channel 24

সর্বশেষ

  • করোনা চিকিৎসায় হাইড্রোক্সি-ক্লোরোকুইন বন্ধের পরামর্শ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

  • করোনা যুদ্ধে নিকরোনা যুদ্ধে নিজেদের জয়ী বলে দাবি ট্রাম্পেরজেদের জয়ী বলে দাবি ট্রাম্পের

  • ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে ঘানার প্রেসিডেন্ট

  • করোনায় বিশ্বে একদিনে সর্বোচ্চ ২ লাখ ১২ হাজারের বেশি আক্রান্ত

  • সাবেক অর্থমন্ত্রী ওয়াহিদুল হকের মৃত্যু

  • বাসা ভাড়া ও পানির দাম বৃদ্ধি এবং রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল বন্ধের প্রতিবাদ

  • বাংলাদেশ-আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচের ভেন্যু সিলেট

  • মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার গুঞ্জন জোরালো হচ্ছে

  • এক মাসের মধ্যে ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরানোর পরিকল্পনা বিসিবির

  • ঢাবির গবেষণা ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উন্নয়নে সহায়তা করবে অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন: এ কে আজাদ

  • দ্বিতীয় দফা পরীক্ষাতেও করোনা পজিটিভ মাশরাফীর

  • ভুতুড়ে বিদ্যুৎবিল কাণ্ডে ডিপিডিসির ৪ প্রকৌশলী বরখাস্ত; ৩৬ জনকে শোকজ

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

  • বগুড়া-১ ও যশোর-৬ আসনে উপনির্বাচন ১৪ জুলাই

  • চট্টগ্রামে গৃহকর্মীর মরদেহ উদ্ধার, ভবন মালিকসহ আটক ২

ঠাঁকুরগাওয়ে ভূমি রেজিস্ট্রেশনে বাড়ছে ভোগান্তি

ঠাঁকুরগাওয়ে ভূমি রেজিস্ট্রেশনে বাড়ছে ভোগান্তি

ভূমিদস্যুদের দৌরাত্ম আর যুগোপযোগী নীতি না থাকায় ভূমি রেজিস্ট্রেশনে ভোগান্তি বাড়ছে ঠাঁকুরগাওয়ে। আংশিক খাজনা পরিশোধ করে রেকর্ডের ফটোকপি দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে নিচ্ছে জমি। ফলে এক জমি বিক্রি হচ্ছে বহুবার। এতে দিনে দিনে বাড়ছে মামলা জটও। বিশ্লেষকরা বলছেন, পারিবারিক সম্পত্তি বণ্টনের পর জমি হস্তান্তর করলে সমস্যার সমাধান হবে।

সিএস খতিয়ানে প্রাপ্য অংশের উল্লেখ থাকলেও এসএ খতিয়ানে আছে শুধু মালিকদের নাম। আর এই সুযোগকেই কাজে লাগাচ্ছে কিছু অসাধু লোক। ওয়ারিশদের কাছ থেকে নামমাত্র মূল্যে জমি কিনে তা দিয়ে সংকট সৃষ্টি করছেন তারা।

ঠাঁকুরগাওয়ে জেলা রেজিস্ট্রার মো: আবু তালেব সরকার বলেন, জমির কাগজ এবং খাজনা পরিশোধ থাকলে হস্তান্তর করা হয়, বাস্তবে জমি দেখা সম্ভব না। ওয়ারিশ বেশি হলে সম্পত্তি বণ্টন করে হস্তান্তর করলে তা জাল করার সুযোগ থাকবে না বলে জানান ঠাঁকুরগাওয়ে জেলা রেজিস্ট্রার মো: আবু তালেব সরকার।

রাজস্ব কর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলাম বলেন, আইনের ধারা এমনভাবে পরিবর্তন দরকার যাতে জনগণ কাঙ্ক্ষিত সেবাটি কোন ধরণের বাধা ছাড়াই পেতে পারেন। খতিয়ানের ধারাবাহিকতায় ত্রুটি এবং প্রচলিত আইনের ধারা পুরোনো হওয়ায় সেবা প্রদানে সমস্যা হচ্ছে। সমসাময়িক বিষয়গুলো মাথায় রেখে আইনের ধারা পরিবর্তন দরকার। এছাড়া সেবাদানের ৩ প্রতিষ্ঠানকে এক ছাতার নিচে আনা গেলে সংকট অনেকটাই কমে যাবে বলে মনে করেন রাজস্ব কর্মকর্তা মো: আমিনুল ইসলাম।

ঠাকুরগাঁও জজ কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী মো: মহসিন আলী বলেন, পারিবারিক বণ্টননামা বাধ্যতামূলক হলে জালিয়াতি কমে আসবে।  

আইনের যথেষ্ট প্রয়োগের মাধ্যমে অপরাধীদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত ও ভূমি সেবাকে সহজ করতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহবান সাধারণ মানুষের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর