channel 24

সর্বশেষ

  • চিঠি পাঠিয়ে তাইওয়ানকে সতর্ক করলেন জিনপিং

  • গ্রামে বেড়ে ওঠার সময়গুলো খুব মিস করি: শফিক তুহিন

  • বাংলা সিনেমায় প্রথম অ্যানিমেশন টিজার প্রকাশ করলো ‘পদ্মাপুরান’

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এবার ৫৮০ মণ্ডপে দুর্গাপূজা

  • পার্বত্য চট্টগ্রামের পথ কুকুর পাচার হচ্ছে মিজোরামে

  • 'নদী বাঁচলে মানুষ বাঁচবে'

  • শিরোপা অক্ষুণ্ন রাখার মিশনে প্রস্তুত টাইগার যুবারা

  • দুর্নীতির মামলায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু

  • সোমবার থেকে লাখ লাখ স্মার্টফোনে বন্ধ হচ্ছে গুগলের সেবা

  • খুলেছে ঢাবি গ্রন্থাগার, কর্তৃপক্ষের নির্দেশ উপেক্ষা চাকরিপ্রার্থীদের

  • সাড়ে ১০ হাজার শ্রমিককে ভিসা দেবে যুক্তরাজ্য

  • নাসিরনগরে পানিতে ডুবে যমজ ভাই-বোনের মৃত্যু

  • এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ, পিছিয়েছে বিএনপি: কাদের

  • বিমানবন্দরে পরীক্ষামূলকভাবে আরটিপিসিয়ার ল্যাব চালু

  • তেলের মিলের পাশে পড়ে ছিলো আনসার কমান্ডারের লাশ

চট্টগ্রামে ঠাঁইহারা দুই অনাথ শিশু পাচ্ছে কেএসআরএম'র স্নেহের আশ্রয়

চট্টগ্রামে ঠাঁইহারা দুই অনাথ শিশু পাচ্ছে কেএসআরএম'র স্নেহের আশ্রয়

অন্যের হয়ে জেল খাটা মিনু আক্তারের দুই সন্তান ইয়াসিন (১২) ও গোলাপের (৯) পড়ালেখা ও ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিলো দেশের অন্যতম ইস্পাত নির্মাণ শিল্প প্রতিষ্ঠান কেএসআরএম। বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর প্রতিষ্ঠানের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান রাহাত অনাথ দুই সন্তানের দায়িত্ব নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। এমন তথ্য পাওয়া গেছে জেলা প্রশাসন সূত্রে।

কেএসআরএমের মিডিয়া অ্যাডভাইজার মিজানুল ইসলাম বলেন, কোম্পানির উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক শাহরিয়ার জাহান রাহাতের আগ্রহের কথা ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। মূলত জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা অনুযায়ী কেএসআরএম করণীয় নির্ধারণ করবে। কেএসআরএম চায় হতভাগ্য মিনু আক্তারের অনাথ দুই সন্তান যেনো সমাজের নিণ্ঠুরতার বলি না হয়। তারা যেনো পৃথিবীর আলো বাতাসে আর দশটা শিশুর মতো হেসে খেলে বড় হতে পারে। পৃথিবী ও জীবনের প্রতি যেনো তাদের বিরূপ মনোভাব সৃষ্টি না হয়।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান বলেন, মিনু আক্তারের অনাথ দুই সন্তানের সার্বিক দায়িত্ব নিতে চাই শিল্প গ্রুপ কেএসআরএম। ইতিমধ্যে কেএসআরএমের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে একাধিকবার। কেএসআরএমকে আমরা কিছু করণীয় নির্ধারণ করে দিবো। সে অনুযায়ী সন্তান দুটির ভরণপোষণের দায়িত্ব নিবে শিল্প প্রতিষ্ঠানটি। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আমরা তাদের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর রাখবো।

এ প্রসঙ্গে মিনু আক্তারের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ বলেন, কেএসআরএমের এমন উদারতা নিঃসন্দেহে প্রসংশার দাবিদার। এর মাধ্যমে মিনুর দুই এতিম ছেলে বেঁচে থাকার নিরাপদ অবলম্বন খুঁজে পেলো। এর চেয়ে খুশির খবর আর কি হতে পারে? আমরা যতদূর জানি কেএসআরএমের এমন মহানুভব অনেক কাজের দৃষ্টান্ত রয়েছে। যুগ যুগ ধরে তারা এমন অনেক মানবিক কাজ করে যাচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামীতে তাদের এমন মহানুভুব কর্মতৎপরতা অব্যাহত থাকবে। যা পিছিয়ে পড়া সমাজ ব্যবস্থায় আলোকবর্তিকা হিসেবে কাজ করবে।

প্রসঙ্গত, স্বামী পরিত্যক্ত হতভাগ্য মিনু আক্তার তার তিন সন্তানের ভরণপোষণের আশ্বাসে অন্যের হয়ে কারাগারে যায়। কিন্তু প্রায় তিন বছর অতিবাহিত হলে বিষয়টি জানাজানি হয়। গত ১৬ জুন কারামুক্তির ১৩ দিনের মাথায় রহস্যজনক সড়ক দুর্ঘটনায় জীবন থেকে মুক্তি পান মিনু।

একেএম/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর