channel 24

সর্বশেষ

  • ঠাকুরগাঁওয়ে ন্যায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত কৃষকরা

  • টিকা দেয়া শুরু কাল, দেশব্যাপী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে

  • টিকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে অহেতুক ভয় পাবার কিছু নেই, বিশেষজ্ঞদের মত

  • করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ হওয়ায় ইতালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

  • কৃষক আন্দোলনে উত্তাল নয়াদিল্লি

  • নিয়মবহির্ভূত জাহাজ চলাচলে ক্ষতিগ্রস্ত মালিকদের স্বার্থ রক্ষার্থে স্মারকলিপি

  • পাথরঘাটায় নির্বাচনি প্রচারণায় ত্রিমুখী সংঘর্ষ, ওসিসহ অর্ধশতাধিক আহত

  • ঠিকানার ভুলে ১৫ বছরের সাজা নির্দোষ কামরুলের; ক্ষমা চাইলো দুদক

  • ফেব্রুয়ারির প্রথম বা দ্বিতীয় সপ্তাহে স্কুল খুলে দেয়ার চিন্তাভাবনা

  • সাভারে ব্যবসায়ী রবিউল হত্যায় আরও দুজন গ্রেপ্তার

  • টাঙ্গাইলে শিশু খুনের মামলায় চারজনের সাজা

  • স্বচ্ছতা বাড়াতে জোরদার করা হচ্ছে ই-পেমেন্ট কার্যক্রম

  • দেশে করোনায় আরো ১৪ জনের প্রাণহানি

  • করোনা টিকার ছাড়পত্র দিলো ওষুধ প্রশাসন

  • ১৪ বছর পর উপমহাদেশের বাইরের দেশ টেস্ট খেলছে পাকিস্তানে

খানাখন্দ ও ধুলাবালির সীমাহীন ভোগান্তির নাম চট্টগ্রামের স্ট্র্যান্ড রোড

খানাখন্দ ও ধুলাবালির সীমাহীন ভোগান্তির নাম চট্টগ্রামের স্ট্র্যান্ড রোড

বড় বড় গর্ত আর ধুলাবালির সীমাহীন অত্যাচার। সড়কে এমন বারোমাসি দুর্ভোগের নাম চট্টগ্রামের স্ট্র্যান্ড রোড। বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিক এলাকা আর বন্দরের পণ্যবাহী ভারী যান চলাচলের এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিতে যাতায়তই যেন নরক যন্ত্রণা। এরমধ্যে উন্নয়নকাজ সেই যন্ত্রণাকে বাড়িয়েছে কয়েকগুণ।

ক্ষতবিক্ষত সড়ক আর কাদাপানি মিলে একাকার। এই চিত্র গত ২৬ আগস্ট ধারণ করা চট্টগ্রাম নগরীর স্ট্র্যান্ড রোডের সদরঘাট এলাকায়।

একইস্থানে তিনমাস পরের চিত্র। যেখানে সড়কে পানি না থাকলেও আছে ধুলার রাজত্ব। সেইসাথে সীমাহীন দুর্ভোগ।  

বর্ষায় কাদাপানিতে একাকার আর এখন ধুলাবালির এমন অত্যাচার। বছরের প্রায় পুরো সময়জুড়েই সড়কে এমন দুর্ভোগে রীতিমতো নাভিশ্বাস এখানকার অধিবাসীদের।

রশিদ বিল্ডিং মোড় থেকে সদরঘাট পর্যন্ত সড়কটির পুরো অংশজুড়েই দু:সহ কষ্টের উপাখ্যান। তাতে, শুধু চলাচলকারীরাই নয়, আশপাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কিংবা বাসাবাড়ির মানুষজনের কষ্টের যেন অন্ত নেই।  

বছরের পর বছর ধরে এমন দুর্ভোগ চললেও এর কোন প্রতিকার না পেয়ে হতাশ স্থানীয়রা।

গত এপ্রিলে দুইভাগে দুই দশমিক এক কিলোমিটার দীর্ঘ এই সড়কের সংষ্কারকাজ শুরু করে দুটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। কিন্তু করোনার কারণে কাজ বন্ধ থাকার পর ডিজাইন পরিবর্তন করে এখন পুরো সড়কটিকেই নতুনভাবে নির্মাণ করতে হচ্ছে।

বন্দর ছাড়াও বিভিন্ন পণ্যবাহী ট্রাক-কাভার্ডভ্যানসহ ভারী যান চলাচলকারী এই সড়কের নির্মাণকাজ আগামী কয়েকমাসের মধ্যে শেষ করার কথা বলছেন সংশ্লিষ্টরা।  

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর