channel 24

সর্বশেষ

  • সাকিবের প্রত্যাবর্তনকে স্বাগত জানাল সতীর্থরা ও কোচ খালেদ মাহমুদ

  • রংপুরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় ডিবির এএসআই রাহেনুল গ্রেপ্তার

  • সুন্দরবনে পর্যটক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা উঠলো

  • ভ্যাট ফাঁকির অপরাধে ফুডপান্ডার বিরুদ্ধে মামলা

  • বছর ব্যবধানে দেশে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ কমেছে ১৯ শতাংশ

  • জাতীয় দলের অনুশীলনে ফিরেছেন বসুন্ধরা কিংস ফুটবলাররা

  • 'যুবতী রাধে' গানের সমাধান মিলছে না

  • মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগাম ভোটের রেকর্ড

  • রুটিফলের স্বাদ ও পুষ্টিগুণ

  • কিশোরগঞ্জে শিশু গৃহকর্মীকে হত্যার অভিযোগে দম্পতি আটক

  • আঁখ চাষীদের দুর্ভোগ কমাতে সুগারক্যান প্ল্যানটার

  • মাশরুম চাষের মাধ্যমে নতুন উদ্যোক্তা তৈরি করা হবে: কৃষিমন্ত্রী

  • ইসিতে আ.লীগ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে বিএনপির অভিযোগ

  • পাবনায় আগাম জাতের শিম চাষে ভাগ্য ফিরেছে কৃষকের

  • ভোলার এসপি হলেন দশম শ্রেণির ছাত্রী তাসনিম!

মরদেহের পরিচয় নিয়ে ধুম্রজাল

মরদেহের পরিচয় নিয়ে ধুম্রজাল

১৭ মাস আগে চট্টগ্রামের হালিশহরে পাওয়া দগ্ধ মরদেহের পরিচয় আসলে কী? হাইকোর্টের এক আদেশের পর নতুন করে এ প্রশ্ন সামনে এসেছে। কেননা, এটা যার মরদেহ বলে পুলিশ দাবি করেছিল, সম্প্রতি তিনি ফিরে আসায় রহস্য দানা বেধেছে। এ ঘটনায় দুজন হত্যার দায় স্বীকার করে যে জবানবন্দি দিয়েছে তা নিয়েও উঠেছে গুরুতর অভিযোগ।

চট্টগ্রাম নগরীর হালিশহর খালপাড়য় থেকে ২০১৯ সালের ২১ এপ্রিল উদ্ধার হয় অজ্ঞাতপরিচয় দগ্ধ একটি মরদেহ।

পাঁচদিন পর পুলিশ জীবন আর দুর্জয় নামে দুই যুবককে আটকের পর দাবি করে, নিহত ব্যক্তির নাম দিলীপ। এ দুজনই হত্যা করেছে তাকে। আদালতে জবানবন্দিও দিয়েছে তারা, এমন দাবিও করে পুলিশ।

তবে মঙ্গলবার এই মামলায় এক আসামীর উচ্চআদালতে জামিন শুনানীতে প্রকাশ হয়, যে দিলীপকে হত্যার কথা বলা হয়েছে, তিনি জীবিত আছেন। শুনে বিস্ময় প্রকাশ করেন আদালত।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, যে দিলীপকে হত্যার কথা বলা হচ্ছে, তার সাথেই একটি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন জীবন আর দুর্জয়। স্বজনদের অভিযোগ, পুলিশ আটকের পর নির্যাতন করে দুজনকে স্বীকারোক্তি দিতে বাধ্য করেছে।

অভিযোগ, পুলিশের সোর্স পলাশই ফাঁসিয়ে দিয়েছে জীবন আর দুর্জয়কে। তবে তা অস্বীকার করেন পলাশ।

দুজনকে আটকে নেতৃত্ব দেন হালিশহর থানার তৎকালীন এসআই মাহবুব মোরশেদ। তিনি এখন হবিগঞ্জে। আর জীবিত দিলীপকে হাজির করেন বর্তমানে সিলেটে কর্মরত হালিশহর থানার সাবেক কর্মকর্তা সাইফ উল্লাহ।

প্রশ্ন উঠেছে, তাহলে যে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে সেটি কার?

তবে যে দিলীপকে ঘিরে এত কথা, নানা জায়গায় খোঁজ নিয়েও তার সন্ধান মেলেনি। এই মামলায় ২২ অক্টোবর দুই আসামী ও দিলীপসহ তদন্ত কর্মকর্তাকে হাজির হতে বলেছেন হাইকোর্ট।

বিস্তারিত দেখুন ভিডিও লিংকে:

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর