channel 24

সর্বশেষ

  • দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যেও সুসম্পর্কের প্রতিফলন দেখতে চায় রাশিয়া

  • ডিজিটাল আইনের অপব্যবহার হওয়া উচিত নয়: মন্ত্রী

  • বাংলাদেশকে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১৫টি ঘোড়া উপহার ভারতের

  • হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিন আবেদনের শুনানি শুরু

  • একদিনে করোনায় ৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩০৬

  • চাল উৎপাদন বাড়লেও কমছে কৃষকের লাভের ভাগ

  • লন্ডনে বসে ষড়যন্ত্র করলে ব্রিটিশ আইনে তদন্তের সুযোগ রয়েছে: ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত

  • হাসপাতালে ‌চার মাসের শিশুপুত্রকে ফে‌লে পালিয়ে গেলেন মা

  • একাদশ জাতীয় সংসদের ১৫তম অধিবেশন ১৪ নভেম্বর

  • কোচিং সেন্টার বন্ধের ঘোষণা দিলেন শিক্ষামন্ত্রী

  • ৩০ দিনের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ: শিক্ষামন্ত্রী

  • টি-টোয়েন্টির অলরাউন্ডার র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে সাকিব

  • সিরাজগঞ্জে পুলিশ-যুবদল সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

  • ময়মনসিংহে ডিআইজি পরিচয়ে প্রতারণা, আটক এক

  • ৬০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি দিচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

বেদখল হয়ে যাচ্ছে ঝিনাইদহের গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্পের স্থাপনাগুলো

বেদখল হয়ে যাচ্ছে ঝিনাইদহের গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্পের স্থাপনাগুলো

তদারকি আর মেরামতের অভাবে দিন দিন বেদখল হয়ে যাচ্ছে ঝিনাইদহের গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্পের স্থাপনাগুলো।

লুটপাট হয়ে যাচ্ছে কোটি কোটি টাকার মালামাল। ফলে কার্যকারিতা হারাচ্ছে প্রকল্পটি। পানি পাচ্ছেন না কৃষকরা। যদিও লোকবল সংকটের দোহাই পানি উন্নয়ন বোর্ডের। এ চিত্রই বলে দিচ্ছে কতটা অবহেলায় আছে এক সময়ে ঝিনাইদহবাসীর স্বপ্নের গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ প্রকল্প। ১৯৫৪ সালে সেচ সুবিধা ও বন্যা নিয়ন্ত্রণসহ নানা উদ্দেশ্যে প্রকল্পটি হাতে নেয় ওয়াবদা।

১৯৬২ সালে এ প্রকল্পে প্রথম সেচ দিয়ে চাষ হয়। ১৯৭০ ও ১৯৮২ সালে দুদফায় প্রায় ৭৩ কোটি ৮৯ লাখ টাকায় প্রকল্পের বাস্তবায়ন শেষ হয়। পরের বছর নির্মাণ শুরু হয় অফিস, বাসা- বাড়ি, সড়কসহ বহু স্থাপনা।

তবে কিছুদিন ভাল চললেও তদারকির অভাবে বিলীন হয়ে যাচ্ছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ। প্রাণ হারাচ্ছে দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্পটি। এতে পানি না পেয়ে চরম দুর্ভোগে কৃষকরা। বিষয়গুলো পানি উন্নয়ন বোর্ডের নজরে দিলে দোহাই দেন লোকবল সংকটের।

ঝিনাইদহের সদর হরিণাকুন্ড ও শৈলকূপা উপজেলার ৩৩ হাজার ৮শ' ৯৯ হেক্টর আবাদী জমি রয়েছে এ প্রকল্পের আওতায়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

দেশ 24 খবর