলার পর শাহীনসহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শিক্ষার্থী শাহিনের স্বজনদের দাবি, মামলার বাদীপক্ষও বলছে এই শাহীন আসামি নন। পুলিশের তদন্তের ভুলে ঠিকাদার শাহীন আহম্মেদের পরিবর্তে জেল খাটতে হচ্ছে শিক্ষার্থী শাহীনুর রহমানকে।

বিচারের দাবিতে ছাপানো ব্যানার পোস্টারেও পাওয়া গেলো অন্য শাহীনের ছবি। তার বাড়ি শিরোইল কলোনী পশ্চিম পাড়ায় গিয়ে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে তিনি পলাতক। তার স্ত্রী হাবিবা খাতুনের দাবি, প্রকৃত খুনীদের আড়াল করে মামলায় জড়ানো হয়েছে তার স্বামীকে।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক আবু নাসের মো. ওয়াহিদ বলেছেন, একজনের পরিবর্তে আরেকজনকে গ্রেপ্তারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া এবং ভুক্তভোগীকে ক্ষতিপুরণ দেয়া উচিত।

গত ৪ ডিসেম্বর থেকে ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত দুই দফায় প্যারোলে মুক্তি নিয়ে পরীক্ষায় অংশ নেন শাহীনুর রহমান। তবে, জেলে থাকার কারণে অংশ নিতে পারেননি ইন্টার্নশিপে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর