channel 24

সর্বশেষ

  • পাবনায় আর্কষণ বাড়াচ্ছে পালোয়ান, দাম ১৫ লাখ টাকা

  • মহামারিতে লাগামহীন মূল্যস্ফীতি

  • আলোচনায় রিজার্ভ থেকে সরকারের ঋণ নেয়ার আগ্রহ, আইনি সুযোগ কতোখানি?

  • প্রধানমন্ত্রীর গৃহনির্মাণ প্রকল্পে লাগামহীন দুর্নীতির অভিযোগ

  • করোনা: বস্তিবাসীর এন্টিবডি তৈরির ধরন ভিন্ন হতে পারে, গবেষণার তাগিদ

  • ফের উত্তপ্ত কাশ্মীর, বিজেপি নেতাকে গুলি করে হত্যা

  • পদ্মার চরে আটকে রেখে নারীর শ্লীলতাহানি, আটক ৩

  • বান্দরবানে ৬ নেতাকর্মী হত্যার ঘটনায় মামলা

  • শূন্য হাতে ফিরতে হচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলের ৩২ হাজারের বেশি শ্রমিককে

  • ইতালি থেকে ফেরত পাঠানো হল ১৬৫ বাংলাদেশিকে

  • বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: ময়ুর-২ লঞ্চের মালিক মোসাদ্দেক গ্রেপ্তার

  • সিনিয়র সাংবাদিক রাশীদ উন নবী বাবু মারা গেছেন

  • বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে প্রধানমন্ত্রীর ৩ দফা প্রস্তাব

  • মাস্ক কেলেঙ্কারি: জেএমআই'র চেয়ারম্যান ও তমা'র কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ

  • বিমান থেকে ১২৫ বাংলাদেশিকে নামতে দিচ্ছে না ইতালি

করোনা আতংকের মধ্যেই চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শুরু

করোনা আতংকের মধ্যেই চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শুরু

করোনা ভাইরাস নিয়ে আতংকের মধ্যেই চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা শুরু হয়েছে। এতে শংকিত প্রার্থীরা। তারা বলছেন, সর্বোচ্চ সতর্কতা বজায় রেখে গণসংযোগ চালিয়ে যেতে হবে। যাতে করে নিজেকে নিরাপদ রাখার পাশাপাশি ভোটারদেরও সচেতন করা যায়। আর এজন্য ডিজিটাল পদ্ধতির সর্বাধিক ব্যবহারের কথা জানান কেউ কেউ।

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে পুরোদমে প্রচারণায় নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। তবে এমন এক সময়ে এই ভোটযুদ্ধ, যখন দেশে বিরাজ করছে করোনা ভাইরাস আতংক।

এই রোগ প্রতিরোধে যে কটি পরামর্শ দেয়া হয়েছে, তার অন্যতম জনসমাগম এড়িয়ে চলা। তবে ভোটের মাঠে প্রার্থীদের যেতে হবে ভোটারদের কাছে। তাই কোন কোন প্রার্থীর দাবি দিনক্ষণ পেছানোর।  

ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী জান্নাতুল ইসলাম বলেন, এই মুহুর্তে নির্বাচন করতে গিয়ে মানুষকে বিপদে ফেলা ঠিক হবে না। তাই নির্বাচন কমিশনকে আমরা আহ্বান জানাবো নির্বাচনটা যেন পিছিয়ে দেয়।

এদিকে ইসলামিক ফ্রন্টের মেয়র প্রার্থী মুহাম্মদ ওয়াহেদ মুরাদ বলছেন, সব জায়গা থেকে যদি আমরা সচেতনতা তৈরি করতে পারি জনমনে যে আমরা কিভাবে এই দুর্যোগ থেকে উদ্ধার পাবো তবে হয়তো আমরা করোনাভাইরাসকে প্রতিহত করতে পারবো।

প্রচার-প্রচারণায় হাত মেলানো কিংবা কোলাকুলি-এসব দৃশ্য যেন স্বাভাবিক।  তাই এক্ষেত্রে নিজেদের পাশাপাশি ভোটারদের সতর্কতার ওপর জোর দিলেন প্রার্থীরা। কেউ কেউ বলছেন ডিজিটাল প্রচারণায় গুরুত্ব দেয়ার কথা।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, এটাতে সতর্কতা অবলম্বন করা ছাড়া অন্য কোন উপায় নেই। যতটুকু পারি আমরা সতর্কভাবে চলার চেষ্টা করবো।

আর বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, ছোট্ট ছোট্ট যেই ট্রাক বা লড়িগুলো আছে সেগুলোর মাধ্যমে আমরা সব জায়গায় যেয়ে যেয়ে অভিনন্দন জানাবো। এভাবে আমরা প্রচারণাও চালাতে পারি পাশাপাশি করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকেও আমি জনগণকে দূরে রাখতে পারি।

এদিকে, নিরাপদ গণসংযোগ নিয়ে শঙ্কায় কাউন্সিলর প্রার্থীরাও। এক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনাও চেয়েছেন কেউ কেউ। তাঁরা বলছেন, আমাদের সতর্ক থাকতে হবে এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে। জনস্মমুখে গেলে মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আমরা আরও কিভাবে প্রচার-প্রচারনা চালাবো আর সরকার কিভাবে আমাদের সাহায্য করবে সেই ব্যপারে একটা সিদ্ধান্ত চাচ্ছি।

আগামী ২৭ মার্চ পর্যন্ত চলবে নগর নির্বাচনের এই প্রচার-প্রচারণা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর