channel 24

সর্বশেষ

  • সিলেটে বেশিরভাগ হাসপাতালে মিলছে না কাঙ্খিত চিকিৎসা সেবা

  • করোনায় মধ্যবিত্তদের সহায়তায় সিএমপির 'চলছে গাড়ি, মধ্যবিত্তের বাড়ি' কর্মসূচী

  • করোনায় মৃতদেহ সৎকারে বিপাকে বিশ্বের সব দেশ

  • করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি প্রায় ৫৯ হাজার; আক্রান্ত ১০ লাখের বেশি

  • ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে মানুষের ঢল

  • পণ্যের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও ক্রেতা নেই রাজধানীর কাঁচাবাজারে

  • ব্রিটেনে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৬৮৪ জনের প্রাণহানি

  • চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত প্রথম একজন শনাক্ত, বাড়ি লকডাউন

  • সাধারণ ছুটিতে বিপাকে ছিন্নমূল ও খেটেখাওয়া মানুষেরা

  • করোনার থাবায় নাস্তানাবুদ গোটা বিশ্ব, আক্রান্ত ছাড়ালো ১০ লাখ

  • খুলনায় বেশিরভাগ হাসপাতালে মিলছে না চিকিৎসা, ভোগান্তিতে রোগীরা

  • কিশোরগঞ্জে অটোরিকশার সিরিয়ালকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১

  • যে ছবি ভাইরাল হয়েছে

  • অনেক পণ্যের দাম কমলেও চট্টগ্রামে বেড়েছে চাল, ডালের মূল্য

  • একমাস লকডাউনের ঘোষণা সিঙ্গাপুরের

চসিক নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোই বড় চ্যালেঞ্জ

চসিক নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি বাড়ানোই বড় চ্যালেঞ্জ

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে জয় পরাজয়ের আগে প্রার্থীদের সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ, ভোটার উপস্থিতি বাড়ানো। এজন্য নির্বাচনি কৌশল ঠিক করার পাশাপাশি তারা জোর দিচ্ছেন মানুষকে কেন্দ্রমুখি করার দিকে। তাই, আলাদাভাবে কর্মসূচি ঠিক করছেন বড় দুদলের মেয়র প্রার্থী।

গেল কয়েকটি নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি কম হওয়ায়, সবার চোখ এখন চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের দিকে। যা অনুষ্ঠিত হবে ২৯ মার্চ।

আনুষ্ঠানিক প্রচার-প্রচারণা শুরু না হলেও, নিজেদের মতো করে নির্বাচনি তৎপরতা চালাচ্ছেন সব প্রার্থী। তাতে সবার সামনেই এখন বড় চ্যালেঞ্জ ভোটার উপস্থিতি বাড়ানো। বিশেষ করে বড় দুদলের মেয়র প্রার্থীরা এজন্য বেশ তৎপর।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, কোন রাজনৈতিক সংগঠন একজন ব্যক্তিকে জোর করে ভোট কেন্দ্রে আনতে পারে না। এদেরকে সচেতন করতে হবে, ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার জন্য অনুপ্রাণিত করতে হবে। এবং তাদের নিরাপত্তা সরকারতো দিচ্ছেই। আমরা আমাদের প্রচার-প্রচারণায় ভোটারদের বিভিন্নভাবে উৎসাহিত করছি।

তবে এজন্য সচেতনতা বাড়ানো, ভোটারদের কেন্দ্রে যাওয়ার ব্যাপারে উদ্ধুব্ধ করতে বিশেষ কমিটি গঠনের কথা বলছে বিএনপি। সেইসাথে নির্বাচন কমিশনের ইতিবাচক ভূমিকারও ওপর জোর দিচ্ছেন দলটির প্রার্থী

বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, আমাদের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ভোটারদের বাড়ি বাড়ি যাচ্ছে তাদের বুঝাচ্ছে যাতে তারা ভোট কেন্দ্রে আসে। ভোটকেন্দ্রে তাদের নিরাপত্তা সম্পর্কে অবহিত করছে যে, আপনি নির্ভয়ে ভোট দিতে পারবেন, আপনাকে কেউ ভয় দেখাবে না, আপনাকে কেউ বলবে না যে আপনি ভোট দিলে ধর্ষণের স্বীকার হবেন।

এ নিয়ে ভাবনা আছে নির্বাচন কমিশনেরও। যদিও ভোটারদের কেন্দ্রে নিতে হলে তাদের পাশাপাশি প্রার্থীদের উদ্যোগী ভূমিকা চেয়েছেন নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম। এবং আপনার ভোটটা আপনি নিজে কেন্দ্রে গিয়ে দিতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা হবে না।

নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা নির্বাচনের সমস্ত পরিবেশ নিশ্চিত করবো। আপনাদের যতটুকু সম্ভব নিরাপত্তার ব্যবস্থা আমরা নিশ্চিত করবো।

চট্টগ্রাম সিটিতে ভোটার রয়েছে ১৯ লাখের বেশি। ২০১৫ সালের নির্বাচনে ভোট পড়ার হার ছিল ৪৭ ভাগ। আর ২০১০ সালে ছিল ৫৫ ভাগ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর