channel 24

সর্বশেষ

  • ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ সরকারি-বেসরকারি অফিস, প্রজ্ঞাপন জারি

  • ৩ হাজার কয়েদিকে মুক্তির প্রস্তাব কারা অধিদপ্তরের

  • ভাড়া মওকুফ ও চাল-ডাল দিয়ে বিপদগ্রস্তদের পাশে নারায়ণগঞ্জের শান্তা

  • করোনা আক্রান্তদের পাশে জস বাটলার, নিলামে বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্সি

  • ভোলায় সাংবাদিক নির্যাতন: ছাত্রলীগকর্মী নাবিল গ্রেপ্তার

  • জ্বর-সর্দি ও শাসকষ্টে ৩ জনের মৃত্যু

  • যুক্তরাষ্ট্রে মারা যেতে পারে প্রায় আড়াই লাখ মানুষ: হোয়াইট হাউস

  • করোনায় মানুষের পাশে ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন

  • দেশে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকই এখন সুস্থ: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • অ্যাপে যোগ হচ্ছে ফার্মেসি ও নিত্যপণ্যের দোকান; ব্যবসায় নতুন সম্ভবনা

  • মশার কামড়ে অতিষ্ঠ নওগাঁর পৌর এলাকার মানুষ

  • বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে মাত্র ৪ ঘণ্টায় মিলবে করোনা পরীক্ষার ফল

  • এক সপ্তাহের মধ্যে কেজিতে চালের দাম বেড়েছে ৪-৫ টাকা

  • এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা ও জীবাণুমুক্ত রাখছে না অনেক ব্যাংক

  • পোশাক খাতকে সহায়তা নয়, ২ শতাংশ হারে ঋণ দেয়া হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

চট্টগ্রামে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের শতাধিক বিদ্রোহী

চট্টগ্রামে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের শতাধিক বিদ্রোহী

দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কঠোর হুঁশিয়ারিও কাজে আসেনি। চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে সব নির্দেশনা উপেক্ষা করে কাউন্সিলর পদে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন আওয়ামী লীগের শতাধিক নেতা। ৫৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে এখন ৪৯টিতেই রয়েছে দলটির বিদ্রোহী প্রার্থী। নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগেই তারা জড়িয়ে পড়ছেন সংঘাতে। তাতে দল মনোনীত প্রার্থীরা পড়ছেন চ্যালেঞ্জের মুখে। তবে সে তুলনায় বিদ্রোহী প্রার্থী না থাকায় অনেকটাই নির্ভার বিএনপি।

সংঘর্ষের এই ছবি শুক্রবার, চট্টগ্রাম নগরীর ১২ নম্বর সরাইপাড়া ওয়ার্ডের। যেখানে মারামারিতে জড়ান  আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থী নুরুল আমিন ও বিদ্রোহী প্রার্থী সাবের আহমেদের সমর্থকরা।

সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর প্রার্থিতা নিয়ে ক্ষমতাসীন দলে এমন উত্তাপ এখন নগরীর ৪৯টি ওয়ার্ডে। ৫৫টি ওয়ার্ডের মধ্যে কেবল ৬টিতে একক প্রার্থী আছে দলটির। বিদ্রোহী প্রার্থীর ১৭ জন হচ্ছেন বর্তমান কাউন্সিলর, যারা বাদ পড়েছিলেন বিভিন্ন অভিযোগে।

দলীয় সভানেত্রীর কঠোর হুঁশিয়ারির পরও এত বিদ্রোহী প্রার্থী নিয়ে চিন্তিত নেতারা। তাদের আশঙ্কা, এতে সংঘাত বাড়বে। তবে এতে দলের নেতারা নির্বাচনি কাজে প্রভাব পড়ার আশঙ্কা করলেও সেটা মানতে নারাজ মেয়র প্রার্থী।   

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, নিজেদের মধ্যে ভিন্নতা থাকতে পারে কিন্তু এই প্রতীকের ব্যাপারে কারো কোন ভিন্নতা নেই। তাদের কোন মতবিরোধ নেই, মেয়র নির্বাচনে এটা তেমন প্রভাব পড়বে বলে আমার মনে হয় না।

চসিক নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রধান সমন্বয়ক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, আমরা চেষ্ঠা করবো যারা বিদ্রোহী প্রার্থী দাড়াইছে  তাদের বসানোর জন্য, সমঝোতা করার জন্য, যদি পারি তো ভাল কথা যদি না পারি তাহলে কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী তাদের বহিষ্কার করা হবে।

তবে এত বিদ্রোহী প্রার্থী নেই বিএনপিতে। সবকটিতে তাদের একক প্রার্থী রয়েছে দলটির।  

বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন, আমাদের যে কাউন্সিল প্রার্থী আছে সেখানে কোন সমস্যা নেই। আমাদের ৪-৫ জায়গা আছে যেখানে দুজন করে প্রার্থী আছে আমরা চেষ্ঠা করবো সমঝোতা করার জন্য।

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে ৪১ টি সাধারণ কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন পত্র জমা দেন ২২০ জন। আর ৫৮ জন জমা দেন ১৪টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর