channel 24

সর্বশেষ

  • সার্জিক্যাল মাস্ক উৎপাদন ও বাজারজাত করছে মিনিস্টার

  • ঈদের পর অনূর্ধ্ব ১৯ ক্রিকেট দলের বাছাই

  • যে ভাবে খুন হন পাঠাও'র সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ

  • ২১ নভেম্বর শুরু ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ

  • করোনায় সাবেক নৌপ্রধানের মৃত্যু

  • গভর্নর পদে ফজলে কবিরের মেয়াদ বাড়ল আরও ২ বছর

  • দল বদলায়, বদলায় সরকার; কিন্তু সাহেদ-রা থাকে ক্ষমতার বলয়ে

  • সরকারি বরিশাল কলেজের নাম পরিবর্তন, পক্ষে-বিপক্ষে গণস্বাক্ষর

  • শূন্য হাতে এসে বনে যান জাদুর শহরের বনেদি ক্লাবের সদস্য

  • ঈদে গণপরিবহন বন্ধ থাকার খবর নিয়ে বিভ্রান্তি; সিদ্ধান্ত কাল: কাদের

  • সাহেদের হাতে প্রতারিত অনেকের র‍্যাব সদরদপ্তরে ভিড়

  • আশুলিয়ায় করোনা জয়ী পুলিশ সদস্যদের সংবর্ধনা

  • চট্টগ্রাম বন্দরের কেমিক্যাল শেডে আগুন

  • মেঘনার ভাঙনে দিশেহারা নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুরের লাখো মানুষ

  • ঢাকা মেডিকেলে স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে ডিবি কার্যালয়ে সাহেদ

নির্মাণের ১৩ বছরেও পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরু হয়নি ফেনী ট্রমা সেন্টারে

নির্মাণের ১৩ বছরেও পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম শুরু হয়নি ফেনী ট্রমা সেন্টারে

দুর্ঘটনায় আহত রোগীদের দ্রুত সেবা দেয়ার জন্য ফেনীতে নির্মাণ করা হয় ট্রমা সেন্টার। সেই ট্রমা সেন্টারে নেই পানি, বিদ্যুৎ, গ্যাস ও জনবল। ফেনীতে নির্মাণের ১৩ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয়নি সেন্টারটি। এমনকি গেল ১০ মাস ধরে বেতন-ভাতা বন্ধ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের।

ফেনীর ২০ শয্যা বিশিষ্ট ট্রমা সেন্টার। বিদ্যৎ, পানি ও গ্যাসের মত জরুরি সুযোগ সুবিধা ছাড়াই চলছে এটি। ট্রমা সেন্টারটির অবস্থান ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক এবং ফেনী-নোয়াখালী, ফেনী-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক সড়কের সংযোগস্থল মহিপালে। তবে নির্মাণের ১৩ বছরেও পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয়নি সেন্টারটি। অথচ এটি গড়ে তোলা হয় দুর্ঘটনা কবলিত রোগীদের দ্রুত সেবা দেয়ার জন্য।

ইউটিলিটি সুবিধা না থাকায় অব্যবহৃত দামি সব যন্ত্রপাতি। ২২টি পদের বিপরীতে কাজ করছেন ৯ জন। তারাও বেতন পাচ্ছেন না ১০ মাস ধরে।

ফেনী ট্রমা সেন্টারের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. কাজী সানজিদা আক্তার জানান, কোন রুগী আসলে এক্সরে এবং অপারেশন থিয়েটারের অভাবে চিকিৎসা দেয়া যায় না। তাই প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়।  

জেলা সিভিল সার্জন  ডা. মো. নিয়াতুজজামান জানান, প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ না পাওয়ায় চিকিৎসকদের নিয়মিত বেতন দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। বকেয়া বিল পরিশোধ না করায় বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগ বিছিন্ন করা হয়েছে।

২ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয় ট্রমা সেন্টারটি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর