channel 24

সর্বশেষ

  • রাষ্ট্রীয় ব্যস্ততার কারণেই ভারত যাননি স্বরাষ্ট্র-পররাষ্ট্রমন্ত্রী: কাদের

  • খালেদা জিয়াকে জামিন না দেয়ার সিদ্ধান্ত আদালতের নয়, সরকারের: রিজভী

  • কেরাণীগঞ্জের প্লাস্টিক কারখানার অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আরও ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

  • ব্রিটেনের নির্বাচনে টিউলিপসহ বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৪ নারীর জয়

  • যুক্তরাজ্যে নির্বাচনে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেল কনজারভেটিভ পার্টি

ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলরুটে সাত বছরে এক হাজারের বেশি দুর্ঘটনা

ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলরুটে সাত বছরে এক হাজারের বেশি দুর্ঘটনা

রেলের সবচেয়ে ব্যস্ততম জোন পূর্বাঞ্চল। যেখানে যাত্রী পরিবহনও হয় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু এই অঞ্চলের ঢাকা-চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন রুটে ক্রমেই দুর্ঘটনা বাড়ছে। গত সাতবছরে দুর্ঘটনা ঘটেছে এক হাজারের বেশি। প্রাণ গেছে প্রায় দেড়শো জনের। এসব দুর্ঘটনার জন্য অন্তত আটটি কারণ চিহ্নিত করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

রেলের পূর্বাঞ্চল। যেখানে বিভিন্ন রুটে চলাচল করে দেড়শর মতো ট্রেন। বছরে এসব ট্রেন যাত্রী পরিবহন করে অন্তত ২ কোটি। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি যাত্রী পরিবহন হয় চট্টগ্রাম-ঢাকা রুটে।

তবে দেশের সবচেয়ে ব্যস্ততম রুট হলেও ট্রেন চলাচলে ঝুঁকিও বেশি এ পথে।  তথ্য বলছে, ২০১৩ থেকে চলতিমাস পর্যন্ত এই পূর্বাঞ্চলে দুর্ঘটনা ঘটেছে ১ হাজারের বেশি। প্রাণ গেছে অন্তত ১৪০ জনের। যাতে শুধু ১৬ জনই মারা গেছে মঙ্গলবারের (১২ নভেম্ববর) দুর্ঘটনায়। এরআগে ২০১০ সালে নরসিংদীতে প্রাণ যায় ১৩ জনের।

দুর্ঘটনার ধরণ বিশ্লেষনে দেখা গেছে, এখানে কয়েকটি মুখোমুখি সংঘর্ষ হলেও বেশিরভাগই ঘটে লেভেল ক্রসিংয়ে। এরপর রয়েছে বগি লাইনচ্যুতি। আর এসব দুর্ঘটনার নেপথ্যে আছে চালকের ভুল কিংবা গাফিলতি, লেভেল ক্রসিংয়ে অসতর্কতা, জরাজীর্ণ সেতু, স্লিপার না থাকা, ঝুঁকিপূর্ণ রেলপথসহ অন্তত আটটি কারণ।

এসব কারণের অনেকগুলোর সাথে একমত ট্রেন পরিচালনা কিংবা যোগাযোগ নিয়ন্ত্রণে থাকা কর্মকর্তারাও। চট্টগ্রাম স্টেশনমাস্টার মাহবুবুর রহমান জানান, এসব সমস্যার সমাধান হলে অনেকটাই কমবে দুর্ঘটনা।

দুর্ঘটনার সাথে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিতের পাশাপাশি রেলের ব্যবস্থাপনায় আধুনিকায়ন দরকার। পাশাপাশি প্রয়োজন আইনের কঠোর প্রয়োগ-এমনটাই মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর