channel 24

সর্বশেষ

  • রিজেন্ট হাসপাতাল ও জেকেজি সম্পর্কে জানা ছিল না: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

  • রিজেন্ট চেয়ারম্যান সাহেদের পাসপোর্ট জব্দ

  • লাভের আশায় গরু পালন করে দাম নিয়ে দুশ্চিন্তায় খামারীরা

  • আগামী মাসে মাঠে গড়াচ্ছে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ

  • আবারও মনোবিদ আজহার আলীর ওপর আস্থা বিসিবির

  • আগস্টের প্রথম সপ্তাহ থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফুটবল দলের আবাসিক ক্যাম্প

  • সাউদাম্পটন টেস্টে ৯৯ রানে পিছিয়ে ইংল্যান্ড

  • বিএফডিসিতে অসহায় শিল্পীদের সহায়তা করলেন অনন্ত-বর্ষা

  • সিলেটে বিষ খাইয়ে হত্যাচেষ্টা, মা-ছেলে কারাগারে

  • কুমিল্লায় ব্যবসায়ী আকতার হত্যার ঘটনায় মামলা

  • সাংবিধানিক কারণেই করোনার মধ্যে উপনির্বাচন: সিইসি

  • বানের জলে ডুবছে লোকালয়; সুরমা উপচে তলিয়েছে সুনামগঞ্জ শহর

  • এখনও অধরা রিজেন্ট কাণ্ডের নাটের গুরু সাহেদ

  • সাংবাদিকদের মাঝে করোনাকালীন সহায়তার চেক বিতরণ

  • অনলাইন থেকে গরু কিনলেন তিন মন্ত্রী

নেশার পথ ছেড়ে মাদকবিরোধী আন্দোলনে মাসুম

নেশার পথ ছেড়ে মাদকবিরোধী আন্দোলনে মাসুম

নেশার পথ ছেড়ে মাদকবিরোধী আন্দোলনে পাবনার ঈশ্বরদীর মাসুম পারভেজ কল্লোল। তার কারণে মাদক ছেড়ে সুন্দর স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন অনেকে। এলাকায় কমেছে নেশার ভয়াবহতাও। মাসুমকে অনুসরণ করে মাদকবিরোধী আন্দোলনে সামিল হচ্ছেন অনেক যুবক।

পারভেজ কল্লোল এক সময় বুঁদ হয়ে থাকতেন মরণ নেশায়। দুর্বিষহ করে তুলেছিলেন পরিবারের সদস্যদের জীবন।  

সচ্ছল পরিবারের সন্তান মাসুম স্কুল জীবনে খেলাপড়ায় ভালো ছিলেন। করতেন সংগীত চর্চাও। কিন্তু ১৯৯৪ সালে হঠাৎ-ই ঘটে ছন্দপতন। জড়িয়ে পড়েন মাদকের নেশায়।

পারভেজ কল্লোল জানান, একদম শখের বশে বন্ধুদের সাথে মাধক গ্রহন করেছি। কিন্তু তার অবস্থা সত্যিই ভয়াবহ। তারপর অনেকবার ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করি।
 
সুমতি ফেরে ২০০২ সালে মাদকাসক্ত এক বন্ধুর মৃত্যু দেখে। বেরিয়ে আসেন অন্ধকার জগত থেকে। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নিজেই শুরু করেন মাদকবিরোধী প্রচারণা। গড়ে তোলেন `মাদককে না বলি' নামের একটি সংগঠনও। তার অনুপ্রেরণায় মাদক ছেড়েছেন অনেকেই।
 
পারভেজ বলেন, শিলু আমার খুব কাছের বন্ধু ছিল। ও মাদক সেবন করতো। শিলুর মৃত্যু আমাকে খুব নাড়া দিয়েছে। সেখান থেকে এই চেতনাটা আসে, আর না।

মাসুমের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বলছেন, তার প্রচারণায় মাদকের ভয়াবহতা অনেকখানি কমেছে ঈশ্বরদীতে। এলাকায় এখন আর আগের মতো নেশাগ্রস্থ কাউকে দেখা যাচ্ছে না।

এলাকাবাসী বলছেন, মাদকবিরোধী প্রচারণায় নেশা ছেড়ে এখন পর্যন্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর