channel 24

সর্বশেষ

  • বিশ্বে মৃত্যু ছাড়ালো ৪৪ হাজার, আক্রান্ত প্রায় ৯ লাখ

  • চট্টগ্রামে বেসরকারি উদ্যোগে অস্থায়ী হাসপাতাল হচ্ছে

  • চট্টগ্রামে লকডাউনের ভুতুড়ে পরিবেশে সুযোগ নিচ্ছে ছিনতাইকারী

  • নিম্নআয়ের মানুষের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে বিভিন্ন সংগঠন-সংস্থা

  • নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের নৃশংসতা, কুপিয়ে হত্যা করলো ব্যবসায়ীকে

  • করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে কাজ করছে সেনাবাহিনী: সেনাপ্রধান

  • শক্তিশালী ও সমন্বিত নীতির মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রেখেছে সরকার

  • করোনা নিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বরিশালে ইমাম-শিক্ষকসহ ৬ জন আটক

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্রিকেট ও লুডু খেলাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে আহত ৩০

  • নিজের ভালোটাও বুঝছেন না অনেকে, বিনা কারণে নামছেন সড়কে

  • বাগেরহাটে জমি নিয়ে বিরোধে গৃহবধূকে হত্যা

  • এবার ঢাকা ছাড়ছেন জাপানি নাগরিকরা

  • করোনায় আক্রান্ত দুধের বাজারও, বিক্রি হচ্ছে পানির দামে

  • ডিজিটাল প্লাটফর্মে চলছে বসুন্ধরা কিংসের অনুশীলন

  • ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ সরকারি-বেসরকারি অফিস, প্রজ্ঞাপন জারি

চট্টগ্রামে বিদেশফেরতরা মানছেন না কোয়ারেন্টিনে থাকার বাধ্যবাধকতা

চট্টগ্রামে বিদেশফেরতরা মানছেন না কোয়ারেন্টিনে থাকার বাধ্যবাধকতা

চট্টগ্রামে গত দুই সপ্তাহের মধ্যে বিদেশ থেকে ফিরেছে প্রায় ১০ হাজার প্রবাসী। এদের মধ্যে কেবল এক হাজার প্রবাসিকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠায় স্বাস্থ্য বিভাগ। কিন্তু অভিযোগ উঠেছে তারাও মানছেন না এ নির্দেশনা। যেখানে সেখানে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তারা। তাদের সামলাতেই এখন হিসসিম খাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন। তবে নির্দেশ অমান্যকারী এসব প্রবাসীকে কোয়ারেন্টিনে থাকা নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে পুলিশও।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের অংশবিশেষের মূলকথা, চট্টগ্রামে বিদেশফেরত লোকজন মানছেননা কোয়ারেন্টিনে থাকার বাধ্যবাধকতা।  

বাস্তবেও তাই। চট্টগ্রামে গত দুই সপ্তাহের মধ্যে বিভিন্ন দেশ থেকে ফেরা প্রায় এক হাজার প্রবাসিকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠায় স্বাস্থ্যবিভাগ। উদ্দেশ্য-সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যঝুঁকি রোধ।

সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বী বলেন, তাঁদের আত্মীয়স্বজনদের এক ধরণের আকাংখা থাকে তাঁদের সাথে মিলিত হবার। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে এগুলো অবশ্যই পরিহার করতে হবে।

অভিযোগ, যেখানে সেখানে তারা ঘুরে বেড়াচ্ছেন। তাতে আতঙ্ক বেড়েছে জনমনে। তাদের সামলাতে এখন রীতিমত হিমসিম খাচ্ছে স্থানীয় প্রশাসন। পরিচালনা করতে হচ্ছে ভ্রাম্যমান আদালত।  

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমীন বলেন, প্রবাস থেকে যারা এসেছেন তাঁরা বাজার দোকানপাটে ওবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আমরা যারা প্রশাসনের কর্মকর্তারা আছি বারবার ছুটে যাচ্ছি। তাঁরা আমাদের একদম ব্যতিব্যস্ত করে রেখেছেন।

এদিকে মীরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রুহুল আমীন বলছেন, এটার একমাত্র সমাধান হল তাঁদের নিজেদের সচেতনতা। তাঁরা নিজে যদি সচেতন হয়ে কোয়ারেন্টিনে না থাকে তবে প্রশাসনের পক্ষে বা আইন প্রয়োগ করেও এটা সম্ভব হবে না।

নির্দেশ অমান্যকারী এসব প্রবাসীকে কোয়ারেন্টিনে থাকা নিশ্চিত করতে মাঠে নেমেছে পুলিশও। উপ-পুলিশ কমিশনার ফারুক উল হক বলছেন, প্রতিটি থানাতে একটি করে করোনা ক্রাইসিস টিম গঠন করা হয়েছে। একজন সাব ইন্সপেক্টর, একজন এসআই এবং দুজন কন্সটেবল নিয়ে এটিমটি গঠন করা হয়েছে। যারা কোয়ারেন্টিন মানছে না তাঁদের কোয়ারেন্টিনে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রশাসনের হিসাবে, গত পনেরদিনে বিভিন্ন দেশ থেকে চট্টগ্রামে ফিরেছে প্রায় ১০ হাজার। যদিও বেশি করোনা আক্রান্ত দেশফেরতদের দিকে নজর দিতে গিয়ে, গুরুত্বের বাইরে রয়ে যায় অন্তত ৯ হাজার। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর