channel 24

সর্বশেষ

  • ফরিদপুরে লায়ন্স ক্লাব ও হা-মীম গ্রুপের উদ্যোগে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প

  • হাতে ছ্যাঁকা লাগলে যে কৌশল ঠেকাবে ফোসকা

  • বাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার থাকলে এ কাজগুলো থেকে বিরত থাকুন

  • নাঈম-সাকিবের ব্যাটে ১৫৩ রানের পুঁজি বাংলাদেশের

  • সাদা-কালো ক্যানভাসে নস্ট্যালজিয়া অর্জুন রামপাল

  • ফিফটি দিয়ে বিশ্বকাপ অভিষেক রাঙালেন নাঈম

  • ফেসবুকে ধর্ম অবমাননা: আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি পরিতোষের

  • বুকে ব্যথা হৃদরোগের লক্ষণ নয় তো? করণীয় কী?

  • সম্প্রীতির মিছিলে প্রতিরোধের ডাক

  • ভারী বৃষ্টি ও বন্যায় ৩৪ জনের মৃত্যু

  • শাজাহান খানকে নৌকার বিরোধিতা না করার হুঁশিয়ারি জেলা আ.লীগ সভাপতির

  • আবারও জুটি বাঁধছেন যশ-নুসরাত

  • পাওয়ার প্লেতে বিবর্ণ বাংলাদেশ

  • মৌলভীবাজারে বিশেষ সংহতি সভা অনুষ্ঠিত

  • ভারত-পাকিস্তান সিরিজ আয়োজনে সৌরভ-রমিজ আলোচনা

চট্টগ্রামে ঠাঁইহারা দুই অনাথ শিশু পাচ্ছে কেএসআরএম'র স্নেহের আশ্রয়

চট্টগ্রামে ঠাঁইহারা দুই অনাথ শিশু পাচ্ছে কেএসআরএম'র স্নেহের আশ্রয়

অন্যের হয়ে জেল খাটা মিনু আক্তারের দুই সন্তান ইয়াসিন (১২) ও গোলাপের (৯) পড়ালেখা ও ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিলো দেশের অন্যতম ইস্পাত নির্মাণ শিল্প প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম। বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর প্রতিষ্ঠানের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান রাহাত অনাথ দুই সন্তানের দায়িত্ব নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এমন তথ্য পাওয়া গেছে জেলা প্রশাসন সূত্রে।

কেএসআরএমের মিডিয়া অ্যাডভাইজার মিজানুল ইসলাম বলেন, কোম্পানির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান রাহাতের আগ্রহের কথা ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। মূলত জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী কেএসআরএম করণীয় নির্ধারণ করবে। কেএসআরএম চায় হতভাগ্য মিনু আক্তারের অনাথ দুই সন্তান যেনো সমাজের নিণ্ঠুরতার বলি না হয়। তারা যেনো পৃথিবীর আলো বাতাসে আর দশটা শিশুর মতো হেসে খেলে বড় হতে পারে। পৃথিবী ও জীবনের প্রতি যেনো তাদের বিরূপ মনোভাব সৃষ্টি না হয়।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, মিনু আক্তারের অনাথ দুই সন্তানের সার্বিক দায়িত্ব নিতে চাই শিল্প গ্রুপ কেএসআরএম। ইতিমধ্যে কেএসআরএমের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে একাধিকবার। কেএসআরএমকে আমরা কিছু করণীয় নির্ধারণ করে দিবো। সে অনুযায়ী সন্তান দুটির ভরণপোষণের দায়িত্ব নিবে শিল্প প্রতিষ্ঠানটি। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমরা তাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর রাখবো।

এ প্রসঙ্গে মিনু আক্তারের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ বলেন, কেএসআরএমের এমন উদারতা নিঃসন্দেহে প্রসংশার দাবিদার। এর মাধ্যমে মিনুর দুই এতিম ছেলে বেঁচে থাকার নিরাপদ অবলম্বন খুঁজে পেলো। এর চেয়ে খুশির খবর আর কি হতে পারে? আমরা যতদূর জানি কেএসআরএমের এমন মহানুভব অনেক কাজের দৃষ্টান্ত রয়েছে। যুগ যুগ ধরে তারা এমন অনেক মানবিক কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামীতে তাদের এমন মহানুভুব কর্মতৎপরতা অব্যাহত থাকবে। যা পিছিয়ে পড়া সমাজ ব্যবস্থায় আলোকবর্তিকা হিসেবে কাজ করবে।

প্রসঙ্গত, স্বামী পরিত্যক্ত হতভাগ্য মিনু আক্তার তার তিন সন্তানের ভরণপোষণের আশ্বাসে অন্যের হয়ে কারাগারে যায়। কিন্তু প্রায় তিন বছর অতিবাহিত হলে বিষয়টি জানাজানি হয়। গত ১৬ জুন কারামুক্তির ১৩ দিনের মাথায় রহস্যজনক সড়ক দুর্ঘটনায় জীবন থেকে মুক্তি পান মিনু।

একেএম/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর