channel 24

সর্বশেষ

  • পাবনায় জমি নিয়ে বিরোধে যুবক খুন

  • ঠাকুরগাঁওয়ে অজ্ঞাত রোগে একই পরিবারের দুজনের প্রাণহানি

  • রাজধানীর হাতিরঝিলে ছুরিকাঘাতে কিশোর খুন, আহত ১

  • উম্মুল কোরা বিশ্ববিদ্যালয় রেক্টরের সঙ্গে সৌদিতে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

  • সিরাজগঞ্জে বাসাবাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ৬ জন দগ্ধ

  • কাল শুরু বাংলাদেশের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অভিযান; প্রতিপক্ষ ভারত

  • চীনের বাইরে ভয়ঙ্কর রূপ নিচ্ছে করোনা; আক্রান্ত ১ হাজার ৭১২ জন

  • জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৫ সদস্যের ওয়ানডে দল ঘোষণা

  • গাইবান্ধা-৩ ও বাগেরহাট-৪ আসনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই সম্পন্ন

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহানন্দা নদী তীরবর্তী এলাকায় পর্যটন কেন্দ্র নির্মাণ বেআইনি

  • অর্থপাচার মামলায় আটক পাপিয়াকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার

  • স্বামীর দেয়া আগুনে দগ্ধ অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীর মৃত্যু

  • দুদিনের সফরে কাল ভারত আসছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প

  • নির্বাচনি প্রচারণায় আসছে নানা বিধিনিষেধ; যত্রতত্র পোস্টার-মাইকিং নয়

  • উন্নয়ন পরিকল্পনা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে দুর্ভোগে পড়তে হয় জনগণকে

অবশেষে উদ্বোধন হচ্ছে চট্টগ্রামের শেখ রাসেল পানি শোধনাগার

অবশেষে উদ্বোধন হচ্ছে চট্টগ্রামের শেখ রাসেল পানি শোধনাগার

এক বছর পরীক্ষামূলক চালুর পর অবশেষে উদ্বোধন হচ্ছে চট্টগ্রামের শেখ রাসেল পানি শোধনাগার। যেখান থেকে পাওয়া যাবে ৯ কোটি লিটার পানি। এখান থেকে উৎপাদিত পানি সরবরাহ করা হবে বাকলিয়া, পাথরঘাটাসহ বিভিন্ন এলাকায়। চট্টগ্রাম নগরীর পানি সংকট নিরসনে আরো দুটি প্রকল্প চলমান আছে সংস্থাটির। দ্রুত এ সব প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ২৪ ঘন্টা পানি পাবে নগরবাসী।

কোনটিতে চলছে ব্যাকটেরিয়া নাশক রাসায়নিক মিশ্রন আবার কোনটিতে পানি স্বচ্ছ ও বিশুদ্ধকরণ প্রক্রিয়া। হালদা নদী থেকে তোলা পানি এভাবেই খাবার উপযোগী করা হচ্ছে চট্টগ্রামের মদুনাঘাটে শেখ রাসেল শোধনাগারে।

বিশ্বব্যাংক ও সরকারের যৌথ অর্থায়নে ২০১৫ সালে শুরু হয় এ প্রকল্পের কাজ। প্রায় ১৮ শ কোটি টাকা ব্যয়ে সেই কাজ শেষ হয় ২০১৮ সালের অক্টোবরে। একবছর পরীক্ষামূলক চালানোর পর রোববার (২৬ জানুয়ারি) থেকে যাচ্ছে আনুষ্ঠানিক উৎপাদনে।

চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ বলেন, রোববার (২৬ জানুয়ারি) মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে উদ্বোধন করবেন। পুরোপুরি মডার্ণ ডিজাইনে এটি করা হয়েছে। আর সেকারণেই এটার পানির কোয়ালিটি অনেক ভাল।

প্রায় ১৩ একর জায়গা জুড়ে নির্মিত এ প্ল্যান্টে পানি শোধনের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে আধুনিক টিউব সেটলার প্রযুক্তি। উৎপাদন প্রক্রিয়ার বর্জ্য কাদামাটিতে রুপান্তর করতে ব্যবহৃত হয় ম্যাকানিক্যাল ডিহাইড্রেটর। যা বাংলাদেশে প্রথম। এই প্ল্যান্টে উৎপাদিত পানি সরবরাহ করা হয় নগরীর বাকলিয়া, আন্দরকিল্লা,পাথরঘাটাসহ বিভিন্ন এলাকায়।

চট্টগ্রাম ওয়াসার প্রধান প্রকৌশলী মাকসুদ আলম বলেন, জাপান-কোরিয়া এসব জায়গায় এই পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়।

চট্টগ্রাম ওয়াসার বোর্ড সদস্য মহসিন কাজী বলেন, একসময় এই এলাকায় পানির হাহাকার ছিল, কিন্তু এখন বাকলিয়াবাসী ভালোভাবে পানি পাচ্ছে এবং স্মমিলিত অন্যান্য এলাকার লোকজনও পানি পাচ্ছে।

নগরীর মোট চাহিদার ২১ ভাগ পানি সরবরাহ করবে এই শোধনাগার।

চট্টগ্রামে পানির মোট চাহিদা ৪২ কোটি লিটার। এই প্ল্যান্টে ৯ কোটিসহ ওয়াসার উৎপাদন ক্ষমতা ৩৬ কোটি লিটার। ঘটতি পূরণে আরও ২টি পকল্পের কাজ চলমান আছে। যা শেষ হবে ২০২২ সাল নাগাদ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর