channel 24

সর্বশেষ

  • বান্দরবানে ৬ নেতাকর্মী হত্যার ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি

  • কর্ণফুলি নদীতে লাইটার জাহাজ ডুবি

  • চট্টগ্রামে করোনায় আরও ৬ জনের মৃত্যু

  • শূন্য থেকে শুরু করে আব্দুল মজিদ এখন সফল নার্সারি ব্যবসায়ী

  • মায়ের সামনেই ৩ বছরে শিশুকে গলাকেটে হত্যা করল চাচা

  • ফ্যাভিপিরা ওষুধ ট্রায়ালে ৯৬ ভাগ রোগী সুস্থ, দাবি বিকন ফার্মার

  • চিকিৎসার নামে প্রতারণা: রিজেন্ট হাসপাতালের ৭ জন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • রাতে ভিন্ন ম্যাচে নামছে লিভারপুল ও ম্যান সিটি

  • আগামী সপ্তাহে আদালতের স্বাভাবিক বিচার কার্যক্রম চালু করা হবে: আইনমন্ত্রী

  • লা লিগায় এস্পানিওলের বিপক্ষে মাঠে নামবে বার্সেলোনা

  • আদালত কর্তৃক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার বিল-২০২০ সংসদে পাশ

  • রিজেন্ট দুর্নীতি: গ্রেপ্তার ৮ আসামির ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন

  • সান্তোসের করা মামলা থেকে মুক্তি মিললো বার্সেলোনার

  • পূর্ব শত্রুতার জেরে ব্লেড দিয়ে শিশু সাদিয়াকে হত্যা করা হয়

  • মাস্ক-সুরক্ষাসামগ্রীর অনিয়মে জড়িত কেউই ছাড় পাবেন না: দুদক সচিব

চট্টগ্রামে ১০ দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুন

চট্টগ্রামে ১০ দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুন

করোনার ভয়াবহ বিস্তার হচ্ছে বন্দরনগরী। হটস্পট ছাড়িয়ে চট্টগ্রামকে এখন বিবেচনা করা হচ্ছে করোনার এপিসেন্টার হিসেবে। পরিসংখ্যান বলছে, সারাদেশে মোট মৃতের এগারো শতাংশ এবং আক্রান্তের ছয় শতাংশই চট্টগ্রাম নগরীতে। দিন যতই যাচ্ছে ততই বাড়ছে এই হার। সংক্রমণ শুরুর ৫৫ দিনে আক্রান্তের চেয়ে গত দশদিনেই আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় দ্বিগুণ। তথ্য বলছে, ঐসময়ে তুলনায় এখন প্রতিদিন সংক্রমণ ১৪ গুণ বেশি।

করোনা সংক্রমনে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় পৌছেছে বন্দরনগরী। তাতে বাড়ছে শংকা। চট্টগ্রামে প্রথম করোনা শনাক্ত হয় গত ৩ এপ্রিল। সেদিন থেকে গত ৫৫ দিনে চট্টগ্রামে আক্রান্ত হয়েছে অন্তত আড়াই হাজার মোট দুই হাজার ৪শ ২৯ জন।

সনাক্তের প্রথম ৪৫ দিনে যেখানে আক্রান্ত ৮৪৫ জন, সেখানে গত ১০ দিনেই হয়েছে প্রায় দ্বিগুন। অর্থাৎ প্রথম দিকের তুলনায় আক্রান্তের হার বেড়েছে আটগুনেরও বেশী। আক্রান্তের দিক থেকে সারাদেশের প্রায় ছয় ভাগই চট্টগ্রামে। আর প্রাণহানিতে সেটা ১১ ভাগ।

এমন উদ্বেগজনক পরিস্থিতির জন্য সবপক্ষের উদাসীনতাকে দায়ী করছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুরু থেকেই করোনা প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রনে কার্যকর পদক্ষেপ না থাকায় পরিস্থিতি পৌঁছেছে ভয়াবহ পর্যায়ে।

স্বাস্থ্যসংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনা পরীক্ষার পর ফল পেতে দেরী, পর্যাপ্ত আইসোলেশন এবং জনসচেতনতার অভাবে বেড়েছে সংক্রমন।

চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষার ল্যাব আছে তিনটি। আর চিকিৎসার জন্য এখন পর্যন্ত শয্যার ব্যবস্থা করা হয়েছে সাড়ে তিনশোর মতো।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর