channel 24

সর্বশেষ

  • ভারতের কেরালায় ১৯১ যাত্রী নিয়ে বিমান দুর্ঘটনা, নিহত ১৫

  • ফুটবলারদের করোনা টেস্ট নিয়ে বিব্রত ফেডারেশন

  • শ্রীলঙ্কা সফরে ফিরছেন সাকিব আল হাসান

  • কাল আবার শুরু ক্রিকেটারদের একক অনুশীলন

  • সাবেক মেজর সিনহা হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

  • ওসি প্রদীপ ও লিয়াকতসহ আসামিদের এখনও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেনি র‍্যাব

  • মুজিব বর্ষেই বঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে এনে বিচার করা হবে: পররাষ্টমন্ত্রী

  • কাশিমপুর কারাগার থেকে কয়েদি নিখোঁজের ঘটনায় ৬ জন সাময়িক বরখাস্ত

  • বরিশালে টেম্পু-বাস শ্রমিকদের সংঘর্ষ

  • দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ঢাকা ফেরা মানুষের ভিড়

  • চট্টগ্রামে বন্ধুকে খুন করে জানাজা-দাফনে অংশ নিল কিশোর

  • ১৭ আগস্ট থেকে চালু হচ্ছে কক্সবাজারের সব পর্যটনকেন্দ্র

  • সিনহা ইস্যুতে কেউ কেউ সরকার হটানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে: কাদের

  • করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে আক্রান্ত রোগীর সেবা দিবে রোবট

  • কাশিমপুর কারাগার থেকে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত কয়েদি নিখোঁজ

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে করোনার ৭টি জিনোম সিকোয়েন্স

চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে করোনার ৭টি জিনোম সিকোয়েন্স

এবার করোনাভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স করলো চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতৃত্বে সরকারি তিনটি প্রতিষ্ঠান। দুই সপ্তাহের চেষ্টায় সাতটি ভাইরাসের জিনোম বিন্যাস করেন বিজ্ঞানীরা। যা দেশে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এর সাথে মিল পাওয়া গেছে সৌদি আরব, সিঙ্গাপুরসহ চারটি দেশে পাওয়া ভাইরাসের। তারা বলছেন, এর মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জেলায় ভাইরাসের গতি-প্রকৃতি, উৎপত্তিস্থল এবং ভবিষ্যতে টিকা তৈরির বিষয়ে গবেষণা সহজ হবে।

দেশে অচেনা করোনা ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্সের প্রথম খবর দেয় ঢাকার চাইল্ড হেল্থ রিসার্চ ফাউন্ডেশন। এবার সেই কাজটি করলো চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়-সিভাসুর নেতৃত্বে সরকারি তিনটি প্রতিষ্ঠান।   

গেল দুই সপ্তাহ ধরে নেক্সট জেনারেশন সিকোয়েন্সিং বা এনজিএস পদ্ধতিতে এই তথ্য বিন্যাস করেন গবেষকরা। বিভিন্ন জেলা থেকে সংগ্রহ করা ১২টি নমুনার মধ্যে সাতটি  ভাইরাসের জিনোম বিন্যাস করা হয়। যাতে মিল পাওয়া গেছে চারটি দেশে পাওয়া ভাইরাসের সাথে।

একসাথে সাতটি ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স দেশে এটাই সর্বোচ্চ। গবেষকরা বলছেন, এই জিনোম বিন্যাসের ফলে কোন জেলায় কোন ধরনের ভাইরাস বিস্তার লাভ করেছে, উৎপত্তিস্থল, আনবিক গঠনের পরিবর্তন এবং দেশে টীকা উৎপাদন বিষয়ে গবেষণা সহজ হবে।

অধিকতর তথ্য উদঘাটনের জন্য আরও ২০টি নমুনা ঢাকার বিজেআরআই ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। যা এক সপ্তাহের মধ্যে জমা দেয়া হবে আন্তর্জাতিক ইনফ্লুয়েঞ্জা ডেটাবেজে। এই কাজে যুক্ত ছিলেন বিআইটিআইডি হাসপাতাল ও বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউটের চার গবেষকও।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর