channel 24

সর্বশেষ

  • বিড়াল উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস!

  • মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে সুপ্রিমকোর্টে ক্ষণ গণনার ঘড়ি উদ্বোধন

  • করোনা ভাইরাস: শাহজালাল বিমানবন্দরে বসানো হয়েছে স্ক্যানিং মেশিন

  • শেষ হল নারী ফুটবল লিগের দলবদল

  • নড়াইলে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী ষাঁড়ের লড়াই

  • মৌলভীবাজার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে তিনদিন ধরে সার্ভারে সমস্যা

  • এক নারীকে নির্যাতনের পর পিকআপ থেকে ফেলে দেয়ার অভিযোগ

  • মিথ্যা ঘোষণায় আনা ১ কন্টেইনার সিগারেট জব্দ

  • বাংলাদেশকে অন্ধকার থেকে আলোতে এনেছে আ.লীগ: পরিকল্পনামন্ত্রী

  • কলেজছাত্রী হত্যা মামলায় প্রভাষকের মৃত্যুদণ্ড, এডভোকেটের যাবজ্জীবন

  • তেঁতুলিয়ায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ১, আহত অর্ধশতাধিক

  • হামলা-মামলার বিষয়ে কূটনীতিকদের অবহিত করলো বিএনপি

  • নিখুঁতভাবে কৃষিকাজ করছে রোবট

  • ইলিশের পুষ্টিগুণ, ডিমছাড়া নাকি ডিমওয়ালা ইলিশটি বেশি স্বাদের?

  • মাছকে খাবার দিবে যন্ত্র! দেশেও শুরু হয়েছে এই প্রযুক্তি

বিপাকে নাটোরের চলন বিল ও হালতি বিলের কৃষকরা

বিপাকে নাটোরের চলন বিল ও হালতি বিলের কৃষকরা

সোতি জাল বিড়ম্বনায় নাটোরের চলন বিল ও হালতি বিলের কৃষকরা। জলাবদ্ধতায় চাষ করা যাচ্ছে না প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমি। অনিশ্চয়তায় বোরো আবাদ। সমস্যা সমাধানে দ্রুত পদক্ষেপের দাবি স্থানীয়দের। যদিও প্রশাসনের পক্ষ থেকে শোনানো হচ্ছে আশার বাণী।

উত্তরাঞ্চলের শষ্য ভান্ডার খ্যাত নাটোরের চলন বিল ও হালতিবিলে এখন অথৈ পানি। বোরো মৌসুমের এ সময়ে সোতি জাল দিয়ে প্রভাবশালীরা জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করায় পানি আটকে রয়েছে।

প্রভাবশালীদের মাছ ধরার মহোৎসবে মহাবিপদে পড়েছেন কৃষকরা। সময় পেরিয়ে গেলেও চাষীরা তৈরি করতে পারছেন না বোরো বীজতলা। বছরের একমাত্র ফসল আবাদ নিয়ে দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

স্থানীয়রা বলেন, প্রশাসনের লোকজন ভেঙ্গে দিয়ে আসলেও রাতারাতি আবার ওখানে সোতিগুলো দিয়ে ফেলে। পানি নেমে যাবার জায়গায় বিশাল বড় একটা বাঁধার সৃষ্টি করে রেখেছে। কবে বিজতোলা তুলবো কবে লাগাবো জানি না। আবার দেরিতে ধান হলে বন্যার পানিতে ধান নষ্ট হবার সম্ভাবনা আছে। আমরা সরকারে দ্রুত দৃষ্টি আকর্ষন করছি যেন অল সময়ের ভিতর আমাদের এই সংস্কার করে দেয়।

বোরো আবাদ নিয়ে সংশয়ে খোদ কৃষি বিভাগও। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নিলেও কাজ হয়নি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুব্রত কুমার সরকার বলেন, যদি অপসারণ করতে দেরি হয় তবে, সেখানে পানি নামার পরিমাণ কমে যাবে এবং বিলের তলাতে বেশ কিছ্য হেক্টর জমিতে বোরো চাষ বিলম্বিত হওয়ার এবং বাধাগ্রস্থ হবার সম্ভাবনা আছে।

জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নাজমুল আলম বলেন, জেলাপ্রশাসনের এই অভিযান চলছে এবং চলবে। আমরা আশা করছি যে অতি শীঘ্রই আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে নাটোর জেলাতে যত সুতি জাল আছে আমরা অপসারণ করতে সক্ষম হব।

স্থানীয়রা মনে করেন, সমস্যা সমাধানে প্রশাসনের পদক্ষেপের পাশাপাশি দরকার রাজনৈতিক সদিচ্ছাও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর