channel 24

সর্বশেষ

  • ব্রিটিশ পাসপোর্টে জেরুজালেমকে 'ফিলিস্তিনি অঞ্চল' বলায় ইসরায়েলে তোলপাড়

  • জুলাই থেকে বড় পরিসরে টিকাদানের প্রত্যাশা

  • বিনামূল্যে জমিসহ ঘর পাচ্ছেন আরও ৫৩ হাজার ৩৪০টি পরিবার

  • রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় খালেদা জিয়া বিদেশ যেতে পারছেন না: ফখরুল

  • বিএনপি ধ্বংসাত্মক অপশক্তির পৃষ্ঠপোষকতা করে: কাদের

  • খুলনা জেনারেল হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য চালু হচ্ছে ৭০ শয্যা

  • তামাকের ন্যায্যমূল্যসহ ৬ দফা দাবি তামাক চাষী ও ব্যবসায়িক সমিতির

  • চাঁদপুর সদর থেকে অজগরসহ ৮টি বন্যপ্রাণি উদ্ধার

  • স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১৩টি স্থানে পশুর হাট বসবে: তাপস

  • কোরবানির ঈদ সামনে রেখে গাজীপুর পুলিশ সুপারের সভা

  • নবম বাংলাদেশি হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে শতক মিজানুরের

  • সেনাসদস্য মুকুলের মৃত্যুতে নবনিযুক্ত সেনাপ্রধানের শোক

  • ৭ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বসিকের সাবেক মেয়র কামাল জামিনে মুক্ত

  • পদ্মার পানিতে বিলীন পাটুরিয়া ২নং ঘাট, হুমকিতে বাকি চারটিও

  • মৌলভীবাজারে শ্লীলতাহানীর অভিযোগে ইমাম কারাগারে

চট্টগ্রামে কিছুদিন সংক্রমণ কমলেও ফের উর্ধ্বমুখী

চট্টগ্রামে কিছুদিন সংক্রমণ কমলেও ফের উর্ধ্বমুখী

চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তের একবছর আজ। এই একবছরে মাঝখানে কিছুদিন সংক্রমণ কমলেও গত দুমাস ধরে তা আবারও উর্ধমুখি। শুধু তাই নয়, তিনমাসের মধ্যে শনাক্তের হার বেড়েছে বহুগুণ।

গত একবছরে পরিস্থিতি মোকাবেলায় স্বাস্থ্যখাতে নানা সুবিধা বাড়লেও তা কতটা পর্যাপ্ত তা নিয়ে আছে প্রশ্ন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সুযোগ-সুবিধায় এখনো অনেক ঘাটতি আছে।

গেল বছরের ৩ এপ্রিল নগরের দামপাড়ায় প্রথম কোভিড রোগী সনাক্তের পর চট্টগ্রামে একে একে বাড়তে থাকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তাতে চরম বিশৃঙ্খলা দেখা দেয় চিকিৎসাখাতে।

শুরুরদিকে সমন্বয়হীনতা আর সেবা ও সুবিধায় চরম ঘাটতি থাকলেও ধীরে ধীরে তা কমে আসে। তবে করোনা সনাক্তের একবছরে যখন দ্বিতীয় ঢেউ দেখা দিয়েছে, তখন বন্দর নগরীর স্বাস্থ্যখাত পরিস্থিতি সামাল দিতে কতটা প্রস্তুত, দেখা দিয়েছে সে প্রশ্নও। কেননা আবারো ভয়াবহ রুপে করোনা। যদিও গেল এক বছরে গড়ে প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্যা ছিল প্রায় একশ। যা মোট নমুনা পরীক্ষার প্রায় ১২ শতাংশ।   
 
কোভিড চিকিৎসায় গেল বছরের মার্চ-এপ্রিলে বিআইটিআইডি আর জেনারেল হাসপাতালে ছিল স্বল্পসংখ্যক আইসোলেশন বেড। পরে একে একে যোগ হয় চমেক হাসপাতালসহ কয়েকটি হাসপাতাল আর আইসোলেশন সেন্টার। সেসময় হাতেগোনা আইসিইউ থাকলেও এখন ন্যাজাল ক্যানুলাসহ কোভিড রোগীদের সমন্বিত চিকিৎসার ব্যবস্থাও আছে। চরম ঘাটতি ছিল যে অক্সিজেনের, বর্তমানে শয্যার পাশেই সে সুবিধা মিলছে।

তবে স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. শাহরিয়ার কবিরের মতে, সংক্রমণের হার কমাতে না পারলে সুযোগ-সুবিধা আরো বাড়িয়েও সুফল মিলবে না।     

শিগগিরই বন্ধ হওয়া ফিল্ড হাসপাতাল আর আইসোলেশন সেন্টার পুনরায় চালুর উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্য পরিচালক।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর