channel 24

সর্বশেষ

  • আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুশফিকের ১৫ বছর

  • করোনায় মানবতার সেবায় দৃষ্টান্ত চাঁদপুরের চিকিৎসক দম্পতি

  • করোনায় ডেপুটি স্পিকারের স্ত্রী আনোয়ারা রাব্বীর মৃত্যু

  • করোনা আতঙ্কে ঘর থেকেই বের হননি রাজধানীর বেশিরভাগ মানুষ

  • লাদাখে মুখোমুখি ভারত ও চীনের সেনাবাহিনী

  • দুর্যোগে জনগণের পাশে না দাঁড়িয়ে সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করছে বিএনপি: কাদের

  • করোনায় দেশে আরও ২১ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১১৬৬

  • নিজের কিট দিয়ে করোনা পজিটিভ ডা. জাফরউল্লাহ

  • মানসিক অবস্থা ভালো হলেও শারীরিকভাবে সুস্থ নন খালেদা জিয়া

  • ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত খুলনার কয়রাসহ ৫ উপজেলার মাছ চাষী

  • দেশে রেকর্ড চাল উৎপাদনের আশা, উঠে আসবে বিশ্বের তিন নম্বরে

  • করোনায় শিক্ষাবিদ নিলুফার মঞ্জুরের মৃত্যু

  • বাংলাদেশের মানুষকে জেমি ডের ঈদ শুভেচ্ছা

  • করোনায় থমকে গেছে ঈদ পর্যটন, বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে হাহাকার

  • করোনা মোকাবেলায় 'কনট্যাক্ট ট্রেসিং অ্যাপ' হতে পারে অন্যতম মাধ্যম

এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু আগামী মাসেই

এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু আগামী মাসেই

কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে আশ্রয় নেয়াদের মধ্যে, এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হচ্ছে আগামী মাসেই। এরইমধ্যে ভাসানচরে স্বেচ্ছায় যেতে সম্মতি জানিয়েছে প্রায় একশো পরিবার। সরকারের সিদ্ধান্ত মেনে নিরাপদ বসবাসের জন্য তাদের এই সিদ্ধান্ত। যদিও বেশিরভাগ রোহিঙ্গাই ভাসানচরে যেতে নারাজ।

নিজদেশে ভিটেমাটি ছেড়ে কক্সবাজারের ক্যাম্পে রোহিঙ্গারা। যাদের মধ্যে এক লাখ মানুষকে নোয়াখালীর ভাসানচরে নিয়ে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

ইতোমধ্যে ভাসানচরে নির্মাণ করা হয়েছে ঘর। সেখানে নিয়ে যেতে উখিয়া-টেকনাফে এখন চলছে রোহিঙ্গাদের মতামত গ্রহণের কাজ। তাতে ভাসানচরে যেতে সম্মতি দিয়েছেন বেশকিছু রোহিঙ্গা। ক্যাম্পের চেয়ে ভাসানচরে সুবিধা হবে, সরকারের এমন ব্যবস্থার পক্ষে বলেও জানান তারা।

তারা বলেন, ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা সহ সব সুযোগ সুবিধা পেলে আমরা যেতে রাজি আছি। রোহিঙ্গা ক্যাম্প মাঝি নূর হোসেন বলেন, আমাদের নিজেদের দেশ নাই। বাংলাদেশ সরকার যেহেতু আমাদের জায়গা দিয়ে রাখবে বলেছে সেহেতু সরকারের কথা মেনে নেব।

তবে বেশিরভাগ রোহিঙ্গার মধ্যে এখনো ভাসানচর নিয়ে রয়েছে ভীতি। তারা চান মিয়ানমারে ফেরত যেতে। তারা বলেন, ভাসাঞ্চরে না গিয়ে আমাদের দেশে চলে যাবো। যারা সেখানে যাবে বলছে, তারা গত ২০-৩৫ বছর ধরে আছে। আমরা বাংলাদেশে থাকতে আসিনি। আমরা যে বিচারের অপেক্ষায় আছি, সেটা পেলে চলে যেতে চাই। যাবো কিভাবে, সেটা ভাবলেও ভয় লাগছে। আমাদের সেখানে নিয়ে যাওয়ার চেয়ে এখানে মরাই ভাল।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন জানিয়েছেন, ১শ' পরিবার ইতোমধ্যে ভাসানচরে যেতে রাজি হয়েছে। মতামত গ্রহণ শেষে নভেম্বর মাসে সেখানে নিয়ে যাওয়ার প্রক্রিয়া শুরুর প্রস্তুতি রয়েছে বলেও জানান তিনি।

কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্পে এখন অবস্থান করছেন ১১ লাখ রোহিঙ্গা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রাম 24 খবর