channel 24

সর্বশেষ

  • প্লেব্যাক সম্রাট এন্ড্রু কিশোরের শেষকৃত্যানুষ্ঠান

  • পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম সালেহ'র খণ্ড-বিখণ্ড মরদেহ উদ্ধার

  • বিদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা বাতিলের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছে ট্রাম্প

  • সাতক্ষীরা থেকে ঢাকায় আনা হলো সাহেদকে

  • নিজ পরিচয় আড়াল করতে চুল ছোট, রঙ পরিবর্তন ও বোরকা পরে সাহেদ

  • করোনা বিশ্বকে এক দশক পিছিয়ে দিতে পারে

  • সাহেদ গ্রেপ্তার

  • ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে করোনার হানা, কলম্বিয়ায় ৪১ ফুটবলার আক্রান্ত

  • দুই আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা জয়ী

  • এখনো জাতীয় দলে ফেরার স্বপ্ন আশরাফুলের

  • ৩ সপ্তাহ পর করোনা মুক্ত হলেন মাশরাফী

  • রিজেন্ট গ্রুপের এমডি মাসুদ পারভেজ গ্রেপ্তার

  • স্বাস্থ্যমন্ত্রীর তীব্র সমালোচনা করলেন মশিউর রহমান রাঙা

  • সাতক্ষীরায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিদের মানববন্ধন

  • বন্যা পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হবে, ছড়াবে ২৩ জেলায়

চট্টগ্রামে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের শতাধিক বিদ্রোহী

চট্টগ্রামে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের শতাধিক বিদ্রোহী

দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কঠোর হুঁশিয়ারিও কাজে আসেনি। চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে সব নির্দেশনা উপেক্ষা করে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতা। ৫৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে এখন ৪৯টিতেই রয়েছে দলটির বিদ্রোহী প্রার্থী। নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগেই তারা জড়িয়ে পড়ছেন সংঘাতে। তাতে দল মনোনীত প্রার্থীরা পড়ছেন চ্যালেঞ্জের মুখে। তবে সে তুলনায় বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকায় অনেকটাই নির্ভার বিএনপি।

সংঘর্ষের এই ছবি শুক্রবার, চট্টগ্রাম নগরীর ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডের। যেখানে মারামারিতে জড়ান  আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল আমিন ও বিদ্রোহী প্রার্থী সাবের আহমেদের সমর্থকরা।

সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থিতা নিয়ে ক্ষমতাসীন দলে এমন উত্তাপ এখন নগরীর ৪৯টি ওয়ার্ডে। ৫৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে কেবল ৬টিতে একক প্রার্থী আছে দলটির। বিদ্রোহী প্রার্থীর ১৭ জন হচ্ছেন বর্তমান কাউন্সিলর, যারা বাদ পড়েছিলেন বিভিন্ন অভিযোগে।

দলীয় সভানেত্রীর কঠোর হুঁশিয়ারির পরও এত বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে চিন্তিত নেতারা। তাদের আশঙ্কা, এতে সংঘাত বাড়বে। তবে এতে দলের নেতারা নির্বাচনি কাজে প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করলেও সেটা মানতে নারাজ মেয়র প্রার্থী।   

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, নিজেদের মধ্যে ভিন্নতা থাকতে পারে কিন্তু এই প্রতীকের ব্যাপারে কারো কোন ভিন্নতা নেই। তাদের কোন মতবিরোধ নেই, মেয়র নির্বাচনে এটা তেমন প্রভাব পড়বে বলে আমার মনে হয় না।

চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রধান সমন্বয়ক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা চেষ্ঠা করবো যারা বিদ্রোহী প্রার্থী দাড়াইছে  তাদের বসানোর জন্য, সমঝোতা করার জন্য, যদি পারি তো ভাল কথা যদি না পারি তাহলে কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী তাদের বহিষ্কার করা হবে।

তবে এত বিদ্রোহী প্রার্থী নেই বিএনপিতে। সবকটিতে তাদের একক প্রার্থী রয়েছে দলটির।  

বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, আমাদের যে কাউন্সিল প্রার্থী আছে সেখানে কোন সমস্যা নেই। আমাদের ৪-৫ জায়গা আছে যেখানে দুজন করে প্রার্থী আছে আমরা চেষ্ঠা করবো সমঝোতা করার জন্য।

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে ৪১ টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন পত্র জমা দেন ২২০ জন। আর ৫৮ জন জমা দেন ১৪টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর