channel 24

সর্বশেষ

  • ল্যান্ডিং পারমিশনের জন্য শুরু হয়নি বিমানের আসন বরাদ্দ

  • ড্রাগন ফলের 'ভি কাট কলম' পদ্ধতি

  • মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেলেন ভিপি নুর

  • দ্বিতীয় দিনেও দলগত অনুশীলনে ১৬ ক্রিকেটার

  • ভিপি নুর আটক

  • মেয়ের জামাইসহ ২৭ আত্মীয়কে চাকরি দিয়েছেন গাড়ি চালক মালেক!

  • সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিট নিয়ে জটিলতা, প্রবাসীদের সড়ক অবরোধ

  • নারায়নগঞ্জে বিস্ফোরণ: ৬ দফা দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বরাবর স্মারকলিপি

  • নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: তিতাসের ৮ কর্মকর্তার জামিন মঞ্জুর

  • চট্টগ্রামে চুরির অপবাদ দিয়ে দোকানের কর্মচারীকে পিটিয়ে হত্যা

  • কেউ খুন করেনি শামসুলকে! সব আসামি খালাস

  • কুমিল্লায় মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে মা-মেয়ের মৃত্যু

  • পেঁয়াজের পুষ্টিগুণ

  • 'শেখ মুজিব, একটি জাতির পিতা' বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

  • কোটিপতি গাড়িচালক মালেকের বাড়িজুড়ে আভিজাত্যের ছাপ

সুনামগঞ্জে শিশু তুহিন হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সুনামগঞ্জে শিশু তুহিন হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সুনামগঞ্জে নৃশংস কায়দায় পাঁচ বছরের শিশু তুহিন মিয়া হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়েছে।

সোমবার সুনামগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ মো. ওয়াহিদুজ্জাদান শিকদারের আদালতে সাক্ষ্য দেন মামলার বাদী তুহিনের মা মনিরা বেগম, কেজাউড়া গ্রামের বাসিন্দা অভিজিৎ তালুকদার, শাহজাহান মিয়া, মওলানা নুর উদ্দিন ও হারুন মিয়া। অন্য আসামিরা ১৫ জানুয়ারি সাক্ষ্য দেবেন।

এর আগে ৭ জানুয়ারি আদালতে তুহিনের বাবা ও তিন চাচার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে এই মামলার বিচার শুরু হয়। একই মামলায় তুহিনের চাচাতো ভাই সাহারুল ইসলাম ওরফে শাহরিয়ারে বিচার হচ্ছে শিশু আদালতে।

আদালতে তুহিনের মা মনিরা বেগম বলেন, ১৩ অক্টোবর রাতে তুহিন তার বাবা আবদুল বাছিরের সঙ্গে একই খাটে ঘুমিয়ে ছিল। তিনি ছিলেন পাশের কক্ষে। গভীর রাতে তুহিনের চাচাতো বোন তাদের ঘুম থেকে ডেকে তুলে জানায় ঘরের দরজা খোলা। তখন তিনি দেখেন তুহিনের বাবার পাশে তুহিন নেই। পরে সকালে জানতে পারেন তুহিনকে কে বা কারা হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রেখেছে। কে বা কারা তুহিনকে হত্যার করেছে তিনি জানেন না।

গত ১৪ অক্টোবর সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার কেজাউরা গ্রামে এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। সকালে বাড়ির পাশের একটি গাছের ঢালে ঝুলন্ত অবস্থায় তুহিনের রক্তাক্ত লাশ পাওয়া যায়। তুহিনের গলা, দুই কান ও যৌনাঙ্গ কাটা ছিল। পেঠে বিদ্ধ ছিল দুটি ছুরি। এ ঘটনায় তুহিনের মা মনিরা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন। এই মালায় পুলিশ তুহিনের বাবা আবদুল বাছির, চাচা নাসির উদ্দিন, আবদুল মছব্বির ও জমসেদ আলী এবং চাচাতো ভাই সাহারুল ইসলামকে  গ্রপ্তার করে। এর মধ্যে নাসির ও সাহারুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। পুলিশ তুহিন হত্যা মামলায় গত ৩০ ডিসেম্বর এই পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ পত্র দেয়। এরপর আদালতে অভিযোগ গঠন হয় ৭ জানুয়ারি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর