channel 24

সর্বশেষ

  • ঢাকা সিটি নির্বাচন: জরুরি বৈঠকে নির্বাচন কমিশন...

  • সিদ্ধান্ত আসতে পারে ভোটের তারিখ পরিবর্তনের

  • হিন্দু মহাজোট পুরো সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিত্ব করে না: কাদের

  • পরিস্থিতি যাই হোক নির্বাচনের মাঠে থাকবে বিএনপি: তাবিথ

  • জনগণ জাগ্রত হলে কোনো অপকৌশল কাজে আসবে না: ইশরাক

  • সরকার সচেতনভাবে দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করছে: ফখরুল

  • ভোট চুরিতে নিত্যনতুন ফাঁদ পেতেছে সরকার ও ইসি: ঐক্যফ্রন্ট

  • অপহরণ মামলায় রংপুরে পুলিশ কনস্টেবল রবিউলসহ গ্রেপ্তার ৩

  • প্রায় সাড়ে ৫ মাস পর ভারতের জম্মু-কাশ্মীরে মোবাইল সেবা চালু

  • বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ ওটিস গিবসন

বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের ১৭ জন জেলেসহ মাছধরা নৌকা উদ্ধার করেছে মিয়ানমার নৌবাহিনী

বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের ১৭ জন জেলেসহ মাছধরা নৌকা উদ্ধার করেছে মিয়ানমার নৌবাহিনী

ইঞ্জিন বিকল হয়ে মায়ানমারের সমুদ্রসীমানায় ঢুকে পড়া ১৭ বাংলাদেশী নাগরিকসহ ফিসিং বোট আটক করেছে মায়ানমার নৌ বাহিনী। উদ্ধার অভিযানে চেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

গত ৪ ডিসেম্বর বিকেল ৪টার সময় বাংলাদেশের সেন্টমার্টিন দ্বীপের দক্ষিণ দিকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের রাথিডং উপকূলের মায়ো নদীর মোহনায় ওয়েস্টার ইজল্যান্ড হতে পশ্চিমে মিয়ানমারের জলসীমায় (অক্ষাংশ-২০‌ ডিগ্রী ০৩ মিনিট, দ্রাঘিমাংশ-৯২ ডিগ্রী ১৮.৫ মিনিট) দেশটির নৌবাহিনী কর্তৃক ১৭ জন জেলেসহ এফবি গোলতাজ-৪ (এফ-৬০৭৯) নামে বাংলাদেশী একটি ফিশিংবোট সাগরে ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

জানা যায়, ফিশিংবোটটি  গত ২৯ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রামের চাক্তাই হতে গভীর সমুদ্রে যাত্রা করেছিল। যাত্রার ০২ দিন পর গত ৩০ নভেম্বর ২০১৯ তারিখে নৌকাটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। পরবর্তীতে ০৪ দিন সমুদ্রে ভাসতে ভাসতে ফিশিংবোটটি মিয়ানমারের জলসীমায় ঢুকে পড়লে দেশটির নৌবাহিনী জাহাজ ইন লে কর্তৃক তা উদ্ধার করা হয়।

উদ্ধারকৃত জেলেদের মধ্যে ১৩ জন ভোলা, ০২ জন চট্টগ্রাম ০১ জন ঝালকাঠি এবং ০১ জন মুন্সিগঞ্জ জেলার অধিবাসী। নৌকাটির দৈর্ঘ্য ৫২ ফুট, প্রস্থ ১৪ ফুট এবং গভীরতা ০৬ ফুট। ফিশিং বোটটির মালিক চট্টগ্রাম জেলার পটিয়া উপজেলার আশরাফ হোসেন মাসুদ (মোবাঃ +৮৮০১৯৭১৭২৩৭৩৭), মাসুদ ফিস প্রসেসিং এন্ড আইসি কমপ্লেক্স লিমিটেড বাংলাদেশ।

মিয়ানমার নৌবাহিনীর অপর একটি জাহাজে করে আজ (০৫ ডিসেম্বর) দুপুরে ফিশিংবোটসহ জেলেদের সিট্যুয়ে শহরের উপকণ্ঠে নিয়ে আসা হয়। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সূত্রে সংবাদ পেয়ে সিট্যুয়েস্হ বাংলাদেশ কনস্যুলেটের একটি কনস্যুলার টীম তাৎক্ষণিকভাবে মিয়ানমার নৌবাহিনীর সংশ্লিষ্ট জাহাজে গিয়ে উদ্ধারকৃত জেলেদের সাক্ষাতকার গ্রহণ করে এবং ফিশিংবোটসহ উদ্ধারকৃত জেলেদের প্রত্যাবর্তন ও হস্তান্তরের বিষয়ে মিয়ানমার ও বাংলাদেশের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে প্রয়োজনীয় সমন্বয় করে। এ প্রেক্ষিতে অত্র কনস্যুলেট কর্তৃক মিয়ানমার ইমিগ্রেশন হতে তাদের গ্রহণ করতঃ কনস্যুলেটে রাত্রিযাপনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। একটি ভাড়াকৃত বেসরকারী কমার্সিয়াল পরিবহন ভেসেলের সাহায্যে বিকল ফিশিংবোটি টেনে নিয়ে আগামীকাল ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে অত্র কনস্যুলেটের মিশন প্রধানের নেতৃত্বে ১৭ জন জেলেকে সেন্টমার্টিন দ্বীপের নিকটে আন্তর্জাতিক জলসীমার শূন্যরেখায় (অক্ষাংশ ২০ডিগ্রি ৩৫.২৬ মিনিট উত্তর এবং দ্রাঘিমাংশ ৯২ ডিগ্রি ২৪.৫৮৫ মিনিট পূর্ব) বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের নিকট হস্তান্তর করার কথা রয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর