channel 24

সর্বশেষ

  • অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ভবিষ্যৎ

  • বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দিতে দ্রুত সিদ্ধান্ত চায় চীন

  • ফুরিয়ে আসছে করোনার টিকা, বিকল্প উৎসের খোঁজে সরকার

  • হেফাজত নেতা কোরবান আলী ৭ দিনের রিমান্ডে

  • বাংলাদেশিদের ইউরোপ-আমেরিকা যাবার বাধা কাটলো

  • ঠাকুরগাঁওয়ের শিশু জান্নাত এখন পুরোপুরি সুস্থ

  • এবছর সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকা

  • বিএনপিকে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান কাদেরের

  • জয় দিয়ে জিম্বাবুয়ে সিরিজ শুরু পাকিস্তানের

  • ব্যর্থতার বৃত্ত ভেঙে আলোয় উজ্জ্বল শান্ত

  • বিদায় মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনের কবি শঙ্খ ঘোষ

  • শান্তর সেঞ্চুরিতে রাঙানো ক্যান্ডি টেস্টের প্রথমদিন

  • জীবিকার তাগিদ বোঝে না করোনা আতঙ্ক, বোঝে না লকডাউন

  • সুপার লিগে ভাঙনের সুর, চুক্তি অনুযায়ী খেলতে বাধ্য- দাবি পেরেজের

  • ক্যারিয়ারের প্রথম শতক তুলে নিলেন শান্ত

চট্টগ্রাম সিটিতে দুই অর্থবছরে প্রায় ৫শ কোটি টাকার অসঙ্গতি

চট্টগ্রাম সিটিতে দুই অর্থবছরে প্রায় ৫শ কোটি টাকার অসঙ্গতি

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গেলো দুই অর্থবছরে, প্রায় ৫শ কোটি টাকার আর্থিক অসঙ্গতি পেয়েছে নিরীক্ষা বিভাগ। আয়ের টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না করা ও অস্বাভাবিক ব্যয়সহ নানা অনিয়ম রয়েছে। বিশ্লেষকরা বলছেন, সুশাসনের অভাবেই এমনটা হয়েছে। যার দায় এড়াতে পারেন না জনপ্রতিনিধিরা।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের নানাখাতের নীরিক্ষা করে আসছে পার্বত্য চট্টগ্রাম পল্লী উন্নয়ন ও স্থানীয় প্রতিষ্ঠান অডিট অধিদপ্তর। সবশেষ ২০১৮-১৯ ও ১৯-২০ অর্থবছরের নীরিক্ষায় অন্তত ৪০টি খাতে প্রায় ৫শ কোটি টাকার অসঙ্গতি, অনিয়ম ধরা পড়ে। যা নিয়ে আপত্তি জানায় সংস্থাটি।

নীরিক্ষায় যেসব গরমিল মিলেছে তার অন্যতম, আয়ের ১৭ কোটি ২৯ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না করা, ১১ কোটি ৪ লাখ টাকা বিধিবহির্ভূতভাবে এবং প্রয়োজনের অতিরিক্ত ১ কোটি ৬ লাখ টাকা ব্যয় করা, ১৭ কোটি ২৮ লাখ টাকা ভ্যাট কর্তন না করা, ১৬ কোটি ৬৭ লাখ টাকার অগ্রিম পরিশোধ সমন্বয় না করা এবং ২১ লাখ ৬৭ হাজার টাকা ব্যয়।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, রাজস্ব অনাদায়ে ক্ষতি হয়েছে ৩শ ১৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা। অব্যয়িত অর্থ সমর্পণ করা হয়নি ৮৩ কোটি ২৫ লাখ, ঠিকাদারের ৮ লাখ ৭০ হাজার টাকার ভ্যাট নিজেরা পরিশোধ করা এবং প্রভিডেন্ড ফান্ড বাবদ কর্মকর্তা-কর্মচারী থেকে ২৪ লাখ ১২ হাজার টাকা অতিরিক্ত কর্তনের অসঙ্গতিও ধরা পড়ে নীরিক্ষায়। যার ব্যাখ্যা চাওয়া হয় করপোরেশনের কাছে।     

বিশ্লেষকরা বলছেন, সিটি করপোরেশনে যে সুশাসনের ঘাটতি রয়েছে তার প্রমাণ এই নীরিক্ষা আপত্তি। যার নিবিড় তদন্ত হওয়া দরকার বলে মত তাদের।

নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের গাফিলতির কারণে এমন অসঙ্গতি বা অনিয়ম হয়েছে। তাই এসবের দায় তারাও এড়াতে পারেননা বলে মত এই বিশ্লেষকদের। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর