channel 24

সর্বশেষ

  • চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি এম এ সালাম...

  • সাধারণ সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান

  • এসএ গেমস: ভারোত্তোলনে মাবিয়া আক্তার, জিয়ারুল ইসলাম...

  • ফেন্সিংয়ে ফাতেমা মুজিব স্বর্ণ জিতেছেন; বাংলাদেশের স্বর্ণ ৭

  • কারো নির্দেশে নয়, হস্তক্ষেপমুক্ত বিচার বিভাগ চাই: বিচারপতি নুরুজ্জামান

  • রাষ্ট্রের তিনটি বিভাগের মধ্যে সমন্বয় থাকা প্রয়োজন...

  • একের কাজে অন্যের হস্তক্ষেপ ন্যায়বিচার বাধাগ্রস্ত করে: প্রধানমন্ত্রী

  • খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে নাটক করছে সরকার: ফখরুল...

  • মুক্তি দাবিতে রাজধানীসহ দেশের সব জেলায় বিক্ষোভ কাল

  • স্টামফোর্ডের শিক্ষার্থী রুম্পাকে ধর্ষণ ও হত্যার বিচার দাবিতে...

  • ধানমন্ডি ও সিদ্ধেশ্বরীতে সহপাঠীদের মানববন্ধন

  • অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুতি ও ছাঁটাইয়ের অভিযোগে...

  • এসএ টিভির কার্যালয়ে তালা দিয়েছেন আন্দোলনরত সাংবাদিকরা

  • এসএ গেমস: ভারোত্তোলন: ৭৬ কেজিতে স্বর্ণ জিতেছেন মাবিয়া আক্তার...

  • আসরে এটি বাংলাদেশের পঞ্চম স্বর্ণ...

  • ৮১ কেজি ওজন শ্রেণিতে রৌপ্য জিতেছেন জোহরা খাতুন...

  • ক্রিকেট: নেপালকে ৪৪ রানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ...

  • স্কোর: বাংলাদেশ ১৫৫/৬ (নাজমুল হোসেন ৭৫*) নেপাল ১১১/৯

'কৃষকের অ্যাপ' সম্পর্কে কৃষকরা কতটুকু জানেন?

'কৃষকের অ্যাপ' সম্পর্কে কৃষকরা কতটুকু জানেন?

এবার সরকারিভাবে ধান, চাল আর গম কেনা হবে 'কৃষকের অ্যাপ' নামে একটি সফটওয়ারের মাধ্যমে। যাতে ঘরে বসেই পণ্যের বিক্রি ও মূল্য বুঝে নেবেন চাষীরা। কিন্তু এই সেবাগ্রহণে কতটা প্রস্তুত দেশের কৃষকরা; অ্যাপস সম্পর্কেই বা কতটুকু জানেন? এ নিয়ে প্রশ্ন রয়েই গেছে।

বিজ্ঞাপনের মতো এই দালাল আর ফড়িয়াদের হাত থেকে কৃষকদের বাঁচাতেই 'কৃষকের অ্যাপ'। এবারই প্রথম ধান, চাল আর গম কিনতে ডিজিটাল এই পদ্ধতি চালু করেছে সরকার।

গুগলের প্লে স্টোর থেকে প্রথমে নামাতে হবে অ্যাপসটি। পরে জাতীয় পরিচয় পত্র, কৃষি কার্ডের নম্বর ও মোবাইল নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। মালিকানা হিসেবে কৃষকের কাছে সংরক্ষিত থাকবে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড।

সরকার শস্য কেনা শুরু করলে, এই অ্যাপসের মাধ্যমে খাদ্য বিভাগের কাছে আবেদন করতে পারবেন কৃষক। এরপর বরাদ্দকৃত ধান বিক্রি হলে মূল্য প্রাপ্তির বার্তা সরাসরি চলে যাবে কৃষকের মোবাইলে। এই পদ্ধতিকে সাধুবাদ জানালেও নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে চাষীদের মনে।

কৃষকরা বলেন, 'ইন্টারনেটের ব্যবহার আমরা কিছুই বুঝিনা। আমাদের যদি এসে শিখানো হয়, তাহলে আমরা ব্যবহার করতে পারবো।'

পাইলট প্রকল্পের আওতায় ৮টি বিভাগের ১৬টি উপজেলায় এই পদ্ধতিতে ধান সংগ্রহ করার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উপ পরিচালক আবুল কাশেম আযাদ বলেন, এই পদ্ধতির সুফল অনেক। তবে বাস্তবায়নে প্রতিবদ্ধকতাও কম নয়। অসংখ্য চাষী আছে। এদের মধ্যে মাছাই করে নির্দিষ্ট সংখ্যককে তালিকায় আনা এটা আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।

এই অ্যাপস ব্যবহারে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে ব্যাপক প্রচারণা শুরু করেছে খাদ্য বিভাগ।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের দাবি, এই পদ্ধতি বাস্তবায়ন হলে দুর্নীতি বন্ধের পাশাপাশি ধানের ন্যায্য দাম পাবেন কৃষক।

তিনি বলেন, 'এর ফলে মধ্যসত্ত্বভোগীরা সুবিধা নিতে পারবে না। যার ধান, তার একাউন্টে সরাসরি টাকা ঢুকে যাবে।'

খাদ্য বিভাগ জানিয়েছে, 'কৃষকের অ্যাপ' এ নিবন্ধনের শেষ সময় ৭ ডিসেম্বর। আর ধান বিক্রির আবেদন করা যাবে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর