channel 24

সর্বশেষ

  • পাবনায় বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

  • একই দিনে পালিত হল তিন ধর্মের ধর্মীয় উৎসব

  • সহিংসতার আশঙ্কায় ভারতে স্থগিত ‘বাংলাদেশ ফিল্ম ফেস্টিভেল’

  • বাংলাদেশের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করলেন সাংবাদিকরা

  • বাড়িতে মাদকের আসর, স্ত্রীর অভিযোগে স্বামীসহ আটক ২

  • আসামিকে ফেসবুক লাইভে জিজ্ঞাসাবাদ, ওসি প্রত্যাহার

  • মালদ্বীপ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

  • ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১২ জন হাসপাতালে

  • সরকার অরাজকতা সৃষ্টি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিচ্ছে: ফখরুল

  • তিস্তা ব্যারেজে রেকর্ড পরিমাণ পানি ছাড়লো ভারত

  • কেরানীগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার ম র দে হ উদ্ধার

  • কুমিল্লা ঘটনার মূল অভিযুক্ত সীমান্তে ঘোরাঘুরি করছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • বাংলাদেশকে হারাতে পাপুয়া নিউগিনির অনুপ্রেরণা স্কটল্যান্ড

  • ট্রাকের সঙ্গে ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নি হ ত ২

  • থানায় ছাত্রলীগ নেতার আ ত্ম হ ত্যা র চেষ্টা!

খাগড়াছড়িতে জীর্ণদশায় ৮৮টি স্কুল

খাগড়াছড়িতে জীর্ণদশায় ৮৮টি স্কুল

খাগড়াছড়িতে ৮৮টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবকাঠামো জরাজীর্ণ। সংকট আছে শ্রেণিকক্ষ বেঞ্চসহ অন্যান্য সরঞ্জামের। ফলে ১৭ মাস পর স্কুল খুললেও ব্যাহত হচ্ছে পাঠদান। মানা যাচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। 

খাগড়াছড়ি জেলার সর্বশেষ উপজেলা গুইমারা। এই উপজেলার অন্যতম পুরোনো বিদ্যালয় গোয়াইছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি ১৯৬৫ সালের স্থাপিত হলেও দীর্ঘ ৫৫ বছরে এই বিদ্যালয়ে কোনো অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়নি। এ ছাড়া খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার ভাইবোনছড়া এলাকায় লক্ষীমূড়া প্রকল্প সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবস্থাও নাজুক। এলাকাবাসী, শিক্ষক, শিক্ষার্থীর দাবি বিদ্যালয় দুটোতে দ্রুত অবকাঠামো নির্মাণ করে শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করা হোক।

খাগড়াছড়ি সদরের ভাইবোনছড়া এলাকায় লক্ষীমূড়া প্রকল্প সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয় ১৯৮৭ সালে, জাতীয়করণ হয় ২০১১ সালে। এই বিদ্যালয়েরও জরাজীর্ণ অবস্থা, পাঠদান করার মতো কোনো পরিবেশ নেই। একমাত্র পাকা ভবন যেকোনো সময় ধসে পড়তে পারে। দরজা জানালাও নেই। বর্ষায় ভেতরে বৃষ্টির পানি পড়ে। ভবনটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ। 

খাগড়াছড়ি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, রঞ্জন মনি পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাত ভাইয়া পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বগড়াছড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ জেলায় ৮৮টি এ ধরনের জরাজীর্ণ বিদ্যালয় রয়েছে।

খাগড়াছড়ি জেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শহীদুল ইসলাম জানান, তিনি উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের কাছ থেকে জরাজীর্ণ এবং শ্রেণি পাঠদান উপযোগী নয় এমন বিদ্যালয়ের তালিকা চেয়েছেন। তালিকা পেলে তিনি মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন। তিনি আশা করেন মন্ত্রণালয় যাচাইবাছাই করে দ্রুত এই বিদ্যালয়গুলোর নির্মাণকাজ শুরু করা হবে।

এফএইচ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর