channel 24

সর্বশেষ

  • চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নতুন সভাপতি এম এ সালাম...

  • সাধারণ সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান

  • এসএ গেমস: ভারোত্তোলনে মাবিয়া আক্তার, জিয়ারুল ইসলাম...

  • ফেন্সিংয়ে ফাতেমা মুজিব স্বর্ণ জিতেছেন; বাংলাদেশের স্বর্ণ ৭

  • কারো নির্দেশে নয়, হস্তক্ষেপমুক্ত বিচার বিভাগ চাই: বিচারপতি নুরুজ্জামান

  • রাষ্ট্রের তিনটি বিভাগের মধ্যে সমন্বয় থাকা প্রয়োজন...

  • একের কাজে অন্যের হস্তক্ষেপ ন্যায়বিচার বাধাগ্রস্ত করে: প্রধানমন্ত্রী

  • খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে নাটক করছে সরকার: ফখরুল...

  • মুক্তি দাবিতে রাজধানীসহ দেশের সব জেলায় বিক্ষোভ কাল

  • স্টামফোর্ডের শিক্ষার্থী রুম্পাকে ধর্ষণ ও হত্যার বিচার দাবিতে...

  • ধানমন্ডি ও সিদ্ধেশ্বরীতে সহপাঠীদের মানববন্ধন

  • অন্যায়ভাবে চাকরিচ্যুতি ও ছাঁটাইয়ের অভিযোগে...

  • এসএ টিভির কার্যালয়ে তালা দিয়েছেন আন্দোলনরত সাংবাদিকরা

  • এসএ গেমস: ভারোত্তোলন: ৭৬ কেজিতে স্বর্ণ জিতেছেন মাবিয়া আক্তার...

  • আসরে এটি বাংলাদেশের পঞ্চম স্বর্ণ...

  • ৮১ কেজি ওজন শ্রেণিতে রৌপ্য জিতেছেন জোহরা খাতুন...

  • ক্রিকেট: নেপালকে ৪৪ রানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশ...

  • স্কোর: বাংলাদেশ ১৫৫/৬ (নাজমুল হোসেন ৭৫*) নেপাল ১১১/৯

নানা সংকটে বান্দরবানের লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

নানা সংকটে বান্দরবানের লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স

প্রায় দুই লাখের বেশি মানুষের বসবাস বান্দরবানের লামায়। যাদের চিকিৎসা সেবার একমাত্র ভরসা লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। যদিও এই হাসপাতালে জরুরী প্রয়োজনে নেই অস্ত্রোপচার করার সুবিধা। ফলে চিকিৎসা বঞ্চিত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

পার্বত্য জেলা বান্দরবানের লামা উপজেলা। এই জেলার জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক বাস করে লামায়। যার মধ্যে বাংলা ভাষাভাষীসহ ৬টি ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠীর বসতি।

পাহাড়ী এলাকায় তামাক চাষ আর সুপেয় পানির অভাব থাকায় নানা রোগে আক্রান্ত হন এখানকার মানুষ। লামা সদর, গজালিয়া ও রুপসী পাড়া ইউনিয়নসহ আলী কদমের একাংশের সাধারণ মানুষ পাহাড়ী পথ ধরে খাল আর নদী পাড়ি দিয়ে স্বাস্থ্য সেবা নিতে আসেন লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

এই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি ২০১৭ সালে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। যদিও এখানে চিকিৎসক সংকটসহ রয়েছে জনবলের অভাব।
এই হাসপাতালে জরুরী প্রয়োজনে অস্ত্রোপচারের সুযোগ নেই। নেই মেডিকেল অফিসার। অতিরিক্ত চাপ নিয়েই স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

পাবর্ত্য জেলা পরিষদের নিয়ন্ত্রণে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারী নিয়োগ দেয়া হয়। সেটিও বন্ধ দীর্ঘদিন। ফলে সমস্যা সমাধানে নিজ খরচে কয়েকজন ক্লিনার নিয়োগ দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

লামা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শিশু কনসালটেন্ট বেলায়েত হোসেন জানান, চিকিৎসক কম থাকায় অতিরিক্ত চাপ নিয়েই সেবা দিতে হচ্ছে। সময় স্বল্পতার কারণে রোগীদের বেশি সময় দেয়া যায় না বলে ও জানান তিনি।

লামা উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা মোহাম্মদুল হক জানান,  চিকিৎসকদের অনেক পদই ফাঁকা রয়েছে। তবে শিগগিরই চিকিৎসকসহ অন্যান্য জনবল নিয়োগ দেয়া হবে বলে জানান লামা উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কর্মকর্তা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর