channel 24

সর্বশেষ

  • শ্বেতাঙ্গ পুলিশের নৃশংসতায় ৯ রাজ্যে বিক্ষোভ; ৪ পুলিশ অফিসার বরখাস্ত

  • মাটিতে পুঁতে রাখার ১১ মাস পর ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার

  • মাঠে গড়ানোর অপেক্ষায় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ও সিরি আ

  • সোমবার থেকে চলবে গণপরিবহন, রোববার নৌযান

  • জন্মের মাত্র একদিনের মাথায় প্রাণঘাতী করোনার সাথে যুদ্ধ

  • লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিসহ ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা, আহত ১১

  • কর্মস্থলে যোগ দিতে চট্টগ্রামে ফিরছে মানুষজন

  • পার্বত্য জেলাগুলোতে সেনাবাহিনীর খাদ্য সহায়তা অব্যাহত

  • করোনা চিকিৎসায় চট্টগ্রামের বেসরকারি হাসপাতালগুলো পুরোপুরি তৎপর নয়

  • কুষ্টিয়ায় করোনা রোগীদের সেবায় একদল স্বেচ্ছাসেবী

  • চট্টগ্রামে নতুন করে ২‘শ ২৯ জন করোনায় আক্রান্ত

  • আর্চ্যারি ঘিরে স্বপ্ন ও ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানালেন রোমান সানা

  • করোনায় সর্বোচ্চ ২৫২৩ জন শনাক্তের রেকর্ড, মৃত্যু ২৩

  • কোভিড-১৯ রোগের চিকিৎসায় হাইড্রোক্সো-ক্লোরোকুইন ওষুধ না রাখার পরামর্শ

  • আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে প্রিন্স চার্লসের চিঠি

রিকন্ডিশন্ড বা পুরনো গাড়ি বিক্রিতে ব্যাপক ধস

রিকন্ডিশন্ড বা পুরনো গাড়ি বিক্রিতে ব্যাপক ধস

গত ৪ মাসে রিকন্ডিশন্ড বা পুরনো গাড়ি বিক্রিতে ব্যাপক ধস নেমেছে। আগে যেখানে মাসে গড়ে প্রায় ২ হাজার গাড়ি বিক্রি হতো। সম্প্রতি তা নেমে এসেছে এক হাজার থেকে ১২শ'তে। ব্যবসায়ীরা বলেছেন, দেশে ক্যাসিনোসহ চলমান দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে বিলাসবহুল গাড়ি কেনা থেকে পিছিয়ে গেছেন বিত্তশালীরা। আবার কারো মতে, কালো টাকা সাদা করতে এসে কোন কোন বিনিয়োগকারী বাজারকে অস্থিতিশীল করে তুলেছেন। তাতেও গাড়ি বিক্রি থমকে গেছে।

চলতি বছর চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন বন্দর হয়ে দেশে সবচেয়ে বেশি প্রায় ২৬শ' রিকন্ডিশন্ড গাড়ি আমদানি হয় জানুয়ারিতে। আর সবচেয়ে কম ৫শ' ৫৫টি গাড়ি আমদানি হয় গত আগস্টে। সব মিলে অক্টোবর পর্যন্ত গাড়ি এসেছে ১০ হাজার ১৪৫টি।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজেটের আগের তুলনায় পরের ৪ মাসে গাড়ি বিক্রিতে ধস নেমেছে। অবিক্রীত থেকে গেছে প্রায় ৫০ শতাংশ গাড়ি। এজন্য দায়ী অবচয় সুবিধার সমস্যা, জাপানি মুদ্রা ইয়েনের দামের তারতম্য ও ব্যাংক ঋণের অভাবসহ নানা ইস্যু। তবে এর মধ্যেই দুর্নীতি বিরোধী অভিযান শুরু হওয়ায় আরেকদফা কমেছে ক্রেতা।

বারভিডা'র সাবেক মহাসচিব হাবিবুর রহমান বলেন, 'দুর্নীতির অভিযানের কারণে বিলাসবহুল গাড়ি কেনা থেকে পিছিয়ে গেছেন অনেকে। এটা হয়েছে বিশেষ গত চার মাস। চার মাসে গাড়ি বিক্রির ব্যবসা খুবই খারাপ।'

আবার কারো মতে, কালো টাকা সাদা করার জন্যও এ ব্যবসায় কেউ কেউ বিনিয়োগ করেছে। তারা বেশি গাড়ি আমদানি করে বাজার অস্থিতীশীল করেছে। এসব ব্যবসায়ী কম দামে গাড়ি বিক্রি করছে। তবে লোকসানের কারণে সে পথে হাটতে পারছেন না নিয়মিত ব্যবসায়ীরা।

বারভিডার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম আনোয়ার সাদাত বলেন, কিছু নতুন ব্যবসায়ী বুঝে না বুঝে এই ব্যবসায় বিনিয়োগ করেছে। রিকন্ডিশন্ড গাড়ির ব্যবসায় একটা অসম প্রতিযোগীতা বিারজ করায় লোকসান গুনতে হচ্ছে বলে জানান বারভিডার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম আনোয়ার সাদাত।

আমদানি আর বাজারজাতকরণ স্থিতিশীল রাখতে গাড়ির চাহিদা নিয়ে জরিপের পাশাপাশি সরকারের নজরদারি প্রয়োজন বলে মত সংশ্লিষ্টদের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর