channel 24

সর্বশেষ

  • করোনাভাইরাসে প্রাণ গেছে আরো ১১৪ জনের, মোট ২১১৮

  • জার্মানিতে দুটি শিশা বারে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৮

  • ওয়েস্ট হ্যামকে ২-০ গোলে হারিয়ে ম্যানচেস্টার সিটির জয়

  • ইউরোপা লিগে আজকের খেলা

  • চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচন: আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী যারা

  • দিনাজপুরে গোলাগুলিতে ২ ডাকাত নিহত, আহত ৪ পুলিশ

  • টটেনহ্যামের মাঠে জয় লাইপজিগের

  • ভ্যালেন্সিয়াকে বিধ্বস্ত করলো আটালান্টা

  • কাল শুরু হচ্ছে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

  • ফের স্বর্ণের দাম বাড়ায় হতাশ ক্রেতা-বিক্রেতারা

  • চট্টগ্রাম সিটিতে কাউন্সিলর প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছে আ.লীগ

  • অমর একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপনে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

  • করোনা ভাইরাসে প্রাণহানি কিছুটা বেড়েছে, তবে কমেছে আক্রান্তের হার

  • 'বর্ণবাদের' অভিযোগ তিন সাংবাদিককে বহিষ্কার করলো চীন

  • ডাকঘর সঞ্চয়ের সুদহার পুনঃমূল্যায়নের চিন্তা করছে সরকার: অর্থমন্ত্রী

বিদ্যুৎকেন্দ্রের পাশের গ্রামেই নেই বিদ্যুৎ সুবিধা

বিদ্যুৎকেন্দ্রের পাশের গ্রামেই নেই বিদ্যুৎ সুবিধা

আলোর নীচেই অন্ধকার এ প্রবাদের প্রতিচ্ছবিই যেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সোনারামপুর গ্রাম। দেশের বৃহত্তম পাওয়ার স্টেশন আশুগঞ্জ থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার দূরে এ গ্রাম। কিন্তু সেখানে নেই আলোর ঝলকানি। সন্ধ্যার সাথে সাথে গ্রামটি নিমজ্জিত হয় অন্ধকারে। চোর-ডাকাতের ভয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রাত কাটে চরবাসীর।

মেঘনার বুক চিরে জেগে ওঠা ছোট্ট গ্রাম সোনারামপুর। দৈর্ঘ্য ২ কিলোমিটার আর প্রস্থে আধা কিলোমিটার। বসবাস ৬ হাজার মানুষের।

দেশের বৃহত্তম আশুগঞ্জ পাওয়ার স্টেশন থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার দূরে অবস্থান এ চরের। কিন্তু এতো কাছেও পৌঁছায়নি বিদ্যুতের আলো। যাতে চরম ভোগান্তিতে জেলে নির্ভর এ গ্রামের বাসিন্দারা।

এলাকাবাসী জানান, 'কারেন্টের মধ্যে থেকে আমরা কারেন্ট পাই না এই একটা আমাদের দুঃখ। এই কারেন্টের জন্য আমরা বহু জায়গায় ঘুরছি কিন্তু কোন জায়গায় সারা পাচ্ছি না। বিদ্যু উৎপাদন হয় এখানে অথচ আমাদের গ্রামে নেই। আমরা চাই আমাদের ঘরে ঘরে বিদুৎ আসুক যাতে বাচ্চাদের পড়ালেখার জন্য উপকারি হয়।'

সৌস বিদ্যুতে কিছুটা চাহিদা পূরণ করছেন কেউ কেউ। যদিও জনপ্রতিনিধির আশ্বাসের কার্পন্য নেই এতটুকুও।

আশুগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান হানিফ মুন্সি বলেন, এলাকার প্রতিনিধি হিসেবে পরিকল্পনা, চেষ্টা করে যাচ্ছি অতি দ্রুত যাতে পিডিবির বিদুৎ এখানে পৌঁছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামসুজ্জামান জানান, চরের অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া যাচ্ছে না। এখানেও সেই পুরনো আশ্বাস।

এ চরবাসীর প্রতিটি রাত কাটে চোর-ডাকাতের ভয়ে। তাই দ্রুত বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হতে চান তারা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর